Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

খেলা

Paralympic 2020: অলিম্পিক্স, প্যারালিম্পিক্স দু’টিতেই অংশ নিয়েছেন এই ১৪ জন, তাঁরা কারা?

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৩ অগস্ট ২০২১ ১১:০১
অলিম্পিক্স এবং প্যারা অলিম্পিক্স (যাঁরা শারীরিক ভাবে সক্ষম নন, তাঁদের অলিম্পিক্স) দুটিতেই অংশ নেওয়া সম্ভব? এখনও পর্যন্ত ১৪ জন এই কীর্তি করে দেখিয়েছেন।

অলিম্পিক্স শেষ হয়ে যাওয়ার পরে টোকিয়োতে মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে এ বারের প্যারালিম্পিক্স। দেখে নেওয়া যাক কোন ১৪ জন দুটিতেই অংশ গ্রহণ করেছেন।
Advertisement
নেরোলি ফেয়ারহল: নিউজিল্যান্ডের এই মহিলা অ্যাথলিট প্রথম এই কীর্তি গড়েন। ১৯৭২ এবং ১৯৮০ প্যারালিম্পিক্সে অংশ নেন। ১৯৮০ সালে সোনা জেতেন। এরপর ১৯৮৪ সালে লস অ্যাঞ্জেলস অলিম্পিক্সে অংশ নেন। তারপর ১৯৮৮ এবং ২০০০ সালের প্যারালিম্পিক্সেও নামেন।

পাল জেকারেস: প্রথম অ্যাথলিট হিসেবে অলিম্পিক্স এবং প্যারালিম্পিক্স দুটিতেই পদক জেতেন তিনি। দুর্ঘটনার আগে ১৯৮৮ সালে অলিম্পিক্স ফেন্সিংয়ে ব্রোঞ্জ জেতেন। এরপর হু‌ইলচেয়ারে চেপে ১৯৯২ প্যারালিম্পিক্সে একটি সোনা, ১৯৯৬ প্যারালিম্পিক্সে দুটি সোনা এবং ২০০০, ২০০৪ ও ২০০৮ প্যারালিম্পিক্সে একটি করে ব্রোঞ্জ জেতেন।
Advertisement
সনিয়া ভেটেনবার্গ: বেলজিয়ামের এই শ্যুটার ১৯৮৪ এবং ১৯৮৮ সালের প্যারালিম্পিক্সে অংশ নিয়েছিলেন। দু’বারই পদক জিতেছিলেন। এরপর ১৯৯২ সালের অলিম্পিক্সে ১০ মিটার এয়ার পিস্তল বিভাগে অংশ নেন।

পাওলো ফেনতাতো: ইটালির এই তিরন্দাজ একই বছর অলিম্পিক্স এবং প্যারালিম্পিক্সে নেমে ইতিহাস তৈরি করেছেন। ১৯৯৬ সালে এই কীর্তি গড়েছিলেন ফেনতাতো। অলিম্পিক্সে পদক না পেলেও প্যারালিম্পিক্সে মহিলাদের দলগত বিভাগে ব্রোঞ্জ পান।

মারলা রুনিয়ান: আমেরিকার এই দৃষ্টিহীন ২০০০ এবং ২০০৪ সালে অলিম্পিক্সে অংশ নেন। প্যারালিম্পিক্সে তিনি পাঁচ বারের চ্যাম্পিয়ন। ১৯৯২ সালেই চারটি সোনা জিতেছিলেন।

নাতালিয়া পার্টিকে: মাত্র ১১ বছর বয়সে প্যারালিম্পিক্সে নামেন পোলান্ডের এই টেবিল টেনিস খেলোয়াড়। ২০০৪ সালে পরের প্যারালিম্পিক্সে সবথেকে কম বয়সে সোনা জয়ের রেকর্ড গড়েন। এরপর ২০০৮, ২০১২ এবং ২০১৬ সালে অলিম্পিক্সে অংশ গ্রহণ করেন।

নাতালি দু টয়েট: দক্ষিণ আফ্রিকার এই সাঁতারু ২০০৮ সালের অলিম্পিক্স এবং ২০০৪, ২০০৮ এবং ২০১২ সালের প্যারালিম্পিক্সে নেমেছিলেন।

অস্কার পিস্টোরিয়াস: দক্ষিণ আফ্রিকার এই স্প্রিন্টার ২০০৪, ২০০৮, ২০১২ প্যারালিম্পিক্সে অংশ গ্রহণ করার পর ২০২১২ সালের অলিম্পিক্সেও নামেন।

আসুন্তা লেগনান্তে: ২০০৮ সালের অলিম্পিক্সে অংশ নেওয়ার পর ২০১২ এবং ২০১৬ সালে প্যারালিম্পিক্সে নামেন। ২০১২ সালে শট পুটে সোনাও জিতে নেন তিনি।

পেপো পুখ: ২০০৪ সালের অলিম্পিক্সে ইকোয়েস্ট্রিয়ানে অংশ নেন। তারপর দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। ২০১২ এবং ২০১৬ সালে প্যারালিম্পিক্সে নেমে দুটি সোনা জিতে নেন।

ইলকে ওয়াইলুদ্দা: তিন বারের (১৯৯২, ১৯৯৬, ২০০০) অলিম্পিয়ানের পা বাদ যাওয়ার পরে ২০১২ প্যারালিম্পিক্সে শট পুটে নামেন।

জাহরা নেমাতি: ইরানের এই তিরন্দাজ ২০১৬ সালে রিয়ো অলিম্পিক্সে অংশ নেন। ২০১২ সালের প্যারালিম্পিক্সে তিনি সোনা জেতেন। চার বছর পরে রিয়োতে প্যারালিম্পিক্সে আবার সোনা জেতেন।

মেলিসা ট্যাপার: অস্ট্রেলিয়ার এই টেবিল টেনিস খেলোয়াড় ২০১২ সালের প্যারালিম্পিক্সে নামেন। তারপর ২০১৬ সালে অলিম্পিক্স, প্যারালিম্পিক্স দুটিতেই নামার যোগ্যতা অর্জন করেন।

সান্দ্রা পায়োভিচ: ক্রোয়েশিয়ার এই টেবিল টেনিস খেলোয়াড় ২০০৮ সালে বেজিং অলিম্পিক্সে অংশ গ্রহণ করেন। দুর্ঘটনার পরে ২০১৬ সালের রিয়ো প্যারালিম্পিক্সে নামেন।