Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

কঠিন ম্যাচে মর্গ্যানের বাজি আজ আমিরভ

দেবাঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়
২২ জানুয়ারি ২০১৭ ০৩:২৪
লাল-হলুদ প্র্যাকটিসে আমিরভ। শনিবার। ছবি: শঙ্কর নাগ দাস

লাল-হলুদ প্র্যাকটিসে আমিরভ। শনিবার। ছবি: শঙ্কর নাগ দাস

তাঁর পাশ দিয়ে গত বছর সুনীল ছেত্রীর গোলটা এখনও ভোলেননি লাল-হলুদের রাইট ব্যাক রাহুল ভেকে। ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে বেঙ্গালুরুর সেটাই প্রথম অ্যাওয়ে ম্যাচে জয়। শনিবার শীত-সকালে বারাসত থেকে অনুশীলন সেরে গাড়ির স্টিয়ারিংয়ে বসে তিনি বলেন, ‘‘রবিবার বেঙ্গালুরুকে হারালে ওই ভুলের প্রায়শ্চিত্ত হবে।’’

সমর্থক পরিবৃত হয়ে ততক্ষণে বুকেনিয়া, আমিরভের সঙ্গে একই গাড়িতে বাড়ি যাওয়ার পথ ধরেছেন লাল-হলুদের নয়া তারকা উইলিস প্লাজা। আজ রবিবারের ইস্টবেঙ্গল-বেঙ্গালুরু ম্যাচ সম্পর্কে ক্যারিবিয়ান স্ট্রাইকারের ছোট্ট ভবিষ্যদ্বাণী, ‘‘বেঙ্গালুরুকে আমরা হারাচ্ছি-ই।’’

একটু পরেই বারাসত স্টেডিয়ামের গেটের সামনে বাস থেকে নেমেই চক্ষু চড়কগাছ বেঙ্গালুরু এফসি-র স্প্যানিশ কোচ অ্যালবার্ট রোকার। তাঁকে ঘিরে ট্রেভর মর্গ্যানের টিমের সমর্থকদের উচ্ছ্বাস দেখতে দেখতে ড্রেসিংরুমে ঢুকে গেলেন সুনীল-বিনীতদের সফল কোচ।

Advertisement

চুম্বকে এগুলোই রবিবারের ইস্টবেঙ্গল-বেঙ্গালুরু ম্যাচের চব্বিশ ঘণ্টা আগের খণ্ডচিত্র। আই লিগের দাবিদার দুই যুযুধান প্রতিপক্ষের ম্যাচকে ইতিমধ্যেই বেঙ্গালুরু শিবির নাম দিয়ে ফেলেছে ‘ক্ল্যাশ অব দ্য উইক’। কলকাতার কাগজে বড় করে বিজ্ঞাপন দিয়ে তারা জানান দিয়েছেন সে কথা। ইস্টবেঙ্গল তো নয়ই, সাম্প্রতিককালে আই লিগের কোনও ক্লাব যা করেনি।

ইস্টবেঙ্গল কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যানও বলছেন সে কথা। ‘‘কাগজে কলমে এই ম্যাচটা আমাদের কাছে বেশ কঠিন। তবে পরপর দু’টো অ্যাওয়ে ম্যাচে জয় আত্মবিশ্বাস বাড়াচ্ছে।’’ শনিবার বিকেলের লাল-হলুদ তাঁবুতে দু’দলের প্রথামাফিক সাংবাদিক সম্মেলনে একটু থেমে সাহেব কোচ এটাও বলে দেন, ‘‘আমাদের কঠিন লড়াই। সঙ্গে ওদেরও।’’

সুনীল ছেত্রীদের কোচ রোকা আগের কোচ অ্যাশলে ওয়েস্টউডের মতো রগচটা নন। তাঁর পাল্টা, ‘‘আই লিগ জেতার পথে আমাদের অন্যতম কঠিন প্রতিপক্ষের নাম ইস্টবেঙ্গল। কাজেই রবিবার বারাসতে আমাদের প্রথম হার্ডলটা পেরোতে হবে। টানা চার ম্যাচ জিততে পারলে আমরা অনেকটা এগিয়ে যাব।’’

মেহতাবদের নিয়ে যে ভাবে এ দিন অনুশীলন করিয়েছেন তাঁদের কোচ তাতে, গত ম্যাচের দলই প্রায় অপরিবর্তিত থাকছে। কেবল হাওকিপের জায়গায় কিরঘিজ আমিরভের দলে ঢোকার সম্ভাবনা প্রবল।

অন্য দিকে কলকাতা থেকে ফের তিন পয়েন্ট নিয়ে যাওয়ার জন্য ৪-২-৩-১ ছকেই দল নামাতে পারে বেঙ্গালুরু। চোটের জন্য সন্দেশ ঝিঙ্গন আসেননি। আক্রমণে সামনে একা বিনীত। সুনীল চলে যাবেন উইংয়ে। বিনীত গত ম্যাচেই বেঙ্গালুরু এফসি-র ইতিহাসে প্রথম হ্যাটট্রিক করেছেন। তাঁর পিছনে সুনীল-লিংডো-উদান্তা।

বিতর্কে জড়িয়ে পড়া অবিনাশ রুইদাস-সহ বেশ কিছু ফুটবলারকে অনুশীলনে এ দিন মাঠে ডাকেননি ইস্টবেঙ্গল কোচ। আরও চমক মহম্মদ রফিক ভুল করে বারাসতের বদলে সেন্ট্রাল পার্কে চলে গেলেন প্র্যাকটিস করতে। আর কোচ নিজেই ভুলে গেলেন জ্যাকিচন্দকে প্র্যাকটিসে ডাকতে। যার জন্য নিজেকে জরিমানা করেছেন কোচ।

লাল-হলুদে বিতর্ক যেন থেমেও থামছে না। মর্গ্যান যদিও সে সব ঘটনাকে পাত্তা না দিয়ে বলছেন, ‘‘সমালোচনা থাকবেই। তার মধ্যেই আমাদের তিন পয়েন্ট আনতে হবে।’’

আরও পড়ুন

Advertisement