×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

খেলা

নেই সৌরভ, রোহিত, তিনি নিজেও! কপিলের বাছাই সেরা ভারতীয় একাদশে বিতর্ক

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৫ নভেম্বর ২০২০ ১৭:৪০
তিনি ভারতের সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারের অন্যতম। অনেকের মতে, তিনিই সেরা। সেই কপিল দেব বেছে নিলেন ভারতের সর্বকালের সেরা ওয়ান ডে একাদশ। তবে সেই দল নিয়ে ইতিমধ্যেই তৈরি হয়েছে বিতর্ক। সেরা একাদশে তিনি নিজেকে তো রাখেনইনি, রাখেননি রোহিত শর্মা বা সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কেও। কেমন হল সেই দল? দেখে নিন।

বীরেন্দ্র সহবাগ: ২৫১ ম্যাচে ৮২৭৩ রান করা সহবাগকে বিশ্বের অন্যতম বিধ্বংসী ওপেনার বলা হয়। কপিলের দলেরও তিনিই ওপেনার। মারকুটে এই ওপেনার পার্টটাইম স্পিনারও বটে।
Advertisement
সচিন তেন্ডুলকর: ভারতের তো বটেই, বিশ্বের যে কোনও সেরা একাদশে অনায়াসে জায়গা পেতে পারেন সচিন। ৪৬৩টি ওয়ান ডে-তে ১৮৪২৬ রান। তাতে রয়েছে ৪৯টি সেঞ্চুরি এবং ৯৬ হাফ সেঞ্চুরি। সচিনের ব্যাটের জোরে বহু ম্যাচেই উতরে গিয়েছে টিম ইন্ডিয়া।

রাহুল দ্রাবিড়: টেস্ট দলে টিম ইন্ডিয়ার ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’ জায়গা পেয়েছেন কপিলের বাছাই করা সেরা এক দিনের একাদশেও। দ্রাবিড়ের নির্বাচনে অনেকে হতবাক হলেও তাঁর এক দিনের আন্তর্জাতিক রেকর্ড যথেষ্ট সমীহ জাগানোর মতো। ৩৪৪টি ওয়ান ডে-তে ১০ হাজার রানের গণ্ডি পার করা দ্রাবিড়ের ব্যাট থেকে বেরিয়েছে ১২টি সেঞ্চুরি এবং ৮৩টি হাফ সেঞ্চুরি।
Advertisement
বিরাট কোহালি: সচিনের মতোই দেশের হয়ে একাই বহু ম্যাচ বার করেছেন বিরাট কোহালি। ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই সমান সাবলীল বিরাটের ওয়ান ডে-র রেকর্ড রীতিমতো আকর্ষণীয়। ২৪৮টি একদিনের ম্যাচে ১১৮৬৭ রান। ইতিমধ্যেই ৪৩টি সেঞ্চুরি করা হয়ে গিয়েছে বিরাটের। এক দিনের ম্যাচে সচিনের সেঞ্চুরির রেকর্ডের দিকেই দৌড়চ্ছেন তিনি। ৫৯.৩৩ গড়ে ৫৮টি হাফ সেঞ্চুরিও রয়েছে বিরাটের।

যুবরাজ সিংহ: তিরাশির বিশ্বকাপ জয়ী কপিল নিজেকে এই একাদশে না রাখলেও জায়গা দিয়েছেন যুবরাজকে। ২০১১ সালের বিশ্বকাপ জয়ী দলের অন্যতম সদস্য ওই টুর্নামেন্টের ৯টি ম্যাচে ৩৬২ রান করেছিলেন। সঙ্গে ১টি সেঞ্চুরি এবং ৪টে হাফ সেঞ্চুরি। সে বারের বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার ৩০৪টি ম্যাচে ৮৭০১ রানের মালিক। কেরিয়ারে রয়েছে ১৪টি সেঞ্চুরি এবং ৫২টি হাফ সেঞ্চুরি। বাঁ হাতি স্পিনেও ভেল্কি দেখাতে পারেন তিনি। সঙ্গে যোগ করুন তাঁর ফিল্ডিং-দক্ষতা।

মহেন্দ্র সিংহ ধোনি: কপিলের সেরা একাদশে বিরাট কোহালি থাকলেও ধোনিকেই দলের অধিনায়ক বেছে নিয়েছেন কপিল। ২০১১ সালের আইসিসি ক্রিকেট জয়ী দলের টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়কের উপর অগাধ আস্থা দেখিয়েছেন তিনি। ৩৫০টি ওয়ান ডে-তে ১০টি সেঞ্চুরি রয়েছে মাহির। সঙ্গে করেছেন ৭৩টি হাফ সেঞ্চুরি। ওয়ান ডে-তে কেরিয়ারের সর্বোচ্চ অপরাজিত ১৮৩। উইকেটের পিছনেও ‘ক্যাপ্টেন কুল’-এর ত়়ড়িৎ গতির স্টাম্পিংয়েও মুগ্ধ ক্রিকেটবিশ্ব।

হরভজন সিংহ: স্পিনারদের মধ্যে কপিল বেছে নিয়েছেন ভাজ্জিকে। ২৩৬টি ম্যাচে ২৬৯ উইকেটের মালিক ব্যাট হাতেও মাঝেমধ্যে চমকে দিয়েছেন অনেককেই।

জাহির খান: কপিলের সেরা ভারতীয় একাদশে পেস অ্যাটাকের দায়িত্ব পেয়েছেন জাহির খান। জাহিরের মাপা সুইংয়ে একসময় বহু ব্যাটসম্যানই কাবু হয়েছেন। কেরিয়ারের ২০০ ওয়ান ডে ম্যাচে জাহির নিয়েছেন ২৮২ উইকেট। সেরা ৪২ রানে ৫ উইকেট।

জাভাগাল শ্রীনাথ: জাহির খানের জুটি হিসেবে কপিল বেছে নিয়েছেন জাভাগাল শ্রীনাথকে। ২২৯টি ম্যাচে ৩১৫ উইকেটের মালিক শ্রীনাথ এককালে গতিতেই বহু ব্যাটসম্যানকে পরাস্ত করেছেন।

অনিল কুম্বলে: হরভজনের সঙ্গে কপিলের বাছাই একাদশে স্পিন বিভাগ সামলানোর দায়িত্বে রয়েছেন কুম্বলে। এক ইনিংসে ১০ উইকেটের দখল নেওয়া কুম্বলে ওয়ান ডে-তেও একসময় ভারতের অন্যতম ভরসা ছিলেন। ২৭১টি ওয়ান ডে-তে ৩৩৭টি উইকেট নিয়েছেন কুম্বলে। সেরা ১২ রানে ৬ উইকেট।

যশপ্রীত বুমরা: শ্রীনাথ-জাহিরদের সঙ্গে এই একাদশের পেস অ্যাটাকে বাড়তি ঝাঁঝ এনে দিতে পারেন বুমরা। এই মুহূর্তে আইসিসি ওডিআই ক্রিকেট র‌্যাঙ্কিংয়ে ২ নম্বরে রয়েছেন তিনি। এখনও পর্যন্ত ৬৪ ওডিআই-তে ১০৪ উইকেট তুলে নিয়েছেন বুমরা। তাঁর সেরা: ২৭ রানে ৫ উইকেট।