Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৪ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

পেন দিয়ে সাফল্য লিখতে চাইছে সচিনের ব্লাস্টার্স

তোমার জীবনে খারাপ সময় আসবেই। কিন্তু তা একইসঙ্গে কিছু ভাল বিষয়ের খবরও নিয়ে আসবে। ‘গুড উইল হান্টিং’ ছবিতে কথাগুলো বলেছিলেন হলিউডের প্রয়াত কমেড

দেবাঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়
গুয়াহাটি ১৩ অক্টোবর ২০১৪ ০২:৫১
Save
Something isn't right! Please refresh.
পেন: কেরল অধিনায়ক।

পেন: কেরল অধিনায়ক।

Popup Close

তোমার জীবনে খারাপ সময় আসবেই। কিন্তু তা একইসঙ্গে কিছু ভাল বিষয়ের খবরও নিয়ে আসবে। ‘গুড উইল হান্টিং’ ছবিতে কথাগুলো বলেছিলেন হলিউডের প্রয়াত কমেডিয়ান রবিন উইলিয়ামস।

হলিউড অভিনেতার সেই সংলাপই কী খেটে গেল পেন ওরজির জীবনে?

স্যাটারডে নাইটে কেরল ব্লাস্টার্সের ডিনার টেবিলে তো সেই ব্যাপারই ঘটে গিয়েছিল! সচিনের দলের মার্কি প্লেয়ার-কাম-ম্যানেজার, প্রাক্তন ইংল্যান্ড গোলকিপার ডেভিড জেমস সেখানেই উঠে দাঁড়িয়ে ঘোষণা করেন, আইএসএলে সচিন তেন্ডুলকরের দলের ক্যাপ্টেন পেন ওরজি।

Advertisement

ইস্টবেঙ্গল ছেড়ে মহমেডান। তার পর সাদা-কালো শিবিরের আই লিগ থেকে অবনমন। আই লিগের আর কোনও দল সই করায়নি। শেষ পর্যন্ত বেশ পরেই দিকেই তাঁকে আইএসএলের টিম কেরল ব্লাস্টার্স দলে নিয়েছিল। আর এই মুহূর্তে তিনি আইএসএলে অধিনায়ক বিশ্বকাপার ডেভিড জেমস, মাইকেল চোপড়াদের মতো হোমড়াচোমড়াদের! টুর্নামেন্টে ব্র্যান্ড-সচিনের প্রধান সেনাপতি।

প্রথম ম্যাচ খেলতে নামার চব্বিশ ঘণ্টা আগে টিম হোটেলের লবিতে বসে সচিনের দলের অধিনায়ক পেন ওরজি বলছিলেন, “এখনও ঘোরের মধ্যে রয়েছি! গায়ে ঠান্ডা জল ঢাললে লোকে যে রকম চমকে ওঠে, সে রকমই অবস্থা হয়েছিল আমার। জেসিটিতে এর আগে ক্যাপ্টেন ছিলাম। আর ইস্টবেঙ্গলের হয়ে কলকাতা লিগের কয়েকটা ম্যাচে।” টিম সূত্রে খবর, কেরল ব্লাস্টার্স শিবিরে ভারতীয় এবং বিদেশিদের মধ্যে যিনি সেতুবন্ধন করেছেন তিনি হলেন কলকাতায় খেলা এই নাইজিরিয়ান মিডিও। মাইকেল চোপড়াকে তাঁর প্রিয় বলিউড নায়িকা প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার সিনেমা দেখানোই হোক বা অভিনব বাগকে কোচের নির্দেশ বোঝানো। যা মন কেড়েছে টিম ম্যানেজমেন্টের। তাই এই সিদ্ধান্ত।

কিন্তু প্রথম যুদ্ধেই বিপক্ষে বিশ্বকাপার কোচ। রোনাল্ডো, মেসিদের বিরুদ্ধে খেলা দুই সাইড ব্যাক কাপদেভিয়া এবং মিগুয়েল গার্সিয়া। সঙ্গে লাজংয়ের তরুণ ব্রিগেড। চ্যালেঞ্জ কতটা শক্ত? শুনে হাসছেন পেন ওরজিদের কোচ ট্রেভর জেমস মর্গ্যান। “আগে তো মাঠে নামি। খেলবে তো ফুটবলাররা। কাল ম্যাচের পরেই না হয় কথা বলা যাবে?” মর্গ্যান কূটনীতিবিদের মতো প্রশ্নটা এড়িয়ে গেলেও তাঁর কোচিংয়ে কলকাতা ডার্বিতে গোল করে একদা ইস্টবেঙ্গলকে ম্যাচ জেতানো অধুনা কেরল দলের বরিসিচ বলছেন, “মর্গ্যানের মস্তিষ্ক আর আমাদের সেই পরিচিত টিম ওয়ার্ক। সঙ্গে মাইকেল চোপড়ারা রয়েছে। গোল করতে মুখিয়ে রয়েছি।”

বরিসিচের অন্যতম ট্রাম্প কার্ড ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে নিউক্যাসলের জার্সি গায়ে খেলা মাইকেল চোপড়া তখন এক মনে ল্যাপটপে দেখছিলেন আইএসএলের প্রোমো ‘ইয়ে দিওয়ালি ফুটবলওয়ালি’। বিরিয়ানি আর বলিউডের ভক্ত ব্রিটিশ ফুটবলারও বিন্দাস মেজাজে মর্গ্যানকে দেখিয়ে বললেন, “ডেভিডের সঙ্গে খেলেছি। আর মর্গ্যান বেশ মজার কোচ। আমাদের সঙ্গে নিজেও রোজ খাটছে। ভারতীয় সার্কিটে মেহতাব, নির্মল আর ইসফাকদের নিয়ে ওর সাফল্য কম নয় কিন্তু।” ইংল্যান্ডের বাড়িতে বাবা আনন্দ চোপড়া এবং ছ’বছরের ছেলে সেবাস্তিয়ানকে কথা দিয়েছেন আইএসএলে ভাল পারফর্ম করবেন বলে। প্রথম ম্যাচ থেকেই তাঁর প্রমাণ রাখতে চান। যাতে এর পরেই আই লিগের কোনও দলে ঢুকে পড়তে পারেন।

জন আব্রাহামের দলের গতিময়, তরুণ নর্থ-ইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে তা হলে কি মর্গ্যানের সেই পরিচিত ৪-১-৩-২? হোঁচট এখানেই। মর্গ্যান বললেন, “মাঠেই দেখতে পাবেন।” আর তাঁর অধিনায়ক বললেন, “বেটিং, ম্যাচ গড়াপেটা আটকাতে এক দফা নির্দেশিকা টিম মিটিংয়ে পড়ে এলাম। কোনও কিছুই বলা যাবে না।”

মর্গ্যান-ব্রিগেড সোমবারের যুদ্ধ জয়ের নীল-নকশা ফাঁস না করলেও নর্থ-ইস্ট ইউনাইটেড কিন্তু যুদ্ধ জয়ের জন্য শান দিচ্ছে সেই ৪-৪-১-১ ছকেই। কাউন্টার অ্যাটাকে জন আব্রাহামের দলের ছক প্রেসিং ফুটবলে বিপক্ষকে পেড়ে ফেলা। শনিবার সকালে সেই প্র্যাকটিসই হয়েছে পুরোদমে। যেখানে তাঁদের কোচ রিকি হারবার্টের কথায়, “অপোনেন্টকে কোনও জায়গা দেব না। সঙ্গে পজেশনাল আর কাউন্টার অ্যাটাক ভিত্তিক ফুটবল। তার পর দেখা যাক কী হয়।”

জন ভার্সাস সচিন, মর্গ্যান ভার্সাস হারবার্ট, কাপদেভিয়া ভার্সাস মাইকেল চোপড়া, আইবর ভার্সাস সাবিথ দ্বৈরথ দেখতে সোমবার দুপুরেই শহরে সস্ত্রীক ঢুকে পড়ার কথা সচিন, মেরি কমদের। উদ্যোক্তাদের তরফে খবর, আসতে পারেন টুর্নামেন্টের চেয়ারপার্সন নীতা অম্বানীও।

পেন বলছেন, “মাঠেই বুঝতে পারবেন।” আর নর্থ-ইস্টের হয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে আসা পারফরম্যান্স কোচ লি টেলর বলে গেলেন, “আমাদের শক্তি তারুণ্য আর গতি। সঙ্গে স্থানীয়দের সমর্থন।” গ্যালারি ভরাতে নাকি শিলং থেকে দলে দলে লোক আসবে সোমবার। সব মিলিয়ে তাই চড়তে শুরু করেছে গুয়াহাটির ফুটবল-উত্তেজনা।

সোমবারে আইএসএল
নর্থ ইস্ট ইউনাইটেড এফসি:কেরল ব্লাস্টার্স এফসি (গুয়াহাটি, সন্ধ্যা ৭টা)

শুরুর সে দিন

ভারতীয় ফুটবলের প্রাচীনতম টুর্নামেন্ট ডুরান্ড কাপ। শুরু ১৮৮৮ সালে। নবতম, ইন্ডিয়ান সুপার লিগ। মাঝে রয়েছে আরও সাতটি টুর্নামেন্ট। কবে শুরু, কে প্রথম চ্যাম্পিয়ন, তারই ঝলক এক নজরে

ডুরান্ড কাপ

কিকঅফ ১৮৮৮, চ্যাম্পিয়ন রয়্যাল স্কটস ফুজিলিয়াসর্

রোভার্স কাপ

কিকঅফ ১৮৯১, চ্যাম্পিয়ন ফার্স্ট উস্টার রেজিমেন্ট

আইএফএ শিল্ড

কিকইফ ১৮৯৩, চ্যাম্পিয়ন রয়্যাল আইরিশ রাইফেল্স

কলকাতা ফুটবল লিগ

কিকঅফ ১৮৯৮, চ্যাম্পিয়ন গ্লস্টারশায়ার

সন্তোষ ট্রফি

কিকঅফ ১৯৪১, চ্যাম্পিয়ন বাংলা

ডি সি এম

কিকঅফ ১৯৪৫, চ্যাম্পিয়ন নিউ দিল্লি হিরোজ

ফেডারেশন কাপ

কিকঅফ ১৯৭৭, চ্যাম্পিয়ন আইটিআই

জাতীয় লিগ

কিকঅফ ১৯৯৬-৯৭, চ্যাম্পিয়ন জেসিটি

ইন্ডিয়ান সুপার লিগ

কিকঅফ ১২ অক্টোবর ২০১৪, ?

তথ্য: হরিপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement