Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০২ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

নির্বাচকেরা কী ভেবে মনোজকে কোনও দলে রাখেননি, জানি না: সৌরভ

বুধবার সন্ধ্যায় ইডেনের ক্লাব হাউসে সিএবি প্রেসিডেন্ট বলে দেন, ‘‘মনোজের অবশ্যই সুযোগ পাওয়া উচিত ছিল। গত মরসুমে ওর যা পারফরম্যান্স ছিল, তাতে ও

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৬ জুলাই ২০১৮ ০৪:০১
Save
Something isn't right! Please refresh.
প্রস্তুতি: সিএবি-তে বৈঠকের আগে সৌরভ, বাহুতুলে। বুধবার। —নিজস্ব চিত্র।

প্রস্তুতি: সিএবি-তে বৈঠকের আগে সৌরভ, বাহুতুলে। বুধবার। —নিজস্ব চিত্র।

Popup Close

ভারত ‘এ’ ও ‘বি’ এবং দলীপ ট্রফির জন্য সব মিলিয়ে যে হাফ ডজন দল সম্প্রতি গড়েছেন জাতীয় নির্বাচকেরা, তাতে মনোজ তিওয়ারি নেই দেখে অবাক হয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তবে এই ছয় দলে বাংলার মাত্র ছ’জন সুযোগ পাওয়ায় খুব অবাক হননি তিনি। তাঁর বক্তব্য, মনোজ বাদে যাঁদের সুযোগ প্রাপ্য ছিল, তাঁরা সবাই সুযোগ পেয়েছেন।

বুধবার সন্ধ্যায় ইডেনের ক্লাব হাউসে সিএবি প্রেসিডেন্ট বলে দেন, ‘‘মনোজের অবশ্যই সুযোগ পাওয়া উচিত ছিল। গত মরসুমে ওর যা পারফরম্যান্স ছিল, তাতে ওকে যে কোনও দলে রাখাই যেত। কিন্তু নির্বাচকেরা কী ভেবে ওকে কোনও দলে রাখেননি, জানি না।’’

কিন্তু নির্বাচকদের কমিটিতে যেখানে বাংলার এক প্রতিনিধি দেবাঙ্গ গাঁধীও রয়েছেন, সেখানে তাঁর ভূমিকা নিয়ে কি প্রশ্ন তুলবে না বাংলার ক্রিকেট সংস্থা? এই প্রশ্নের জবাবে সৌরভ বলেন, ‘‘নিশ্চয়ই প্রশ্ন করব। দেবাঙ্গকে বলব, এর পরে যখন দল বাছতে বসবে, তখন যেন মনোজের কথা মাথায় রাখে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: যুব টেস্টে অনন্য কীর্তি পবনের​

সামনে আয়ারল্যান্ড, জয় চাই রানিদের​

গত মরসুমে দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে মনোজ সীমিত ওভারে ১২৬.৭০ গড়ে ৫০৭ রান করেছিলেন, যা ভারতীয় ক্রিকেটে নজির। একই মরসুমে চারশোর বেশি রান করা কোনও ব্যাটসম্যানের এত ব্যাটিং গড় ছিল না কখনও। ২০১৭-১৮ মরসুমে বিজয় হাজারে ট্রফি ও দেওধর ট্রফিতে একশোর বেশি গড় ছিল বাংলার অধিনায়কের। একই মরসুমে দুই প্রতিযোগিতায় একশোর ওপর গড়ও কারও ছিল না।

তা সত্ত্বেও ভারতের সিনিয়র দল তো দূরের কথা, অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার ‘এ’ দলের বিরুদ্ধে সিরিজে বা ‘বি’ দলে বা এমনকি, দলীপ ট্রফিতেও কোনও দলে তাঁর জায়গা হয়নি। অভিমানে মঙ্গলবার বাংলার অধিনায়কত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত জানিয়ে চিঠিও দিতে যান মনোজ। কিন্তু সৌরভের অনুপস্থিতিতে যুগ্মসচিব অভিষেক ডালমিয়া তা গ্রহণ করেননি। তাঁকে বুঝিয়ে-শুনিয়ে পদে থাকার জন্য অনুরোধ করেন।

এ দিন যদিও সৌরভ জানিয়ে দেন, ‘‘মনোজই অধিনায়ক থাকবে। শুক্রবার বাংলার প্রাথমিক দল বাছাইয়ের বৈঠকেও ও উপস্থিত থাকবে। ও খুব ভাল ছেলে। সুযোগ না পেয়ে ওর অভিমান হয়েছে। তবে আমি কথা বলেছি ওর সঙ্গে। ও নেতৃত্ব ছাড়বে না।’’

সৌরভ এই কথা বলে ইডেন ছেড়ে চলে যাওয়ার পরে মনোজের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি অবশ্য বলেন, ‘‘আমার সঙ্গে দাদার (সৌরভ) কোনও কথা হয়নি। প্রাথমিক দল বাছাইয়ের বৈঠকেও যাব কি না, এখনও জানি না।’’

বুধবার যদিও মনোজ তাঁর টুইটারে সৌরভের সঙ্গে একটি ছবিও পোস্ট করে লেখেন, ‘‘দাদার মতো কামব্যাক করতে চাই’’। সেই ছবি দেখে অনেকের অনুমান, দু’জনের মধ্যে কথাবার্তা হয়ে কিছু একটা বোঝাপড়া হয়ে থাকলেও অবাক হওয়ার নেই।

সৌরভের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত বৈঠক সেরে বেরনোর পরে বাংলার কোচ সাইরাজ বাহুতুলে যা বলেন, তাতে বিভ্রান্তি আরও বেড়ে যায়। তাঁর বক্তব্য, ‘‘মনোজ কেন নেতৃত্ব ছাড়তে চেয়েছে জানি না। তবে ও দায়িত্ব না নিলে আমাদের হাতে বিকল্প রয়েছে। সুদীপ চট্টোপাধ্যায়, অশোক ডিন্ডা, অভিমন্যু ঈশ্বরনরা তো রয়েছে।’’

জাতীয় স্তরের ছ’টি দলে বাংলার যে মাত্র ছ’জন ক্রিকেটার রয়েছেন তা নিয়ে সৌরভের বক্তব্য, ‘‘বাংলার এগারো জন ক্রিকেটারের মধ্যে ছ’জন সুযোগ পেয়েছে। আর কতজন পাবে? ওদের প্রত্যেকেরই সুযোগ প্রাপ্য। আরও যারা ভাল খেলবে, তারাও ভবিষ্যতে সুযোগ পাবে।’’ যদিও বাংলার রঞ্জি দলের নিয়মিত এগারো ক্রিকেটারের মধ্যে চারজন ডিন্ডা, ঈশ্বরন, অভিষেক রামন ও সুদীপ রয়েছেন এই ছয়টি দলে। ঋত্বিক চট্টোপাধ্যায়, ইশান পোড়েলরা সিনিয়র দলে নিয়মিত খেলেন না। তবে এই মরসুমে হয়তো খেলবেন। আর বাংলা দলে এগারো জন খেলেন বলতে সৌরভ কী বোঝাতে চেয়েছেন, সেটাও স্পষ্ট নয়। অনেক রাজ্য থেকে অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটারেরাও ভারতীয় ‘এ’ বা ‘বি’ দলে খেলছেন। শুধু সিনিয়রের এগারো জনই বাংলার ক্রিকেটার, এমন ভাবনা কেন?

জাতীয় নির্বাচকেরা মনোজকে কোনও দলে যেমন নেননি, তেমন তাঁকে এ বার সিএবি-র বর্ষসেরা ক্রিকেটার বাছেননি বাংলার নির্বাচকেরাও। এই পুরস্কার পাচ্ছেন অভিমন্যু ঈশ্বরন। যা নিয়ে সৌরভ বলছেন, ‘‘অভিমন্যুর এটা প্রাপ্য ছিল বলেই পাচ্ছে।’’ কারও কারও মনে হচ্ছে, অভিমন্যুকে বাংলার ভবিষ্যৎ অধিনায়ক হিসেবে দেখার ভাবনা শুরু হয়ে গিয়েছে।

শুক্রবার নির্বাচকদের বৈঠকে মনোজ না এলে বুঝতে হবে, বিষয়টা মোটেই সরল নয়, বরং বেশ জটিল।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement