Advertisement
২৪ জুন ২০২৪

ফাইনালে আজ কেউ ফেভারিট নয়

এ বারের টুর্নামেন্টে মেয়েদের বিভাগে তাৎপর্যপূর্ণ ব্যাপার হল সিঙ্গলস সেমিফাইনালে যে চার জন খেলল তাদের সবাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের। দীর্ঘ সময় পর যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে এমন একজন মার্কিন চ্যাম্পিয়ন হতে চলেছে যার নাম সেরিনা কিংবা ভিনাস উইলিয়ামস নয়।

প্রতিদ্বন্দ্বী: যুক্তরাষ্ট্র ওপেনের সিঙ্গলসের ফাইনালে উঠে টেনিস বিশ্বকে চমকে দিয়েছেন স্লোয়ান স্টিফেন্স ও ম্যাডিসন কিইজ। ছবি: এএফপি।

প্রতিদ্বন্দ্বী: যুক্তরাষ্ট্র ওপেনের সিঙ্গলসের ফাইনালে উঠে টেনিস বিশ্বকে চমকে দিয়েছেন স্লোয়ান স্টিফেন্স ও ম্যাডিসন কিইজ। ছবি: এএফপি।

বরিস বেকার
শেষ আপডেট: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৩:৫৬
Share: Save:

যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে এ বার মেয়েদের বিভাগে প্রতিযোগিতা রোলার কোস্টারে চাপার মতোই উত্তেজনায় ভরা। যার শুরুটাই হয়েছিল গ্র্যান্ড স্ল্যামে মারিয়া শারাপোভার ঝলমলে প্রত্যাবর্তন দিয়ে। তাও আবার সার্কিটের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে জয় দিয়ে। সিমোনা হালেপের বিরুদ্ধে শারাপোভার জয় দেখে আশা জেগেছিল সেই পুরনো ছন্দেই বোধহয় ইউএস ওপেনে দেখা যাবে মাশা-কে। শেষ পর্যন্ত তা না হলেও শারাপোভা বুঝিয়ে দিয়েছে, ও যত ম্যাচ ফিট হয়ে উঠবে ততই ক্ষুরধার প্রতিপক্ষ হয়ে উঠবে আগের মতোই।

এ বারের টুর্নামেন্টে মেয়েদের বিভাগে তাৎপর্যপূর্ণ ব্যাপার হল সিঙ্গলস সেমিফাইনালে যে চার জন খেলল তাদের সবাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের। দীর্ঘ সময় পর যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে এমন একজন মার্কিন চ্যাম্পিয়ন হতে চলেছে যার নাম সেরিনা কিংবা ভিনাস উইলিয়ামস নয়।

স্লোয়ান স্টিফেন্স এমন একজন খেলোয়াড় যে গত কয়েক বছরে অনেক উন্নতি করেছে। ভিনাসের বিরুদ্ধে সেমিফাইনাল ম্যাচে নিজের শক্তি ও ক্ষমতার পরিচয় দিয়েছে ও। জীবনের অন্যতম সেরা ম্যাচটা খেলতে নেমে ও যে ভাবে স্নায়ুযুদ্ধে জিতে ম্যাচ বার করল সেই ব্যাপারটা প্রশংসার। আমার তো বেশ লেগেছে। দ্বিতীয় সেটে ভিনাস ওকে ঝড়ের মতো ৬-০ উড়িয়ে দেওয়ার পর ভেবেছিলাম ওর আর জেতা হল না। হয়েও যাচ্ছিল প্রায় তাই। কিন্তু ৫-৪ পিছিয়ে থাকা অবস্থায় দুর্দান্ত ব্যাকহ্যান্ড ভলিতে ও ৩০-৩০ করল, তা দেখে আমি মোহিত হয়ে গিয়েছি। ছেলেবেলার তারকা ভিনাসকে হারিয়ে স্লোয়ান দেখাল ওর সাহস এবং প্রত্যয়।

আরও পড়ুন

দুই মার্কিন মেয়ের দ্বৈরথ দেখতে মুখিয়ে রয়েছি

অন্য ম্যাচে ম্যাডিসন কেইস যে জিতবে তা কিছুটা আগাম আন্দাজ করা গিয়েছিল। ম্যাচেও কোকো ভান্ডেওয়ে-কে স্ট্রেট সেটে উড়িয়ে দিয়েছে ম্যাডিসন। এই মুহূর্তে দারুণ ফর্মে রয়েছে ম্যাডিসন কেইস। এ বারের যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে ও বুঝিয়ে দেল কেন জুনিয়র সার্কিট থেকে বিদ্যুৎগতিতে উঠে এসে ধীরে ধীরে মার্কিন টেনিসের মুখ হয়ে উঠছে ও।

এ বারের টুর্নামেন্ট আরও একটা প্রত্যাবর্তন দেখল। সেটা হল কুইতোভার। বছরের শুরুতে ছুরিকাঘাতে কাবু হয়ে দীর্ঘদিন কোর্টের বাইরে ছিল ও। ফিরে এসে দারুণ খেলল যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে। বিশেষ করে ভিনাসের বিরুদ্ধে হেরে গেলেও অনবদ্য খেলেছে ও। এ ছাড়াও শীর্ষ বাছাই গার্বিনে মুগুরুজার বিরুদ্ধেও দারুণ খেলে জিতেছে কুইতোভা।

ফাইনালের দিকে তাকালে মনে হচ্ছে দুই আমেরিকান খেলোয়াড়ের লড়াই বেশ হাড্ডাহাড্ডি হবে। কারণ স্লোয়ান স্টিফেন্স ও ম্যাডিসন কেইস—দু’জনেই দু’জনের খেলার ধরন সম্পর্কে অবহিত। ওদের দু’জনের বয়সেও খুব একটা ফারাক নেই। যদিও কেইস একটু বড়সড় চেহারার এবং শক্তিশালী। অন্য দিকে ভিনাসকে হারিয়ে স্টিফেন্সও আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থাকবে। তবে দু’জনের খেলার ধরন এতটাই এক রকম যে ফাইনালে ফেভারিট বাছতে পারছি না কাউকেই।

সব শেষে আসি, সেরিনার কথায়। যুক্তরাষ্ট্র ওপেনের সময়ই মা হল ও। ফাইনালে যে-ই জিতুক না কেন, তার থেকে সেরিনার মতো নিখুঁত টেনিস দেখতে চাই।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE