• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

খরচে ছাড় দিয়েই ভর্তি শুরু স্নাতকে

admission
প্রতীকী ছবি।

অতিমারির আবহে এ বার ছাত্রছাত্রী ভর্তির ক্ষেত্রে অনেক কলেজ ৩৫ থেকে ৫০ শতাংশ কম টাকা নেওয়ার ঘোষণা করেছিল আগেই। সোমবার রাজ্যের বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক স্তরে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরুর দিনে দেখা গেল, অনেক কলেজই ঘোষণা অনুযায়ী টাকা কম নিচ্ছে। কিন্তু শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নিষেধ সত্ত্বেও বেশ কিছু ক্ষেত্রে অনলাইনে ব্যাঙ্কে টাকা জমা দেওয়ার জন্য ‘বিশেষ চার্জ’ নেওয়া হচ্ছে।

তবে ছাড়ের খতিয়ানই বেশি। যেমন, নৈহাটি ঋষি বঙ্কিমচন্দ্র কলেজ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তারা পড়ুয়াদের কাছ থেকে ভর্তি ফি নেবে মাত্র একটি টাকা। ওই ফি দিয়েই ছাত্রছাত্রীরা পুরো সিমেস্টার পড়তে পারবেন। ব্যবহার করতে পারবেন ল্যাবরেটরিও।  কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি অমল চক্রবর্তী এ দিন বলেন, ‘‘ভর্তির জন্য আবেদনের ফি ৬০ টাকা। ওই ৬০ টাকা অবশ্য দিতে হবে পড়ুয়াদের। এর সঙ্গে ভর্তির ফি লাগবে এক টাকা। মোট ৬১ টাকায় পড়ুয়ারা ভর্তি হয়ে ক্লাস করার সুযোগ পাবেন।’’

ফর্ম পূরণ থেকে শুরু করে ভর্তির টাকা জমা দেওয়া— এখন সবই হয় অনলাইনে। এ ক্ষেত্রে ক্রেডিট কার্ড বা ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে অনলাইনে ভর্তি ফি জমা দিতে পারেন পড়ুয়ারা। যাদের মাধ্যমে অনলাইনে এই টাকা জমা পড়ে, তারা এই কাজের জন্য একটা ‘চার্জ’ নেয়। সেই চার্জ এ বছর কিছুটা বেড়েছে। অনলাইনে টাকা জমা দিলে পড়ুয়াকে যে-বিশেষ চার্জ দিতে হয়, এ বারের করোনা পরিস্থিতি বিচার করে সেটা নিতে বারণ করেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থবাবু। জানিয়েছিলেন, কলেজে ভর্তি প্রক্রিয়ার সময় অনলাইন ভর্তি বাবদ ব্যাঙ্ক তাদের ‘চার্জ’ হিসেবে যে-টাকা কাটে, এ বছর সেটা নেওয়া উচিত নয়। এই টাকা ‘সাবসিডাইজ়’ (ভর্তুকি) করা উচিত কলেজগুলিরই। কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে, কিছু কলেজ ছাড়া প্রায় সব কলেজে ওই চার্জ নেওয়া হচ্ছে। মন্ত্রীর অনুরোধ সত্ত্বেও কেন এই টাকা নেওয়া হচ্ছে, তার উত্তর মিলছে না।

রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন আর্টস ও ভিজ়ুয়াল আর্টস বিভাগের অধীনে যে-সব বিষয় রয়েছে, সেগুলিতে স্নাতক স্তরে প্রথম বর্ষে ভর্তির ক্ষেত্রে প্র্যাক্টিক্যাল পরীক্ষা নেওয়াকে ঘিরে সমস্যা দেখা দিয়েছে। উপাচার্য সব্যসাচী বসু রায়চৌধুরী এ দিন জানান, আজ, মঙ্গলবার তাঁদের বিভিন্ন বিভাগে অনলাইনে ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে। কিন্তু ভিজ়ুয়াল আর্টস এবং ফাইন আর্টসে আবেদনকারীরা প্র্যাক্টিক্যাল পরীক্ষা কী ভাবে দেবেন, সেই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া যায়নি। উচ্চ মাধ্যমিকে ভাল ফল করলেও ছাত্রছাত্রীরা এ-সব ক্ষেত্রে মুনশিয়ানার প্রমাণ দিতে না-পারলে ভর্তি নেওয়া যায় না। ‘‘আমরা কবে পরীক্ষা নিতে পারব, আমাদের ওয়েবসাইটে যথাসময়ে তা জানিয়ে দেওয়া হবে,’’ বলেন উপাচার্য। এ দিকে, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক স্তরে কলা ও বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে শুক্রবার।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন