• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

স্বাস্থ্যপরীক্ষা রাজ্যের সব জলের ট্যাঙ্কেরই

overhead water tank
ছবি: সংগৃহীত।

মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়ার পরে শুধু কলকাতা নয়, সারা রাজ্যেরই সব সেতু নিয়ে সমীক্ষা শুরু হয়েছিল। বাঁকুড়ায় ওভারহেড জলের ট্যাঙ্ক হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ার পরে এ বার সব ওভারহেড ট্যাঙ্কের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় নামছে রাজ্য সরকার। কয়েক দিন আগে বাঁকুড়ায় ওই ঘটনার পরে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতর। এই নিয়ে দফতরের ইঞ্জিনিয়ারদের প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র।

২২ জানুয়ারি বাঁকুড়ার সারেঙ্গার ফতেডাঙা গ্রামে মাঠের মধ্যে ওই ওভারহেড জলের ট্যাঙ্কে ফাটল দেখা দেয়। কিছু পরেই ভেঙে পড়ে জলাধার। তৈরির চার বছর এবং চালু হওয়ার তিন বছরের মধ্যে কেন সেটি ভেঙে পড়ল, তার তদন্তে কমিটি গড়ার নির্দেশ দেন মন্ত্রী। মঙ্গলবার বাঁকুড়ার প্রশাসনিক বৈঠকে ট্যাঙ্ক ভেঙে পড়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

সৌমোনবাবু বুধবার জানান, রাজ্য জুড়ে জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের পাঁচ হাজারের বেশি ওভারহেড জলের ট্যাঙ্ক আছে। দফতরের এগ্‌জ়িকিউটিভ থেকে জুনিয়র স্তরের ইঞ্জিনিয়ারদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, সেগুলি স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে রিপোর্ট দিতে হবে। যদি সেই রিপোর্টে দফতর সন্তুষ্ট না-হয়, তা হলে খড়্গপুর আইআইটি, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় এবং আইআইইএসটি-শিবপুরের বিশেষজ্ঞদের দিয়ে পুনরায় ওই সব ওভারহেড জলের ট্যাঙ্কের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হবে।

আরও পড়ুন: নাগরিকত্ব আলোচনা, অনুমতি বাতিল আইআইটির

বিভিন্ন শহরাঞ্চলে পুরসভার যে-সব ওভারহেড জলের ট্যাঙ্ক রয়েছে, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সেগুলিরও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে বলা হচ্ছে বলে জানান সৌমেনবাবু। তিনি বলেন, ‘‘পুরসভা, কেএমডিএ— সকলকেই বলেছি। যদি আমাদের বিশেষজ্ঞ দিয়ে সহযোগিতা করতে হয়, তা-ও করা হবে।’’    

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন