• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মা-মেয়েকেও ঘুমের ওষুধ, আত্মহত্যা মহিলার

dead body
প্রতীকী ছবি।

শিশুকন্যাকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে মা-মেয়ে মিলে আত্মহত্যার চেষ্টা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাঁশদ্রোণী থানা এলাকার বোড়ালে এই ঘটনায় এক মহিলার মৃত্যু হয়েছে। 

পুলিশ সূত্রের খবর, বোড়ালের বাসিন্দা এক মহিলা প্রথমে নিজের মেয়েকে ঘুমের ওষুধ খাওয়ান। পরে নিজে ও মা মিলে ওষুধ খান। ঘটনায় মারা যান মহিলা। বেঁচে গিয়েছেন তাঁর মা ও মেয়ে। বুধবার সন্ধ্যায় মৃতার মা বাঁশদ্রোণী থানায় এক যুবকের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ আনেন। পুলিশ রাতে ওই যুবককে গ্রেফতার করে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, বছর দুই হল মহিলার বিবাহ-বিচ্ছেদ হয়েছে। তিনি নিজে হোটেল ম্যানেজমেন্ট পাশ করলেও আপাতত চাকরি নেই। বিবাহ-বিচ্ছেদের পরে বেহালার এক যুবকের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তৈরি হয়। সেই যুবক নিজেকে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার অফিসার বলে দাবি করত। 

আরও পড়ুনহোম কোয়রান্টিনে জ্বর, হাসপাতালে ভর্তি করা হল দমকল মন্ত্রীকে

আরও পড়ুনকরোনায় অভাব তীব্র, আড়াই মাসের শিশুকন্যা বিক্রির নালিশ ঘাটালে

অভিযোগ, সম্পর্ক তৈরির পর থেকে যুবকটি মহিলাকে ব্ল্যাকমেল করে জমানো টাকা হাতিয়ে নেয়। মহিলার বিয়ের যে সব গয়না ছিল, সেগুলিও নিয়ে নিয়েছিল সে। বোড়াল শ্মশানের উল্টো দিকের যে ফ্ল্যাটে তাঁরা থাকেন, সেটিও নিজের নামে ওই ব্যক্তি লিখিয়ে নেয় বলে অভিযোগ। অভিযোগ, লকডাউনের আগে মাত্র  ৮ হাজার টাকা মহিলার মায়ের অ্যাকাউন্টে রেখেছিল ওই ব্যক্তি। 

লকডাউন চলাকালীন সেই টাকা শেষ হয়ে যায়। অভিযোগ, মহিলা এর পরে টাকা চাইলে তাঁকে সাহায্য করতে রাজি হয়নি অভিযুক্ত যুবক। একে চাকরি নেই, টাকাও শেষ। সব মিলিয়ে চিন্তা, অবসাদ থেকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মহিলা ঠিক করেন মা ও মেয়েকে নিয়ে তিনি আত্মঘাতী হবেন। কিন্তু ওষুধ খাওয়ার পরে ছ’বছরের মেয়ের কান্না আর চিৎকার শুনে পড়শিরা এসে দেখেন, চারতলা বাড়ির দোতলার ফ্ল্যাটের ঘরের মেঝেতে মহিলা ও তাঁর মা পড়ে রয়েছেন। তাঁরাই উদ্ধার করে তিন জনকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মঙ্গলবার রাতেই মহিলা মারা যান। বুধবার সকালে মহিলার মা ও মেয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরেন এবং সন্ধ্যায় থানায় অভিযোগ জানান মা।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন