দক্ষিণবঙ্গে বর্ষা ঢুকেছে চার দিন আগেই। কিন্তু বিক্ষিপ্ত কিছু জায়গায় মাঝেমধ্যে যে বৃষ্টি হচ্ছে, তাতে অস্বস্তি কমা দূরে থাক, বেড়ে চলেছে। আলিপুর হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস, আগামী দিন তিনেকের মধ্যে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে ভাল ভাবে বৃষ্টি নামার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। এমনকি তাপমাত্রাও বাড়বে আরও ২ থেকে ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস— জানাচ্ছেন আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা গণেশকুমার দাস। ফলে ভরা আষাঢ়েও বাড়বে অস্বস্তির মাত্রা।

আষাঢ় মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ চলছে। দক্ষিণবঙ্গের সব জেলাতেই আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি প্রবল। এমনিতেই দক্ষিণবঙ্গে প্রায় দু’সপ্তাহ পিছিয়ে বর্ষা ঢুকেছে। সাধারণত জুনের ৮ তারিখ নাগাদ বর্ষা ঢুকে যায়। এ বার ঢুকেছে ২১ জুন। গত ১৪ বছরে এত দেরিতে বর্ষা ঢোকেনি দক্ষিণবঙ্গে। অনেক দেরিতে হলেও, অবশেষে বর্ষা এসে গিয়েছে খবর পেয়েই উল্লসিত হয়েছিলেন মানুষ। কিন্তু বৃষ্টি কোথায়! এখনও হাপিত্যেশেই বসে রয়েছে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের সব জেলা।

মঙ্গলবার কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশি। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬.২, এ ক্ষেত্রেও স্বাভাবিকের থেকে প্রায় ৩ ডিগ্রি বেশি। আর্দ্রতা সূচক (সর্বনিম্ন) ৫৮ শতাংশের কাছাকাছি। সর্বোচ্চ সূচক পৌঁছে গিয়েছে ৯০-এর দোরগোরায়।

আরও পড়ুন, প্রাথমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে ইন্টার্ন শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে সংশয়ে শিক্ষামন্ত্রী

দক্ষিণবঙ্গে গরম বাড়লেও, উত্তরবঙ্গে কিন্তু গত কয়েক দিন ধরেই ভালই বৃষ্টি হয়ে চলেছে। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে— কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং এবং কালিম্পঙে এ রকম বৃষ্টি চলবে আরও কয়েকদিন।

আরও পড়ুন, কাটমানি: জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে তদন্ত করবে পুলিশ, জানাল নবান্ন

এমনিতে সারা দেশেই এ বছর এখনও পর্যন্ত বৃষ্টির ঘাটতি ভালই, প্রায় ৩৭ শতাংশ। কিন্তু দক্ষিণবঙ্গে এই ঘাটতি অনেক বেশি। কলকাতায় জুন মাসে ঘাটতি ৬১ শতাংশ। বড় ঘাটতি রয়েছে মুর্শিদাবাদ (৮৬ শতাংশ), উত্তর ২৪ পরগনা (৬৯ শতাংশ), হাওড়া (৬৮ শতাংশ), বীরভূম (৭৩ শতাংশ), মালদহে (৬৩  শতাংশ)। এ ছাড়া বর্ধমান, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হুগলি, নদিয়া, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, দুই মেদিনীপুরে বৃষ্টিপাতের ঘাটতি ৪০ থেকে ৫৫  শতাংশের মধ্যে।

(দুই চব্বিশ পরগনা, হাওড়া ও হুগলি, নদিয়া-মুর্শিদাবাদ, সহ দক্ষিণবঙ্গের খবর, পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলা খবর, বাংলার বিভিন্ন প্রান্তের খবর পেয়ে জান আমাদের রাজ্য বিভাগে।) 

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।