সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

করোনা: কী করবেন

corona
প্রতীকী ছবি।

উপসর্গ

• মূলত জ্বর, কাশি, সর্দি, গলা খুশখুশ, শ্বাসকষ্ট। হঠাৎ করে ক্লান্তি বেড়ে যাওয়া, নাকে গন্ধ না-পাওয়া, জ্বরের সঙ্গে পেট খারাপ বা পেট খারাপের সঙ্গে শ্বাসকষ্ট। সিওপিডি রোগীর শ্বাসকষ্ট বৃদ্ধি হলেও চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

নমুনা পরীক্ষার উপায়

• সরকারি হাসপাতালের ফিভার ক্লিনিকে দেখান। চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে সরকারি পরিকাঠামোয় নমুনা পরীক্ষা করা যেতে পারে। বেসরকারি হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনেও নমুনা পরীক্ষা করানো যায়। ব্যক্তিগত চিকিৎসক ব্যবস্থাপত্রে লিখে দিলে তার ভিত্তিতে শহরের একটি বেসরকারি ল্যাব বাড়ি থেকে নমুনা সংগ্রহ করছে। সে ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের বেঁধে দেওয়া ২২৫০ টাকার পাশাপাশি অতিরিক্ত ৫০০ টাকা পর্যন্ত খরচ হতে পারে।

পরবর্তী ধাপ

• সরকারি হাসপাতাল, কলকাতা পুরসভা, বেসরকারি হাসপাতাল বা ল্যাবরেটরির মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজ়িটিভ হলে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের ব্যবস্থাপনায় রোগীকে সরকারি কোভিড হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়ে থাকে। হাসপাতালে ভর্তির জন্য পজ়িটিভ রিপোর্টের প্রয়োজন হয়। রোগী চাইলে নিজের ব্যবস্থাপনায় বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হতে পারেন।

মৃদু উপসর্গ-উপসর্গহীন হলে

• চিকিৎসকের সম্মতিক্রমে বাড়িতে পৃথক ঘর, শৌচাগার, ২৪ ঘণ্টার কেয়ারটেকার থাকলে ‘হোম আইসোলেশন’। তার জন্য আক্রান্তকে লিখিত সম্মতি দিতে হবে। কলকাতা পুর এলাকায় আক্রান্তের চিকিৎসা সংক্রান্ত দেখভালের দায়িত্ব নিয়েছেন এমন চিকিৎসকেরও লিখিত অনুমতি প্রয়োজন। এছাড়া, ২৪ ঘণ্টার যে কেয়ারগিভার থাকবেন, তাঁরও সই প্রয়োজন।

আরও পড়ুন: ‘বাড়িয়ে দাও তোমার হাত’-ই এখন ভরসা কোভিড-যুদ্ধে

অন্য রকম পরিস্থিতি

• চিকিৎসকের সম্মতি রয়েছে কিন্তু বাড়িতে পৃথক ঘর-শৌচাগার-২৪ ঘণ্টা দেখাশোনার লোক নেই। তাঁদের জন্য স্বাস্থ্য দফতরের ‘সেফ হাউস’ রয়েছে। বয়স্ক এবং কো-মর্বিড রয়েছে এমন ব্যক্তিরাও ‘সেফ হাউসে’র জন্য আবেদন করতে পারেন। মৃদু উপসর্গ, উপসর্গহীন বয়স্ক এবং কো-মর্বিড যুক্ত আক্রান্তদের জন্য কয়েকটি বেসরকারি হাসপাতালও স্যাটেলাইট ফেসিলিটি সেন্টার বা অবজারভেশন ওয়ার্ড তৈরি করেছে। চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থাকার সুবিধা যুক্ত বেসরকারি হাসপাতালের হোম কেয়ার প্যাকেজও রয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন