রাজ্যের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির পঠনপাঠনের গুণগত মান ও পরিকাঠামো কেমন রয়েছে, তা যাচাই করতে রাজ্য সরকার মনিটরিং কমিটি করবে। বুধবার ‘দ্য স্বামী বিবেকানন্দ ইউনিভার্সিটি বিল, ২০১৯’ আলোচনার সময় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এ কথা জানান। তাঁর প্রতিশ্রুতি, ‘‘মনিটরিং কমিটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির গুণগত মান মূল্যায়ন করে সুপারিশ জানাবে। সেই সুপারিশ মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে। বিধানসভাতেও জানানো হবে।’’ কোনও ভাবেই শিক্ষার গুণগত মান নিয়ে আপস করা হবে না বলে পার্থবাবু জানিয়েছেন।

এ দিন ব্যারাকপুরে স্বামী বিবেকানন্দ বিশ্ববিদ্যালয় বিল পাশ হওয়ায় সেই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১১। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে দূরশিক্ষার সুযোগ থাকবে বলে বিলে বলা হয়েছিল। বিরোধীরা তা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় শিক্ষামন্ত্রী জানিয়ে দেন, ‘‘আমরা কোনও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে দূরশিক্ষায় পড়ানোর অনুমতি দিতে পারি না। এ বিষয়ে সভাতেই সংশোধনী আনা হচ্ছে।’’ সঙ্গে সঙ্গে সংশোধনী এনে দূরশিক্ষার বিষয়টি বিল থেকে বাদ দেওয়ার সংশোধনী আনা হয়।

একই সঙ্গে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির বেতন কাঠামো কেমন হবে, তা নিয়ে বিলে স্পষ্ট নির্দেশিকা নেই বলে বিরোধীরা অভিযোগ করে। তখন পার্থবাবু বলেন, ‘‘কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং স্কুলের বেতন কাঠামো যাতে কোনও ভাবেই মাত্রাতিরিক্ত না হয়, সে দিকে সরকারের নজর আছে। বেতন কাঠামো কী হবে, তার নির্দিষ্ট রূপরেখা আছে।’’ এর পরেই মন্ত্রী বলেন, ‘‘সরকার পোষিত স্কুলে বছরে উন্নয়ন খাতে ২৪৫ টাকা নেওয়ার কথা। কিন্তু অনেক স্কুলেই বিভিন্ন খাতের নাম দেখিয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ পাচ্ছি। কারা নিচ্ছে তা ধরা হবে।’’