Advertisement
২৪ জুন ২০২৪

স্থানান্তরে ক্ষুব্ধ প্ল্যান্টের কর্মীরা, কারখানার গেটে প্রতিবাদ

দীর্ঘদিন ধরে লোকসানে চলার পরে ২০১৭ সালের শেষ দিকে রাজ্য মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত নেয়, ডিপিএলের বিদ্যুৎ উৎপাদন, বণ্টন ও সংবহন বিভাগ মিশিয়ে দেওয়া হবে অন্য বিদ্যুৎ সংস্থার সঙ্গে।

দুই সংগঠনের সভা। নিজস্ব চিত্র

দুই সংগঠনের সভা। নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
দুর্গাপুর শেষ আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২০১৯ ০০:৩৫
Share: Save:

রাজ্য সরকারের সংস্থা ‘দুর্গাপুর প্রজেক্টস লিমিটেড’-এর (ডিপিএল) বন্ধ কোকআভেন প্ল্যান্টের কর্মীদের জেলাশাসকের দফতরে সাধারণ কাজের জন্য স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। প্রতিবাদে সোমবার ডিপিএলের প্রধান গেটে যৌথ ভাবে প্রতিবাদ সভা করল সিটু এবং আইএনটিইউসি। সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে কর্তৃপক্ষের কাছে স্মারকলিপিও দেওয়া হয়।

দীর্ঘদিন ধরে লোকসানে চলার পরে ২০১৭ সালের শেষ দিকে রাজ্য মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত নেয়, ডিপিএলের বিদ্যুৎ উৎপাদন, বণ্টন ও সংবহন বিভাগ মিশিয়ে দেওয়া হবে অন্য বিদ্যুৎ সংস্থার সঙ্গে। গত ১ জানুয়ারি থেকে সেই প্রস্তাব কার্যকরের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সে দিন থেকে নামে ডিপিএল থাকলেও মালিকানা চলে গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ বিদ্যুৎ উন্নয়ন নিগমের হাতে। কোকআভেন প্ল্যান্টটি বন্ধ হয়ে গিয়েছে ২০১৫ সালের জুনে।

সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, ডিপিএলে বাড়তি কর্মীর সংখ্যা কমানোর উদ্যোগ শুরু হয়েছে। গত এপ্রিলে ভোটের প্রচারে দুর্গাপুরে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আশ্বস্ত করে যান, কোনও কর্মীর চাকরি যাবে না। প্রশাসন সূত্রের খবর, বেশি বয়সী কর্মীদের জন্য স্বেচ্ছাবসর প্রকল্প, বিদ্যুৎ উৎপাদনের সঙ্গে যুক্ত উদ্বৃত্ত কর্মীদের রাজ্যের অন্য বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে স্থানান্তর এবং কোকআভেন প্ল্যান্টের কর্মী-আধিকারিকদের জেলাশাসকের অধীনে বিভিন্ন দফতরে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ডিপিএল সূত্রে জানা যায়, আজ, মঙ্গলবার কোকআভেন প্ল্যান্টের কর্মীদের বদলি সংক্রান্ত নির্দেশিকা প্রকাশ হওয়ার কথা। বদলি হলেও বেতনক্রম-সহ অন্য সুযোগ-সুবিধা একই থাকবে বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে। কোকআভেন প্ল্যান্টের কর্মীদের দাবি, প্রথম থেকে প্ল্যান্টে কাজ করে আসছেন তাঁরা। এখন কী ভাবে প্রশাসনের কোনও বিভাগে কাজ করবেন, বুঝে উঠতে পারছেন না। তাঁদের আরও দাবি, ডিপিএলের কোনও বিভাগে তাঁদের বদলি করা হলে মানিয়ে নিতে সুবিধা হত। অনেকে জানান, তাঁরা ডিপিএল কলোনিতে থাকেন। ছেলেমেয়েরা এখানেই পড়াশোনা করে। অন্যত্র বদলি করা হলে সমস্যায় পড়তে হবে।

ডিপিএলের আইএনটিইউসি নেতা উমাপদ দাস বলেন, ‘‘ডিপিএল কর্তৃপক্ষের কাছে সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের দাবিতে স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে।’’ ডিপিএলের জনসংযোগ আধিকারিক স্বাগতা মিত্র বলেন, ‘‘কোকআভেন প্ল্যান্টের কর্মী-আধিকারিকদের অন্যত্র বদলির সিদ্ধান্ত ২০১৮ সালের নভেম্বরে রাজ্য সরকারের ক্যাবিনেট মিটিংয়ে নেওয়া হয়েছে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

DPL Workers CITU INTUC Coke Oven Plant
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE