Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

কী হবে আজ, নজর বাংলার

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৯ এপ্রিল ২০১৮ ০৫:৫৯
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

এক সপ্তাহ ধরে টানা লঙ্কাকাণ্ড দেখে এসেছে বাংলা! পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়ন জমা দেওয়ার নির্ধারিত শেষ দিন আজ, সোমবার। উত্তেজনা তাই তুঙ্গে!

ভোটের পর্যবেক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকে শনিবারই রাজ্য নির্বাচন কমিশনার মন্তব্যে করেছেন, নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা চলছে! মনোনয়ন-পর্বে রাজ্য প্রশাসন এবং কমিশনের যা ভূমিকা, তাতে বিরোধীরা আশা করছে না যে, শেষ দিনে ‘নৈরাজ্য’ বন্ধ হবে! তাই শেষ চেষ্টা চালাতে চায় তারা। তৈরি তৃণমূলও। হিসেবমতো, শেষ দিনে অন্তত হাজার পঁচিশ গ্রাম পঞ্চায়েত আসনে প্রার্থী দিতে হবে বিরোধীদের। যা অসম্ভব বলেই মনে করছে শাসক শিবির।

এমতাবস্থায় আজই সুপ্রিম কোর্টে বিজেপির দায়ের করা পঞ্চায়েত মামলার ফয়সালা হওয়ার কথা। মনোনয়ন ও প্রচারের সময় বাড়ানো এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোটে দাবি জানিয়েছে বিজেপি। কেন্দ্রীয় সরকার মামলার শুনানিতে জানিয়ে দিয়েছে, কেন্দ্রীয় বাহিনী দিতে তাদের কোনও আপত্তি নেই। বিজেপির আশা, প্রত্যাহারের জন্য এ বারের বাড়তি সময় কেটে নিয়ে মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময় অন্তত বাড়িয়ে দেবে সর্বোচ্চ আদালত।

Advertisement

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীও আজ কলকাতা হাইকোর্টে ফের অভিযোগ জানাতে যাচ্ছেন। তাঁর অভিযোগ, প্রার্থীদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে পুলিশ সুপারদের, এই মর্মে অন্তর্বর্তী আদেশ আদালত দেওয়ার পরেও প্রশাসন তা মানেনি। মুর্শিদাবাদের কান্দিতে অধীরবাবুর মিছিলেই হামলা হয়েছে, বাঁকুড়ায় আক্রমণ হয়েছে বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তীর মিছিলে। অধীরবাবুর বক্তব্য, ‘‘কান্দি থানায় পুলিশ আমায় ঢুকতে বললেও আমি যাইনি। কারণ, আমার সঙ্গে উত্তেজিত কংগ্রেস কর্মীরা থানায় ঢুকে কোনও ঘটনা ঘটালে তাঁদের বিরুদ্ধে আবার মামলা দেওয়া হতো! বিরোধীরা আর কত দায়িত্বজ্ঞান দেখাবে?’’

মনোনয়ন শেষ হওয়ার আগে পুলিশকে ফের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও। খড়গপুরে সেই সঙ্গেই তিনি বলেছেন, “তৃণমূলের ভাষা আমরা জানি। সেই ভাষায় জবাব দিচ্ছি! সাহস থাকলে ওরা ঘোমটা খুলে আসুক। আমরা জানি, কী ভাবে পেটাতে হয়!’’

মহকুমাশাসকের দফতরে মনোনয়ন জমার ব্যবস্থা করেও অবস্থা বিশেষ বদলায়নি বলে সরব বিরোধীরা। মনোনয়নে রবিবার বিরতি ছিল বলে দিনটা তুলনায় ছিল ঘটনাবিহীন। তবু তার মধ্যেও জঙ্গিপুরের সম্মতিনগর বাজারে ভরদুপুরে বোমা পড়েছে সিপিএমের এরিয়া কমিটি দফতরে। অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচেছেন চার সিপিএম কর্মী। আর বারুইপুরের বৃন্দাখালিতে তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধানের চালানো গুলিতে দলীয় কর্মী আয়ুব লস্কর আহত হয়েছেন বলে সিপিএমের অভিযোগ। তার প্রেক্ষিতে সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রের মন্তব্য, ‘‘গণতন্ত্রের বিরুদ্ধেই যুদ্ধ ঘোষণা হয়েছে! প্রতিবাদ এবং প্রতিরোধই একমাত্র রাস্তা।’’

সিপিএমের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা সম্পাদক শমীক লাহিড়ী জানিয়েছেন, মনোনয়ন দিতে না পারা প্রার্থীদের নিয়ে তাঁরা আজ কমিশনে ধর্না দেবেন। আর বিজেপির মতোই সিপিএমের আইনজীবী-নেতা বিকাশ ভট্টাচার্যের আহ্বান, ‘‘স্বাধীন ভাবে মনোনয়ন জমা দিন। বাধা পেলে প্রতিরোধ করুন।’’ তা হলে তো শাসক পক্ষ বিরোধীদের বিরুদ্ধে মামলা দেবে? বিকাশবাবুর জবাব, সেই ভয়ে বসে থাকলে চলবে না!

তৃণমূল নেতৃত্ব অবশ্য এ সবে গুরুত্ব দিচ্ছেন না। দলের এক রাজ্য নেতার কথায়, ‘‘আমাদের যে সব আসনে বাকি আছে, মনোনয়ন দেওয়া হবে। বিরোধীরা আগে লোক খুঁজুক!’’

আরও পড়ুন

Advertisement