×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৩ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

কী ভাবে আসন ভাগ, সূত্র-কথা জোট শিবিরে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ০৪:৫৪
ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

চলতি মাসের মধ্যেই জোট-প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করে ফেলার বার্তা দিয়েছে এআইসিসি। তার পরেই আসন-রফার প্রসঙ্গে বামেদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করে দিল প্রদেশ কংগ্রেস। কলকাতার উপকণ্ঠে শুক্রবার রাতে গোপনে বৈঠক সেরে নিলেন প্রদেশ কংগ্রেস ও সিপিএমের শীর্ষ নেতৃত্ব। সূত্রের খবর, আসনের সংখ্যা নিয়ে সেখানে কোনও আলোচনা হয়নি। কোন এলাকায় কার শক্তি বেশি, তা বুঝেই আসন-রফা করা হবে, মোটামুটি এই সূত্রে পৌঁছেছে দু’পক্ষ। ঠিক হয়েছে, আসনের প্রাথমিক সংখ্যা নিয়ে কাল, রবিবার প্রদেশ কংগ্রেস ও রাজ্য বামফ্রন্ট নেতৃত্বের বৈঠক হবে।

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর সঙ্গে এ দিন ফোনে কথা হয় সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রের। রাতে দলীয় সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্যকে সঙ্গে নিয়ে সূর্যবাবু ও বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুর সঙ্গে আলোচনা করতে যান অধীরবাবু। বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নানেরও এই অভিযানে শরিক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কৃষি আইনের প্রতিবাদে রাজভবনে দরবার করতে গিয়ে একটি ঘটনায় ক্ষুব্ধ মান্নান দ্রুত তাঁর নিজের নির্বাচনী এলাকায় ফিরে যাওয়ায় তা আর সম্ভব হয়নি। সূর্যবাবুদের মনোভাব বুঝে আসার পরে আজ, শনিবার বিধান ভবনে প্রদেশ কংগ্রেসের প্রথম সারির নেতাদের নিয়ে আলোচনায় বসছেন অধীরবাবু। ফের বামেদের সঙ্গে বৈঠকের জন্যই তিনি শহরে থেকে যাচ্ছেন বলে সূত্রের খবর।

শুধু সংখ্যা বাড়ানোর খাতিরে আসন দাবি করে কোনও পক্ষেরই বিশেষ লাভ নেই, এই মর্মেই এ দিন প্রাথমিক কথা হয়েছে জোট-শিবিরের ঘরোয়া বৈঠকে। সেই হিসেবেই জেলা ধরে ধরে যে সব এলাকায় কংগ্রেসের সাংগঠনিক হাল তুলনায় ভাল, সেখানে তাদের আসন ছাড়ার কথা বলেছে সিপিএম। আবার নিজেদের ভাগ থেকে অন্যান্য সহযোগী দলকে সিপিএম আসন ছাড়তে চায়। বৈঠকে উপস্থিত এক নেতার কথায়, ‘‘জোটের মধ্যে আসনের ভাগাভাগি কী ভাবে হবে, তার একটা প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে। আসন-সংখ্যার হিসেব দ্রুত করে এ বার আমরা বাকি প্রক্রিয়া এগিয়ে নিয়ে যাব।’’ প্রসঙ্গত, বিহারের নির্বাচনের অভিজ্ঞতার পরে এআইসিসি-ও চায়, ‘ইতিবাচক’ আসনে লড়ে ‘স্ট্রাইক রেট-এর দিকে নজর দিক কংগ্রেস।

Advertisement

দ্বিপাক্ষিক আলোচনার আগে কলকাতায় পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির (পিএসি) বৈঠক শেষ করে বৃহস্পতিবার রাতে অনলাইন বৈঠকে দলের জেলা সভাপতিদের অধীরবাবু বলেছেন, জোটের জন্য আসনের হিসেব দ্রুত হাতে পাওয়া দরকার। কিছু জেলার নেতারা ‘অস্বাভাবিক’ আসনের দাবিও করছেন বলে কংগ্রেস সূত্রের খবর। তবে তার মধ্যে থেকে ঝাড়াই-বাছাই করে বামেদের সঙ্গে তালিকা নিয়ে কথা বলবেন প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব।

Advertisement