×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৫ মে ২০২১ ই-পেপার

সামান্য কমল সংক্রমণ, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৪৯, কলকাতাতেই প্রাণ গেল ১৯ জনের

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১০ ডিসেম্বর ২০২০ ২৩:০১
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

প্রতিষেধকের গুণমান নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে। তবে নোভেল করোনাভাইরাসের প্রকোপে সংক্রমণ বৃদ্ধি এখনও লাগামছাড়া। তুলনামূলক কম হলেও বাংলায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজারের আশেপাশেই ঘোরাঘুরি করছে। তবে প্রতিদিন প্রায় একই সংখ্যক মানুষ করোনার প্রকোপ থেকে সেরেও উঠছেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলায় নতুন করে কোভিড-১৯ ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ২ হাজার ৮০১ জন, গতকালের চেয়ে ১৫৫ কম। সবমিলিয়ে এখনও পর্যন্ত ৫ লক্ষ ১৩ হাজার ৭৫২ জন কোভিডে সংক্রমিত হয়েছেন। এই মুহূর্তে রাজ্যে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২৩ হাজার ৪৫১।

Advertisement

করোনার প্রকোপে এ দিন ৪৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এর মধ্যে কলকাতাতেই প্রাণ গিয়েছে ১৯ জনের। ১৩ জন করোনা রোগী প্রাণ হারিয়েছেন উত্তর ২৪ পরগনায়। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় করোনার প্রকোপে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জন প্রাণ হারিয়েছেন। হাওড়ায় এ দিন মারা গিয়েছেন ৪ জন করোনা রোগী। সবমিলিয়ে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে ৮ হাজার ৯১৬ জন করোনা মারা গিয়েছেন।

করোনার প্রকোপে এ দিন ৪৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এর মধ্যে কলকাতাতেই প্রাণ গিয়েছে ১৯ জনের। ১৩ জন করোনা রোগী প্রাণ হারিয়েছেন উত্তর ২৪ পরগনায়। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় করোনার প্রকোপে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জন প্রাণ হারিয়েছেন। হাওড়ায় এ দিন মারা গিয়েছেন ৪ জন করোনা রোগী। সবমিলিয়ে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে ৮ হাজার ৯১৬ জন করোনা মারা গিয়েছেন।

(গ্রাফের উপর হোভার বা টাচ করলে প্রত্যেক দিনের পরিসংখ্যান দেখতে পাবেন।)

এ ছাড়াও গত ২৪ ঘণ্টায়, নদিয়ায় ৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন। পশ্চিম বর্ধমান, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম মেদিনীপুর, মালদহ এবং দক্ষিণ দিনাজপুরে ১ জন করে রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

তবে সংক্রমণ এবং মৃত্যু অব্যাহত থাকলেও রাজ্যে প্রতিদিন বহু রোগীই সুস্থ হয়ে উঠছেন। মোট আক্রান্তের মধ্যে এখনও পর্যন্ত ৪ লক্ষ ৮১ হাজার ৩৮৫ জন রোগীই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ হাজার ৯৫১ জন। এই মুহূর্তে রাজ্যে সুস্থতার হার ৯৩.৭০ শতাংশ।

প্রতি দিন যত সংখ্যক মানুষের কোভিড টেস্ট হয় এবং তার মধ্যে যত শতাংশের রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার বলা হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪২ হাজার ১৫২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে এ দিন সংক্রমিতের সংখ্যা কমায় সংক্রমণের হার সামান্য কমে ৬.৬৪ শতাংশ হয়েছে। গতকাল যা ৬.৬৭ ছিল।

প্রতি দিন যত সংখ্যক মানুষের কোভিড টেস্ট হয় এবং তার মধ্যে যত শতাংশের রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার বলা হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪২ হাজার ১৫২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে এ দিন সংক্রমিতের সংখ্যা কমায় সংক্রমণের হার সামান্য কমে ৬.৬৪ শতাংশ হয়েছে। গতকাল যা ৬.৬৭ ছিল।

আরও পড়ুন: নড্ডার কনভয়ে হামলা গুরুত্ব দিয়ে দেখছে কেন্দ্র, জানালেন শাহ​

মৃত্যুর নিরিখে এই মুহূর্তে কলকাতাই শীর্ষে রয়েছে। করোনার প্রকোপে সবমিলিয়ে এখনও পর্যন্ত ২ হাজার ৭৪২ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে শহরে। তার পরেই রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা। সেখানে মোট মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ১১৪। দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া এবং হুগলিতে এখনও পর্যন্ত যথাক্রমে ৬১৭, ৯২৫ এবং ৪২৪ জন কোভিড রোগী প্রাণ হারিয়েছেন।

সংক্রমণের নিরিখেও কলকাতাই সবচেয়ে এগিয়ে। শহরে এখনও পর্যন্ত ১ লক্ষ ১৪ হাজার ২৩৩ জন কোভিডে সংক্রমিত হয়েছেন। উত্তর ২৪ পরগনায় সংখ্যাটা ১ লক্ষ ৭ হাজার ৭৬৪। এ দিন কলকাতায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৬২২ জন। উত্তর ২৪ পরগনায় ৬১৩ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন।

সংক্রমণের নিরিখেও কলকাতাই সবচেয়ে এগিয়ে। শহরে এখনও পর্যন্ত ১ লক্ষ ১৪ হাজার ২৩৩ জন কোভিডে সংক্রমিত হয়েছেন। উত্তর ২৪ পরগনায় সংখ্যাটা ১ লক্ষ ৭ হাজার ৭৬৪। এ দিন কলকাতায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৬২২ জন। উত্তর ২৪ পরগনায় ৬১৩ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন।

আরও পড়ুন: সাংবিধানিক ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার ইঙ্গিত রাজ্যে, মুখ্যসচিব ও ডিজি-র সঙ্গে বৈঠকের পর টুইট রাজ্যপালের

(জরুরি ঘোষণা: কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের জন্য কয়েকটি বিশেষ হেল্পলাইন চালু করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই হেল্পলাইন নম্বরগুলিতে ফোন করলে অ্যাম্বুল্যান্স বা টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত পরিষেবা নিয়ে সহায়তা মিলবে। পাশাপাশি থাকছে একটি সার্বিক হেল্পলাইন নম্বরও।

• সার্বিক হেল্পলাইন নম্বর: ১৮০০ ৩১৩ ৪৪৪ ২২২
• টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত হেল্পলাইন নম্বর: ০৩৩-২৩৫৭৬০০১
• কোভিড-১৯ আক্রান্তদের অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা সংক্রান্ত হেল্পলাইন নম্বর: ০৩৩-৪০৯০২৯২৯)

Advertisement