Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

গার্ডেনরিচ

শ্রমিক নিয়োগ ঘিরে গোলমাল কারখানায়

নিজস্ব সংবাদদাতা
১৪ মে ২০১৫ ০০:২১
সংঘর্ষে আহত কংগ্রেস সমর্থকেরা। বুধবার। ছবি: বিশ্বনাথ বণিক।

সংঘর্ষে আহত কংগ্রেস সমর্থকেরা। বুধবার। ছবি: বিশ্বনাথ বণিক।

ঠিকাদার সংস্থার অধীনে কাদের শ্রমিকেরা কাজ করবে, তা নিয়ে গোলমালে জড়াল কংগ্রেস এবং তৃণমূল সমর্থিত শ্রমিক সংগঠন। বচসা গড়াল সংঘর্ষে। ইট, রড, লাঠি নিয়ে দু’দলই পরস্পরকে আক্রমণ করলে অল্পবিস্তর জখম হলেন ১০ জন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গেলে ধাক্কাধাক্কি করা হল পুলিশকেও। বুধবার সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে গার্ডেনরিচ শিপবিল্ডার্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের (৬১ পার্ক ইউনিট) কারখানার গেটের কাছে। ঘটনার জেরে কিছুক্ষণের জন্য গার্ডেনরিচ রোডে কিছুক্ষণ যান-চলাচল বন্ধ থাকে।

এই ঘটনায় কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিইউসি-র সদস্যদের মারধরের অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসির বিরুদ্ধে। অভিযোগ, প্রতিবাদে গার্ডেনরিচ থানা ঘেরাও করে কংগ্রেস। পরে দু’পক্ষই একে-অপরের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছে। এ দিন পরিস্থিতি সামলাতে গিয়ে ইটের আঘাতে সামান্য জখম হন এক পুলিশকর্মী। পুলিশের আরও অভিযোগ, স্মারকলিপি দিতে আসা কংগ্রেসকর্মীদের হাতে প্রহৃত হন গার্ডেনরিচ থানার অতিরিক্ত ওসি গোপাল দেবনাথ। তবে এ দিনের ঘটনায় এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি বলে জানায় পুলিশ।

সমস্যার সূত্রপাত অস্থায়ী কর্মীদের নিয়োগ ঘিরে। গার্ডেনরিচ শিপ বিল্ডার্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের (জিআরএসই) কারখানায় বিভিন্ন ঠিকাদার সংস্থা তাদের কাজের জন্য অস্থায়ী কর্মী নিয়োগ করেন। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই সেই নিয়োগ প্রক্রিয়া হয় কারখানার বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের সুপারিশ মেনে। পুলিশ জানায়, এ দিন চার জন নতুন শ্রমিক ‘গেটপাস’ নিয়ে কারখানায় প্রবেশ করার সময়ে কয়েকজন যুবক বাধা দেন। এ নিয়ে প্রথমে শুরু হয় বচসা। পরে তা মারামারিতে গড়ায়। খবর পেয়ে পুলিশের বিশালবাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। কারখানার গেটের ঠিক বাইরে এই গোলমালের জেরে সাময়িক ভাবে গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল।

Advertisement

বন্দর এলাকায় জিআরএসই-এর কংগ্রেসের চারটি ইউনিটের সভাপতি আইএনটিইউসি-র কর্মী সংগঠনের সভাপতি মহম্মদ মোক্তার বলেন, ‘‘অস্থায়ী শ্রমিকদের কাজের বিষয়ে ঠিকাদারের সঙ্গে আমাদের আলোচনা চলছিল অনেক দিন ধরেই। সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হওয়ার আগেই আইএনটিটিইউসি জোর করে ঠিকাদারের কাছ থেকে ‘গেট পাস’ নিয়ে কারখানায় নতুন শ্রমিক ঢোকাচ্ছিল। কারখানার নিরাপত্তাপক্ষীরা তাঁদের ‘গেট পাস’ পাওয়ার ব্যাপারে প্রশ্ন করেন। তাতেই রেগে গিয়ে তৃণমূল কর্মীরা আমাদের সমর্থকদের উপরে হামলা চালায়। তাঁদের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়।’’

অভিযোগ অস্বীকার করে বন্দরের জিআরএসই-এর তৃণমূল কর্মী সংগঠন আইএনটিটিইউসি-র সাধারণ সম্পাদক শামিম আনসারি বলেন, ‘‘ঠিকাদার সংস্থা যে সমস্ত শ্রমিকদের কাজে নিয়োগ করবেন, তাঁদের গেট পাস দেবেন। তার ভিত্তিতেই শ্রমিকেরা কারখানার ভিতরে ঢুকতে পারবেন। সংগঠন জোর করে গেটপাস দিতে পারে না। এমনকী কেড়ে নেওয়াও যায় না। কংগ্রেসের লোকেরাই আমাদের চার শ্রমিককে ঢুকতে বাধা দেন। আমরা যখন প্রতিবাদ করতে থানায় যাই, তখন কংগ্রেস কর্মীরা আমাদের আক্রমণ করেন।’’

কলকাতা বন্দরের ডিসি ইমরান ওয়াহব বলেন, ‘‘গার্ডেনরিচে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থায় ঠিকাদারি সংক্রান্ত বিষয়ে দু’টি শ্রমিক সংগঠনের
মধ্যে অসন্তোষের জেরে মারামারি হয়েছে। পুলিশের হস্তক্ষেপে সমস্যার সমাধান হয়।’’

তবে গার্ডেনরিচ জিআরএসই কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, এ দিনের ঘটনার সঙ্গে কোনও ভাবেই তাঁদের সংস্থা যুক্ত নয়। ঠিকাদার সংস্থা নিয়ম মেনেই তাঁদের কাজের জন্য বহিরাগত কিছু শ্রমিক নিয়োগ করেন। কারখানার শ্রমিক সংগঠনের সুপারিশেই অনেক সময়ে এই শ্রমিক নিয়োগ করা হয়। নিয়ম অনুযায়ী, যাঁরা নিযুক্ত হবেন তাঁদের গেট পাস থাকবে। তা না থাকলে কারখানায় ঢুকতে দেওয়া হবে না।

আরও পড়ুন

Advertisement