Advertisement
০১ ডিসেম্বর ২০২২

বাড়ল রানওয়ের ধারণ-ক্ষমতা

রানওয়ের ধারণ-ক্ষমতা বাড়াতে শহরের আকাশে অবতরণমুখী দু’টি বিমানের মাঝের দূরত্ব কমিয়ে ফেলা হয়েছে।

সুনন্দ ঘোষ
শেষ আপডেট: ০৫ জানুয়ারি ২০১৮ ০২:৩৭
Share: Save:

কলকাতা বিমানবন্দরে বেড়ে গিয়েছে রানওয়ের ধারণ-ক্ষমতা। দিনের যে সব সময়ে বিমান ওঠানামার চাপ সব চেয়ে বেশি থাকে, সেই ‘পিক আওয়ার্স’-এ আগে ঘণ্টায় ৩০টি বিমান ওঠানামা করতে পারত। গত এক সপ্তাহ ধরে সেই সংখ্যাটা বেড়ে ৩৫ হয়েছে। তাই দিনের মূলত চারটি সময়ে কলকাতার আকাশে বিমানের জট এখন অনেকটাই কম।

Advertisement

রানওয়ের ধারণ-ক্ষমতা বাড়াতে শহরের আকাশে অবতরণমুখী দু’টি বিমানের মাঝের দূরত্ব কমিয়ে ফেলা হয়েছে। আগে যা ছিল প্রায় সাড়ে বারো কিলোমিটার, এখন তা দশ কিলোমিটারে নামিয়ে আনা হয়েছে। এক পাইলট, ক্যাপ্টেন সর্বেশ গুপ্তের কথায়, ‘‘আগে কলকাতার মাথায় এসে শুনতে হত, ১৩ বা ১৪ নম্বরে অপেক্ষা করতে হবে। অতগুলো বিমান নামার পরে সুযোগ আসবে। এখন এখানে এসে পাঁচ বা ছয় নম্বর বিমানের পরেই নেমে আসা যাচ্ছে।’’

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের ‘এয়ার ট্র্যাফিক ম্যানেজমেন্ট’-এর জেনারেল ম্যানেজার বরুণকুমার সরকার জানিয়েছেন, সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা, দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দুটো, বিকেল চারটে থেকে সাড়ে ছ’টা এবং রাত ১০টা থেকে ১১টা— দিনের এই সমস্ত সময়ে কলকাতায় সব চেয়ে বেশি বিমান ওঠানামা করে। এত দিন এই সময়েই আকাশে এসে কখনও আধ ঘণ্টারও বেশি অপেক্ষা করতে হচ্ছিল বিমানগুলিকে। বরুণবাবুর কথায়, ‘‘২৯ ডিসেম্বর থেকে দুই বিমানের মাঝের দূরত্ব কমিয়ে ফেলার পরে এক সপ্তাহ কেটে গিয়েছে। আকাশের বিমানজট এখন অনেকটাই কম।’’ তবে এর মাঝেই কখনও সখনও আধ ঘণ্টার মধ্যে ২০টির বেশি বিমান নামার জন্য চলে এলে কিছু ক্ষণ অপেক্ষা করতে হচ্ছে তাদের।

এখন দিনের কিছু সময়ে প্রধান রানওয়ে বন্ধ রেখে রক্ষণাবেক্ষণের কাজ চলছে। সেই সময়ে দ্বিতীয় রানওয়ে দিয়ে বিমান ওঠানামা করছে। বরুণবাবু জানিয়েছেন, প্রধান রানওয়ের মতো দ্বিতীয় রানওয়েতে অত্যাধুনিক যন্ত্র না থাকায় সেখানে ঘণ্টায় ১৫টির বেশি বিমান ওঠানামা করতে পারে না। তাঁর কথায়, ‘‘বেছে বেছে এমন সময়ে প্রধান রানওয়ে বন্ধ রাখার জন্য বলা হচ্ছে, যখন বিমানের চাপ কম।’’

Advertisement

আগামী দিনে প্রধান রানওয়েতে ঘণ্টায় আরও বেশি সংখ্যক বিমান ওঠানামা করতে পারবে বলেও এ দিন আশা প্রকাশ করেছেন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। বলা হয়েছে, প্রধান রানওয়েতে নামার পরে দ্রুত রানওয়ে খালি করে দেওয়ার জন্য আলাদা ট্যাক্সি-বে তৈরি হচ্ছে। তাতে রানওয়েতে নামার পরে খুব কম সময়ের মধ্যে রানওয়ে খালি করে বিমান বেরিয়ে যেতে পারবে। পাশাপাশি, দ্বিতীয় রানওয়ের দৈর্ঘ্য বাড়িয়ে সেখানেও অত্যাধুনিক যন্ত্র বসানোর তোড়জোড় চলছে। এই পরিকাঠামো উন্নয়ন সংক্রান্ত কাজগুলি শেষ হলে কলকাতার দু’টি রানওয়েতেই ঘণ্টায় ৩৫টির বেশি বিমান ওঠানামা করতে পারবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.