Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

খড়্গপুর কলেজ

পরিচালন সমিতি ভেঙে প্রশাসক নিয়োগ জল্পনা

নিজস্ব সংবাদদাতা
খড়্গপুর ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ ০০:১৫

খড়্গপুর কলেজের পরিচালন সমিতি ভেঙে প্রশাসক নিয়োগ করা হল। খড়্গপুরের মহকুমাশাসক সঞ্জয় ভট্টাচার্যকে কলেজের প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কলেজে এই মর্মে নির্দেশিকা এসে পৌঁছেছে।

কলেজ পরিচালন সমিতির সভাপতি তৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা কার্যকরী সভাপতি নির্মল ঘোষকে সরিয়ে প্রশাসক নিয়োগের কারণ নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। এক সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ১৩ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এগ্‌জিকিউটিভ কমিটির বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। খড়্গপুর কলেজে অস্থায়ী কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অনিয়মের অভিযোগের জেরেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে এক
সূত্রে খবর।

গত নভেম্বর মাসে খড়্গপুর কলেজে অস্থায়ী কর্মী নিয়োগ নিয়ে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ ওঠে। নিয়োগের বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছিল শুধুমাত্র কলেজ পরিচালন সমিতির সদস্য তথা শহর তৃণমূলের সভাপতি দেবাশিস চৌধুরীর পত্রিকায়। কলেজে চাকরি পাওয়া ৩৮ জন কর্মীর মধ্যে অধিকাংশই শাসকদলের ঘনিষ্ঠ বলে বিরোধীদের অভিযোগ। কলেজের অধ্যক্ষ বিদ্যুৎ সামন্ত বলেন, “কলেজ পরিচালন সমিতি ভেঙে দিয়ে মহকুমাশাসককে প্রশাসক হিসাবে নিয়োগ করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। এর পিছনে কী কারণ তা আমার জানা নেই।” এ বিষয়ে খড়্গপুরের মহকুমাশাসক সঞ্জয় ভট্টাচার্য বলেন, “বেশ কয়েকটি কলেজে আমি ইতিমধ্যেই প্রশাসক পদে রয়েছি। খড়্গপুর কলেজের কথা আমাকে এখনও পর্যন্ত মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। এর কারণ বলতে পারব না। আগামীদিনে সুষ্ঠুভাবে কলেজ পরিচালনার চেষ্টা করব।”

Advertisement

কলেজে নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ মানতে অবশ্য নারাজ তৃণমূল নেতৃত্ব। দলের জেলা কার্যকরী সভাপতি নির্মলবাবুর দাবি, “নিয়োগে কোনও দুর্নীতি হয়নি। যদি কোনও তৃণমূল কর্মী কাজের সুযোগ পেয়ে থাকেন, তবে তাঁর যোগ্যতা রয়েছে বলেই সুযোগ পেয়েছেন।’’ তাঁর আরও দাবি, ‘‘আদালতও জানিয়েছে, নিয়োগ সঠিক পদ্ধতিতে হয়েছে। তবে এ ভাবে প্রশাসক নিয়োগের কারণ বুঝতে পারছি না।”

আরও পড়ুন

Advertisement