×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

দিল্লিতে অমিত শাহর সঙ্গে সাক্ষাৎ মিহিরের, তৃণমূলকে আক্রমণ ফেসবুকে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কোচবিহার২৮ নভেম্বর ২০২০ ২১:১৪
অমিত শাহর সঙ্গে মিহির গোস্বামী ও নিশীথ প্রামাণিক।

অমিত শাহর সঙ্গে মিহির গোস্বামী ও নিশীথ প্রামাণিক।

জল্পনার অবসান ঘটিয়ে শুক্রবার দিল্লিতে গিয়ে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন কোচবিহার দক্ষিণের বিধায়ক মিহির গোস্বামী। আর শনিবারই দেখা করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে। মিহিরের সঙ্গে ছিলেন কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক। মিহির জানিয়েছেন তিনি অমিতের কাছে উত্তরবঙ্গের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন দাবি দাওয়া জানিয়েছেন।

অনেক দিন থেকেই দলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াচ্ছিলেন তৃণমূল বিধায়ক মিহির। একাধিকবার ফেসবুক পোস্টে দলকে আক্রমণ করেছেন। শনিবার ফের ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ‘আমার বিজেপিতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত মূলত অনাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ। একটি দল ক্রমাগত তোলাবাজি ও চাকরি বা পদ পাইয়ে দেওয়ার জন্য কাটমানি খাওয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত, যেখানে সম্মান শব্দটি অনুপস্থিত, যেখানে মানুষের জন্য কাজ করাটা আসল উদ্দেশ্য নয়, যে দলে অধিকাংশ নেতা দুর্নীতিপরায়ণ হয়েও উপরতলা থেকে প্রশ্রয় পান সেই দলে আমার মতো মানুষের প্রয়োজন নেই’।

পাশাপাশি মিহির জানিয়েছে, পিছিয়ে পড়া উত্তরবঙ্গের জন্য কথা বলার ও কাজ করার সুযোগ পেতে তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। শনিবার অমিতের সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে মিহিরের বক্তব্য, ‘‘একটি সংক্ষিপ্ত পত্রে বাংলাদেশ ও ভুটান সীমান্তের বিবিধ অপরাধমূলক কাজকর্ম নিয়ে মাননীয় অমিত শাহজির দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি।’’

আরও পড়ুন: বিয়ে করতেই হবে, ৪ দিন না খেয়ে প্রেমিকের বাড়িতে ধর্না প্রেমিকার


মিহিরের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর এখন কোচবিহারের রাজনৈতিক মহলে অন্য জল্পনা শুরু হয়েছে। মিহিরের পর জেলার আরও কোনও তৃণমূল নেতা বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন কি না, তা নিয়ে চলছে আলোচনা। সেই জল্পনা বাড়িয়ে নিশীথ শনিবার দিল্লি থেকে আনন্দবাজার ডিজিটালের প্রতিনিধিকে টেলিফোনে বলেন, ‘‘তৃণমূল দলটা ভিতর থেকে দুর্বল হয়ে পড়েছে। খোকলা হয়ে পড়েছে। আরও দু-তিন দিনের মধ্যে আরও বড়সড় কিছু দেখতে পাবেন। তৃণমূলের অনেক বিধায়ক আছেন যাঁরা যোগাযোগ রাখছেন।’’ জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব অবশ্য নিশীথের এই বক্তব্যকে দিবাস্বপ্ন বলেই মনে করছে।

Advertisement
Advertisement