Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৫ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

গৌড়বঙ্গে ক্ষোভ বিএড পড়ুয়াদের

ফের ছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল হল গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়। এ বার কর্তৃপক্ষকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখালেন বিএড কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা। মঙ্গলবার দুপুরে

নিজস্ব সংবাদদাতা
মালদহ ০৫ এপ্রিল ২০১৭ ০২:০৪
ঘেরাও: বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রীদের বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র।

ঘেরাও: বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রীদের বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র।

ফের ছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল হল গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়। এ বার কর্তৃপক্ষকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখালেন বিএড কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা। মঙ্গলবার দুপুরে নির্দিষ্ট কলেজের অধীনে রেজিস্ট্রেশন করানোর দাবিতে বিক্ষোভ দেখান মালদহের অনুমোদন বাতিল হয়ে যাওয়া দু’টি কলেজের শতাধিক পড়ুয়া। যার জেরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয় জুড়ে। কর্তৃপক্ষ জোড়ালো আশ্বাস দিলেও রেজিস্ট্রেশনের বৈধতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বিক্ষোভকারী পড়ুয়ারা।

তাঁদের অভিযোগ, নির্দিষ্ট কলেজের নাম না দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নিজেদের নামেই রেজিস্ট্রেশন দিচ্ছে। যদিও নিয়ম রয়েছে নির্দিষ্ট বিএড কলেজের নামেই রেজিস্ট্রেশন দিতে হবে। ফলে পড়াশোনার পরে তাঁরা শংসাপত্র পেলেও তার বৈধতা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে। তবে ছাত্র-ছাত্রীদের কোনও সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা সমূহের নিয়ামক সনাতন দাস।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নিয়ম মেনে না চলায় গত, ডিসেম্বর মাসে মালদহের বিবেকানন্দ বিএড কলেজ ও বিদ্যাসাগর বিএড কলেজের অনুমোদন বাতিল করা হয়। ফলে কলেজে ভর্তি হওয়া চার শতাধিক পড়ুয়ার ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। সেই সময় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অপর একটি বিএড কলেজে তাঁদের পড়াশোনার ব্যবস্থা করে। তবে পড়ুয়াদের অভিযোগ, নিয়ম অনুসারে বিএড কলেজে প্রতিটি বর্ষে ১০০ জনের বেশি ছাত্র ভর্তি নেওয়া যায় না। তবে এ ক্ষেত্রে এক সঙ্গে ৬০০ জনকে নিয়ে চলছে বিএড কলেজ। যার জন্য পঠনপাঠন ঠিক মতো হচ্ছে না। শুধু তাই নয়, রেজিস্ট্রেশন দেওয়ার ক্ষেত্রে গড়িমসি করছে কর্তৃপক্ষ। যার জেরে এদিন দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা সমূহের নিয়ামক সনাতন দাস, রেজিস্ট্রার অরিজিৎ দাস ও কলেজ সমূহের পরিদর্শক অপূর্ব চক্রবতীকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখানো হয়।

Advertisement

সনাতনবাবু বলেন, বিগত দিনেও একটি বিএড কলেজ নিয়ে সমস্যা তৈরি হয়েছিল জেলাতে। সেই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে রেজিস্ট্রেশন করানো হয়েছে। ফলে ছাত্র-ছাত্রীদের সংশয়ের কোনও বিষয় নেই।

সম্প্রতি নম্বর বৃদ্ধির দাবিতে একাধিক বার ঘেরাও আন্দোলন হয়েছে গৌরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে।

আরও পড়ুন

Advertisement