Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৭ অক্টোবর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

নারায়ণী মুদ্রা পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের হাতে

সোমবার প্রথম দফায় তার মধ্যে বেশ কিছু মুদ্রা তাদের হাতে এসেছে বলে আধিকারিকেরা জানিয়েছেন।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কোচবিহার ১৯ মার্চ ২০১৯ ০৭:০২
Save
Something isn't right! Please refresh.
প্রাচীন: এমন মুদ্রার হস্তান্তর হল সোমবার। নিজস্ব চিত্র

প্রাচীন: এমন মুদ্রার হস্তান্তর হল সোমবার। নিজস্ব চিত্র

Popup Close

পুলিশের হেফাজতে থাকা প্রাচীন মুদ্রা পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের হাতে হস্তান্তর শুরু হল। সর্বেক্ষণ সূত্রে জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকবছর আগে কোচবিহারের বিভিন্ন গ্রামে মাটি খুঁড়তে গিয়ে উদ্ধার হওয়া রাজ আমলের ৫৮টি মুদ্রা পুলিশের হেফাজত থেকে নিজেদের কাছে নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

সোমবার প্রথম দফায় তার মধ্যে বেশ কিছু মুদ্রা তাদের হাতে এসেছে বলে আধিকারিকেরা জানিয়েছেন। পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের এক আধিকারিক সুনীল ঝা বলেন, “১২টি প্রাচীন মুদ্রা এ দিন আমাদের তুলে দেওয়া হয়েছে। বাকিগুলিও দ্রুত মিলবে বলে আশা করা হচ্ছে।” কোচবিহারের পুলিশ সুপার অভিষেক গুপ্ত বলেন, “নিয়ম মেনে প্রাচীন মুদ্রাগুলি হস্তান্তরের কাজ চলছে।”

কোচবিহার হেরিটেজ সোসাইটির সম্পাদক অরুপজ্যোতি মজুমদার বলেন, “সিদ্ধেশ্বরী গ্রামে মাটির নীচ থেকে ২০০৬ সালের সেপ্টেম্বরে ওই মুদ্রাগুলি উদ্ধার হয়েছিল। সবই রাজাদের আমলের নারায়ণী মুদ্রা। পুলিশ ১২টি মুদ্রা হস্তান্তর করেছে। বাকিগুলিও দ্রুত হস্তান্তর হবে বলে আশাকরছি।” পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণ সূত্রে জানা গিয়েছে, কোচবিহার রাজবাড়িতে ওই মুদ্রা সাধারণ দর্শনার্থীদের দেখার সুযোগ দেওয়ার পরিকল্পনা হয়েছে। মুদ্রা গ্যালারি তৈরির কাজও অনেকটা এগিয়েছে। তবে এজন্য বাকি সব মুদ্রাগুলিও দ্রুত হস্তান্তর করা হলে ওই গ্যালারি চালুর কাজে সুবিধে হবে।

Advertisement

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, মহারাজা নরনারায়ণের আমলের (১৫৫৫-১৫৮৭) ওই মুদ্রাগুলি রুপোর তৈরি। গোলাকার। বেশ কিছুদিন ধরে মুদ্রা হস্তান্তরের জন্য জেলা প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছিল সর্বেক্ষণের কর্তারা। জেলাশাসক কৌশিক সাহার সঙ্গেও আলোচনা করেন তাঁরা। পুলিশ সুপার ও পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের আধিকারিকদের উপস্থিতিতে সম্প্রতি ওই মুদ্রা হস্তান্তরের কথাও জানিয়েছিলেন জেলাশাসক।

গবেষকদের একাংশ জানান, কোচবিহারে রাজ শাসন চলার সময়ে ওই নারায়ণী মুদ্রার প্রচলন ছিল। কোচবিহার ছাড়াও অসম, ভুটানে মুদ্রাগুলি ব্যবহার হত। কিছু মুদ্রায় রাজার ছবি, নাম নানা ভাষার হরফে লেখাও রয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement