Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

মুখ্যমন্ত্রীকে এনআরসি নিয়ে ‘খোঁচা’ সূর্যকান্তের

রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রের অভিযোগ, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী এনআরসি নিয়ে দ্বিচারিতা করছেন। বিজেপিকে সুবিধা করে দিচ্ছেন।’’

নিজস্ব প্রতিবেদন
১৭ ডিসেম্বর ২০১৯ ০৩:৫৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
দুর্গাপুরে সিপিএমের মিছিলে সূর্যকান্ত মিশ্র-সহ নেতারা। নিজস্ব চিত্র

দুর্গাপুরে সিপিএমের মিছিলে সূর্যকান্ত মিশ্র-সহ নেতারা। নিজস্ব চিত্র

Popup Close

নতুন নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসি-র বিরোধিতায় সোমবারও মিছিল-বিক্ষোভ হল পশ্চিম বর্ধমানের নানা প্রান্তে। দুর্গাপুরের সিটি সেন্টারে মিছিল করে সিপিএম। ছিলেন দলের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। তাঁর অভিযোগ, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী এনআরসি নিয়ে দ্বিচারিতা করছেন। বিজেপিকে সুবিধা করে দিচ্ছেন।’’

এ দিন বিকেলে দুর্গাপুরের সৃজনী প্রেক্ষাগৃহে দলের বিভিন্ন সংগঠনের বৈঠক শেষে মিছিল করে সিপিএম। সিটি সেন্টার বাসস্ট্যান্ড ঘুরে, মিছিল শেষ হয় একটি শপিংমলের সামনে। সূর্যকান্তবাবু ছাড়া, ছিলেন দলের রাজ্য কমিটির সদস্য আভাস রায়চৌধুরী, জেলা সম্পাদক গৌরাঙ্গ চট্টোপাধ্যায়, সিটুর জেলা সম্পাদক বংশগোপাল চৌধুরী, দলের নেতা পঙ্কজ রায় সরকার, বিপ্রেন্দু চক্রবর্তীরা। সূর্যকান্তবাবু অভিযোগ করেন, মূল্যবৃদ্ধি, বেকারত্ব, বেহাল অর্থনীতির মতো নানা সমস্যা থেকে দৃষ্টি ঘোরাতে বিজেপি নতুন নাগরিকত্ব আইন, এনআরসি নিয়ে মেতেছে। রাজ্যে বিজেপির উত্থানের জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দায়ী করে তাঁর অভিযোগ, ‘‘উনি সারা দেশের মতো এখানেও এনআরসি হওয়ার ব্যবস্থা করছেন। ডিটেনশন ক্যাম্পের জন্য জায়গা দিচ্ছেন।’’

নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতেই করতে হবে জানিয়ে সূর্যকান্তবাবু বলেন, ‘‘এমন কিছু করবেন না, যাতে আপনার শত্রুর হাত শক্তিশালী হয়।’’ এ বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তাঁর আরও অভিযোগ, ‘‘উনি আমাদের জেলে ভরতে, মিথ্যা মামলা দিতে খুব তৎপর। এখন কী করছেন?’’

Advertisement

সূর্যকান্তবাবুর বক্তব্য প্রসঙ্গে তৃণমূলের জেলা সভাপতি জিতেন্দ্র তিওয়ারি দাবি করেন, ‘‘ব্যক্তিগত ভাবে সূর্যকান্তবাবু শ্রদ্ধার পাত্র। কিন্তু রাজনীতিতে অপ্রাসঙ্গিক হয়ে গিয়েছেন। তাঁর মন্তব্যকে কেউ গুরুত্ব দেন না।’’ বিজেপির জেলা সভাপতি লক্ষ্ণণ ঘোড়ুইয়েরও প্রতিক্রিয়া, ‘‘সিপিএম নেতারা কী বলেন, তা নিয়ে মানুষের কোনও মাথাব্যথা নেই।’’ বিজেপি সাংসদ সুরেন্দ্র সিংহ অহলুওয়ালিয়া দাবি করেন, ‘‘লোকসভা ও রাজ্যসভায় অমিত শাহ স্পষ্ট করে বলেছেন। তা সত্ত্বেও বাড়িতে-বাড়িতে ঢুকে ভয় দেখানো, ভুল বোঝানো হচ্ছে। তার জেরেই এই অশান্তি। এ সব হওয়া উচিত নয়।’’

এ দিন আসানসোলে নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় মিছিল করে তৃণমূল। আশ্রম মোড় এলাকা থেকে ঊষাগ্রাম পর্যন্ত ওই মিছিলে ছিলেন আসানসোল পুরসভার আইনি পরামর্শদাতা রবিউল ইসলাম। মিছিলের জেরে জিটি রোডে বেশ কিছুক্ষণ যান চলাচল থমকে যায়। দুর্ভোগে পড়েন যাত্রীরা। তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নেতৃত্বে অণ্ডালের খান্দরা কলেজ থেকে একটি মিছিল হয়। ছিলেন সংগঠনের জেলা সভাপতি তথা অণ্ডাল পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি কৌশিক মণ্ডল, যুব তৃণমূলের অণ্ডাল ব্লক সভাপতি পার্থ দেওয়াসি।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement