×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৮ মে ২০২১ ই-পেপার

বিধানসভা ভোটে ডোমজুড় থেকে জিতে দেখাক রাজীব, চ্যালেঞ্জ কল্যাণের

নিজস্ব সংবাদদাতা
শ্রীরামপুর ২২ জানুয়ারি ২০২১ ২০:৩৫
ডানকুনিতে কল্যাণ বন্দ্য়োপাধ্য়ায়।

ডানকুনিতে কল্যাণ বন্দ্য়োপাধ্য়ায়।
নিজস্ব চিত্র।

রাজভবনে গিয়ে রাজ্য মন্ত্রিসভা থেকে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ইস্তফা দেওয়ার পরেই তাঁর বিরুদ্ধে সরব হলেন শ্রীরামপুরের তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার বিকেলে কল্যাণ বলেন, ‘‘রাজীব যেন ডোমজুড়েই দাঁড়ায়। বুঝিয়ে দেব।’’
হুগলির ডানকুনিতে একটি কর্মসূচিতে কল্যাণ বলেন, ‘‘আমি আপনাদের মাধ্যমে বলছি, অনেক সুর-বেসুর গান হয়েছে, রাজীব বন্দোপাধ্যায় যদি দল ছেড়ে অন্য দলে যায় ও যেন ডোমজুড়েই দাঁড়ায়। বুঝিয়ে দেব।’’
সেই সঙ্গে শ্রীরামপুরের সাংসদ কটাক্ষ, ‘‘একটা শ্যামা সংগীত আছে, ‘মা তোর কত রং দেখব তুই বল’। তা সেই রং দেখতে দেখতে এলাম রাজীব পদত্যাগ করেছে। ভালো কথা। যে যত তাড়াতাড়ি চলে যেতে চায়, যাক না। মুক্তি, একটু মুক্তির নিঃশ্বাস চাই। সুর-অসুর -বেসুর জানি না। শুধু একটাই সুর, মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সুর। বাকি যারা যেতে চায় তাড়াতাড়ি যাক না। কী দরকার, অমিত শাহের সভার জন্য? বড় স্টেজ চাই নাকি? মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ছবি দেখে সকলে জিতেছে। আমিও জিতেছি। এখন বললে হবে না কি, আমি হনু হয়ে গেলাম! এবার ভোট দাঁড়িয়ে জিতে দেখাক। কাঁথির মেজো বাবুও দেখাক আর উলুবেড়িয়ার ভাইপোও দেখাক।’’
প্রসঙ্গত, শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল ছাড়ার পরেও একই ভাবে তাঁকে নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্র থেকে দাঁড়ানোর ‘চ্যালেঞ্জ’ ছুড়েছিলেন কল্যাণ। কল্যাণের লোকসভা কেন্দ্র শ্রীরামপুরেরই অন্তর্গত রাজীবের বিধানসভা কেন্দ্র ডোমজুড়। গত লোকসভা ভোটে ডোমজুড় থেকে বিপুল ব্যবধানে এগিয়ে ছিলেন তিনি।

Advertisement
Advertisement