Advertisement
০১ ডিসেম্বর ২০২২
Weather News

নবমীতে ভিজল দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি-সহ বিভিন্ন জেলা, দশমীতেও উত্তরে বৃষ্টির পূর্বাভাস

ঝিরঝিরে বৃষ্টিতে অষ্টমী কাটলেও নবমীর সকাল থেকেই দার্জিলিঙের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন। মঙ্গলবার দুপুর থেকে ভারী বৃষ্টি শুরু হয় পাহাড়-সহ সমতল জুড়ে। অবিরাম বৃষ্টি চলতেই থাকে।

দার্জিলিঙে মুষলধারায় বৃষ্টিতে মাটি পুজোর আনন্দ।

দার্জিলিঙে মুষলধারায় বৃষ্টিতে মাটি পুজোর আনন্দ। —নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৪ অক্টোবর ২০২২ ১৭:০৫
Share: Save:

কোথাও ঝিরঝিরে, কোথাও বা মুষলধারে বৃষ্টি। নবমীতে উত্তর এবং দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায় দুর্গাপুজোর আনন্দ মাটি করল বৃষ্টি। এক দিকে, উত্তরের দার্জিলিং এবং জলপাইগু়ড়ি-সহ কয়েকটি জেলায় ভারী বৃষ্টিতে জল থইথই হল মণ্ডপ। অন্য দিকে, পশ্চিম মেদিনীপুর বা মুর্শিদাবাদের মতো দক্ষিণের জেলায় ঘোরাঘুরিতে বাধ সাধল বৃষ্টি। নবমীর মতো দুর্গোৎসবের শেষ দিনেই বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

Advertisement

মঙ্গলবার কলকাতার কয়েকটি প্রান্তে কয়েক পশলা বৃষ্টি হলেও তা উপেক্ষা করে উৎসাহীরা ভিড় করেছেন শহরের মণ্ডপে মণ্ডপে। তবে উত্তরবঙ্গে দার্জিলিংয়ের নবমীর সকাল থেকেই আকাশ অন্ধকার। চলছে ভারী বৃষ্টি। ফলে ঠাকুর দেখার আশায় জল ঢেলে দিয়েছে প্রকৃতির বিরূপ মনোভাব।

দার্জিলিঙে অষ্টমীর রাত থেকে বৃষ্টির পূর্বাভাস মিলে গেলেও মুষলধারায় বৃষ্টি হয়নি। ঝিরঝিরে বৃষ্টিতে অষ্টমী কাটলেও নবমীর সকাল থেকেই দার্জিলিঙের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন। তবে মঙ্গলবার দুপুর থেকে ভারী বৃষ্টি শুরু হয় পাহাড়-সহ সমতল জুড়ে। চার দিক অন্ধকার করে অবিরাম বৃষ্টি চলতেই থাকে।

চলতি বছর পাহাড়-সহ সমতলে এই মরসুমের রেকর্ড বৃষ্টির কথা মাথায় রেখে দুর্গাপুজোর আগে থেকেই চিন্তায় ছিলেন বিভিন্ন ক্লাব কর্তৃপক্ষ। দু’তিন বার ভারী বৃষ্টির জেরে দার্জিলিং শহরের নানা প্রান্ত জলমগ্ন হয়ে পড়েছিল। বিভিন্ন এলাকার মানুষকে জলযন্ত্রণা ভোগ করতে হয়েছে। নবমীর আগে থেকেই অঝোরে বৃষ্টিতে সেই ভোগান্তি বেড়েছে বই কমেনি।

Advertisement
জলমগ্ন এলাকায়  ক্রেতার আশায় দোকানিরা।

জলমগ্ন এলাকায় ক্রেতার আশায় দোকানিরা। —নিজস্ব চিত্র।

দার্জিলিঙের মতো জলপাইগুড়িতেও একই আবহাওয়ার দেখা মিলেছে। মঙ্গলবার দুপুরে আচমকাই বিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি শুরু হয় এই জেলায়। স্বাভাবিক ভাবেই তাতে ভাটা পড়ে নবমীর অঞ্জলির আনন্দে। ভারী বৃষ্টির জেরে ধূপগুড়ি থেকে ফালাকাটাগামী জাতীয় সড়কেও জল জমে যায়। বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে জনজীবন। নবমীর বিকেলেও ডুয়ার্সের আকাশে কালো মেঘ। আকাশের মুখ ভার দেখে আবারও বৃষ্টিও আশঙ্কা করছেন স্থানীয়েরা। এই আবহাওয়ায় স্বাভাবিক ভাবেই চিন্তিত পুজো উদ্যোক্তা থেকে ব্যবসায়ীরা। জমা জলের উপরেই দোকান করতে বাধ্য হচ্ছেন তাঁরা।

উত্তরের মতো পশ্চিম মেদিনীপুরেও অঝোরে বৃষ্টিতে পণ্ড পুজোর মেজাজ।

উত্তরের মতো পশ্চিম মেদিনীপুরেও অঝোরে বৃষ্টিতে পণ্ড পুজোর মেজাজ। —নিজস্ব চিত্র।

উত্তরের মতো পশ্চিম মেদিনীপুর, নদিয়া এবং মুর্শিদাবাদ জেলায়ও অঝোরে বৃষ্টিতে পণ্ড হয়েছে পুজোর মেজাজ। নবমীর সকাল থেকে মেদিনীপুর শহরে বৃষ্টি শুরু হয়। সকাল থেকেই দফায় দফায় বৃষ্টি পুরুলিয়ায়। অন্য দিকে, দুপুরে বৃষ্টিতে স্তব্ধ হয়ে যায় নদিয়া এবং মুর্শিদাবাদের জনজীবন।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, নবমীর মতো দশমীতেও দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, দুই দিনাজপুরের কয়েকটি জায়গায় ভারী বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া, উত্তরের মালদহ এবং আলিপুরদুয়ারে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.