×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১০ মে ২০২১ ই-পেপার

ফের বন্দুকবাজের হানা সাউথ ক্যারোলাইনায়

সংবাদ সংস্থা
ফ্লোরেন্স (সাউথ ক্যারোলাইনা) ০৫ অক্টোবর ২০১৮ ০২:১৭
প্রতীকী চিত্র।

প্রতীকী চিত্র।

ফের বন্দুকবাজের হামলা মার্কিন মুলুকে। সাউথ ক্যারোলাইনার ফ্লোরেন্সের কাছে একটি বাড়ির মধ্যে থেকে পুলিশকে লক্ষ করে পরপর গুলি চালাতে থাকে বন্দুকবাজ। গুলি লাগে সাত জন অফিসারের গায়ে। এক অফিসার ইতিমধ্যেই প্রাণ হারিয়েছেন। দু’ঘণ্টা ধরে এই লড়াই চলার পরে সন্দেহভাজন হামলাকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশের দাবি, হামলাকারী ফ্রেডরিক হপকিন্স ভিয়েতনাম যুদ্ধের সময়ে মার্কিন সেনাবাহিনীতে কাজ করেছেন। বছর চুয়াত্তরের ফ্রেডরিক পরে আইনজীবী হিসেবে কাজ করতেন। কিন্তু পরে নানা মামলায় অভিযুক্ত হওয়ায় তাঁর আইনজীবীর লাইসেন্স বাতিল হয়। ফ্রেডরিক ফেসবুকে তাঁর লক্ষ্যভেদের ক্ষমতা নিয়ে প্রায়ই গর্ব করতেন। তিনি লক্ষ্যভেদের প্রতিযোগিতাতেও অংশ নিতেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তবে ঠিক কী কারণে এই হামলা এবং কী ভাবে সংঘর্ষ শেষ হল, তা এখনও স্পষ্ট নয়। ফ্লোরেন্স কাউন্টি শেরিফ কেনি বুন জানিয়েছেন, তাঁর বিভাগের অফিসাররা নিয়মমাফিক তল্লাশিতে ওই এলাকায় গিয়েছিলেন। গুলির আওয়াজ শুনে ছুটে যান তাঁরা। বুন জানান, চার দিকে তখন শুধু গুলি আর গুলি। আততায়ী যে জায়গায় দাঁড়িয়ে ছিল, সেখান থেকে কয়েকশো মিটার দূর পর্যন্ত দেখতে পাচ্ছিল সে। ফলে তার সুবিধাই হয়েছিল।

Advertisement

দু’ঘণ্টার লড়াইয়ে পুলিশকে মাথায় রাখতে হয়েছিল ওই বাড়িতে থাকা বেশ কয়েক জন শিশুর কথাও। তারা সবাই সুরক্ষিত বলে জানিয়েছে পুলিশ। সাংবাদিক বৈঠকে বুন পরে জানান, কাউন্টি শেরিফের তিন ডেপুটি ও ফ্লোরেন্স পুলিশের চার অফিসারের গায়ে গুলি লাগে। ফ্লোরেন্স পুলিশের অফিসার টেরেন্স ক্যারাওয়ে পরে মারা যান। ছয় জখম অফিসারের আঘাত কতটা গুরুতর, তা স্পষ্ট নয়।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটে জানান, পুলিশের পরিবারের প্রতি আমার সমবেদনা। ওঁরা যা করেছেন, তার জন্য আমরা ওঁদের প্রতি কৃতজ্ঞ।

৩৮ হাজার মানুষের বাস ফ্লোরেন্স শহরে। গভর্নর হেনরি ম্যাকমাস্টার জানিয়েছেন, পুলিশ যে সাহসিকতা দেখিয়েছে, তার তুলনা নেই।

Advertisement