এ বার দাম বাড়তে চলেছে প্রায় সব কোম্পানির সমস্ত গাড়ির। দেশি-বিদেশি সমস্ত কোম্পানির গাড়ির দাম বাড়ছে অন্তত ২-৩ শতাংশ।কিছু সংস্থা জুলাই থেকেই ধীরে ধীরে দাম বাড়িয়েছে, বাকিরা ১ অগস্ট থেকেই নতুন দাম চালু করে দিয়েছে। কিন্তু এই দাম বাড়ার প্রধান কারণ গুলি কী কী?
কারণ প্রধানত তিনটি, ডলারের দাম বেড়ে যাওয়া, কাঁচামাল ও যন্ত্রাংশের দাম বৃদ্ধি এবং শুল্ক বৃদ্ধি।
এই বছরের শুরুতে ১ ডলারের মূল্য ছিল ভারতীয় মুদ্রায় ৬৩ টাকা ৫০ পয়সা। বাড়তে বাড়তে এখন যা প্রায় ৬৯ টাকার আসে পাশে থাকছে। তেলের মূল্যবৃদ্ধির ফলে আমদানি-রফতানির খরচ যেমন বেড়েছে, সার্বিক ভাবে কাঁচামালের মূল্য সেভাবেই বৃদ্ধি পেয়েছে। জিএসটি চালু হওয়ার পর প্রায় সব গাড়ির দাম কমেছিল, কিন্তু গাড়ির যন্ত্রাংশের ওপর কাস্টম ডিউটি বেড়ে যাওয়ায় আখেরে লাভ কিছুই হয়নি।
মাহিন্দ্রার গাড়ির গড়ে দাম বাড়ছে ২ শতাংশ হারে। যা সর্বাধিক ৩০,০০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে বলে জানা যাচ্ছে। হোন্ডার গাড়ির দাম ১০,০০০ থেকে ৩৫,০০০ টাকাপর্যন্ত বাড়ছে। টাটা মোটর্স এপ্রিল মাসে প্রায় ৩ শতাংশ দাম বাড়িয়েছিল। তার ওপর আরও ২.২ শতাংশ পর্যন্ত দাম বাড়ছে অগস্ট থেকে। মারুতির তরফ থেকে মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা হলেও নির্দিষ্টভাবে কিছু জানানো হয়নি। তবে আন্দাজ করা যায়, দাম বাড়বে ২-৪ শতাংশ পর্যন্ত।
এ ছাড়া অডি, বিএমডব্লু, মার্সেডিস, জাগুয়ারল্যান্ড রোভার-এর মতো বিলাসবহুল গাড়ির দাম ১ লক্ষ টাকা থেকে প্রায় ১০ লক্ষ অবধি বাড়তে চলছে।

আরও পড়ুন: যেখানেই যান, কার্ডে সাবধান

দুর্গা পূজা, দীপাবলীর মতো সময় গাড়ির বিক্রি বেড়ে যায় দেশজুড়ে। এই মূল্যবৃদ্ধি কিছুটা হলেও প্রভাব ফেলবে, চিন্তায় ডিলাররা।কিন্তু প্রায় সমস্ত কোম্পানির একটাই বক্তব্য, উত্‍পাদন খরচ কমানোর চেষ্টা করেও লাভ হয়নি, তাই এই মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত ।

আরও পড়ুন: ফের বাড়ল সুদ, কাঁটা মূল্যবৃদ্ধিই