বিভিন্ন দেশে কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের স্বাধীনতা রক্ষার পক্ষে সওয়াল করলেন আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডারের (আইএমএফ) কর্ণধার ক্রিস্টিন ল্যাগার্দে। রবিবার বিশ্ব ব্যাঙ্ক এবং আইএমএফের বসন্তকালীন বৈঠকের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, শীর্ষ ব্যাঙ্কগুলি সরকারের থেকে যে স্বাধীনতা পায়, তা তাদের কাজ করতে ও সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করে। তাই আগামী দিনেও এই ধারা বজায় থাকবে বলে আশা তাঁর। সম্প্রতি ভারত, আমেরিকা-সহ নানা দেশে শীর্ষ ব্যাঙ্কের স্বাধীনতায় রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। যা নিয়ে রবিবারই সতর্ক করেছেন ইউরোপীয় সেন্ট্রাল ব্যাঙ্কের প্রেসিডেন্ট মারিয়ো দ্রাঘি। এই অবস্থায় ল্যাগার্দের মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মত অনেকের।

ল্যাগার্দে বলেন, নিজেদের দেশের মানুষের কাছে দায়বদ্ধতা বজায় রাখা, সিদ্ধান্ত নেওয়ায় স্বচ্ছতা আনা ও নীতি ঠিক মতো সকলের কাছে তুলে ধরাই তাঁদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ বলে জানিয়েছেন প্রায় সব শীর্ষ ব্যাঙ্কের কর্ণধার। বিশ্বাসযোগ্যতা বজায় রেখে যা তাঁদের লক্ষ্যপূরণে সাহায্য করে। দীর্ঘ সময় ধরে যে স্বাধীনতার জোরে শীর্ষ ব্যাঙ্কগুলি সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছে, আগামী দিনেও তা বজায় থাকবে বলেই আশা ল্যাগার্দের। 

উল্লেখ্য, সুদ বৃদ্ধি নিয়ে বার বার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের তোপের মুখে পড়েছে সে দেশের শীর্ষ ব্যাঙ্কে ফেডারেল রিজার্ভ। আবার ভারতে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভাঁড়ার ভাগ বা অনুৎপাদক সম্পদের সমস্যা সামলানো— নানা বিষয়ে শীর্ষ ব্যাঙ্কের সঙ্গে কেন্দ্রের মতান্তর সামনে এসেছে। অনেকের দাবি, কেন্দ্রের সঙ্গে মতে না মেলায় শীর্ষ ব্যাঙ্কের গভর্নর পদ ছেড়েছেন উর্জিত পটেল। তাঁদের মতে, এই প্রেক্ষিতে ল্যাগার্দের মন্তব্য সব দেশের সরকারকেই বার্তা দেবে।