ঘাড়ে বিপুল দেনার দায়। আর্থিক স্বাস্থ্য এমনই বেহাল যে, মাঝেমধ্যে বিতর্ক তৈরি হচ্ছে সময়ে পাইলটদের বেতন না মেটানো নিয়ে। এই পরিস্থিতিতে এ বার জেট এয়ারওয়েজকে বিমান লিজ দিতে বেঁকে বসছে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলি। এমনকি সময়ে বকেয়া টাকা না পাওয়ায়, আগে লিজ দেওয়া বিমান ফিরিয়ে নেওয়ার চিন্তাভাবনাও শুরু করেছে তারা। তবে এ নিয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করেনি জেট। মুখ খোলেনি সংশ্লিষ্ট অন্যান্য পক্ষও।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের খবর অনুযায়ী, জেটের এই সমস্যার কথা তাদের জানিয়েছেন এ বিষয়ে ওয়াকিবহাল অন্তত তিন জন। সেই সূত্রের খবর, বিমান লিজ দেওয়া কয়েকটি সংস্থাকে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে লিজের টাকা মেটানোর কথা ছিল জেটের। কিন্তু তা করতে পারেনি তারা। আর সেই কারণেই জেটকে বিমান লিজ দেওয়া কয়েকটি সংস্থা ক্ষুব্ধ। এতটাই যে, বিষয়টির সমাধান খুঁজতে বসা বৈঠকে কয়েকটি সংস্থা জেটকে নতুন করে আর বিমান লিজ না দেওয়ার কথা জানিয়ে দেয়। শুধু তা-ই নয়, লিজে দিয়ে রাখা বিমান ফিরিয়ে নেওয়ার ভাবনাচিন্তাও কয়েকটি সংস্থা শুরু করেছে বলে রয়টার্সের খবর।

টানা তিন ত্রৈমাসিকে লোকসানে পড়েছে জেট। সেপ্টেম্বরে শেষ হওয়া ত্রৈমাসিকেও নিট ক্ষতির অঙ্ক ১,২৯৭ কোটি টাকা। ওই সময় পর্যন্ত মোট দেনার পরিমাণ পৌঁছেছে ৮,০৫২ কোটি টাকায়। জ্বালানির চড়া দাম, এবং বিমান ভাড়ার মারকাটারি প্রতিযোগিতার চ্যালেঞ্জ যুঝতে নাজেহাল নরেশ গয়ালের সংস্থা।

পরিস্থিতি এতটাই ঘোরালো যে, প্রায়ই শোনা যাচ্ছে সংস্থার মালিকানা বা নিদেন পক্ষে অংশীদারি হাতবদলের কথা। এ প্রসঙ্গে কখনও এতিহাদের নাম উঠে এসেছে,  তো কখনও আবার আগ্রহী হিসেবে নাম শোনা গিয়েছে টাটাদের। এই পরিস্থিতিতে এ বার বিমান লিজ পাওয়া নিয়ে এই জটিলতা জেটের সমস্যা আরও বাড়াবে বলে আশঙ্কা অনেকের।