মন্দার ক্ষত সারিয়ে অর্থনীতিতে কিছুটা হলেও প্রাণ ফেরানো যে সম্ভব হয়েছে, সেই ইঙ্গিত ইতিমধ্যেই দিয়েছে মার্কিন শীর্ষ ব্যাঙ্ক ফেডারেল রিজার্ভ। বুধবারের বৈঠকে তারই জেরে মার্কিন শীর্ষ ব্যাঙ্ক অবশেষে সুদ বাড়াতে চলেছে বলেই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল। প্রথম দফায় ফেড চেয়ারপার্সন জেনেট ইয়েলেন ২৫ থেকে ৫০ বেসিস পয়েন্টের মধ্যেই সুদ বৃদ্ধিকে বেঁধে রাখবেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর। সে ক্ষেত্রে এখন শূন্য শতাংশে থাকা সুদ বাড়ার পর ০.২৫ থেকে ০.৫০ শতাংশের মধ্যেই থাকবে।

প্রায় এক দশক আগে দুনিয়া জুড়ে ঘনিয়ে আসা মন্দার মেঘের প্রকোপ থেকে অর্থনীতিকে আড়াল করতেই সুদ শূন্যে নামিয়ে আনে আমেরিকা। ফেড রিজার্ভের তদানীন্তন কর্ণধার বেন বার্নানকে অর্থনীতিতে নগদ জোগাতে চালু করেন প্রতি মাসে ৮৫০০ কোটি ডলার বন্ড কেনার ত্রাণ প্রকল্প।  সাধারণ মানুষ ও শিল্পের হাতে বাড়তি নগদ জুগিয়ে অর্থনীতিতে প্রাণ ফেরাতে সুদের হার নামিয়ে আনা হয় প্রায় শূন্য শতাংশে। প্রসঙ্গত, অর্থনীতি কিছুটা ঘুরে দাঁড়ানোয় ২০১৩ সালের মে মাসেই ধাপে ধাপে ত্রাণ কমানোর ব্যাপারে প্রথম ইঙ্গিত দিয়েছিল ফেডারেল রিজার্ভ। তার পরে ২০১৪-র জানুয়ারি থেকে প্রথম আর্থিক ত্রাণ কমানোর সিদ্ধান্ত নেয় ফেড রিজার্ভ। প্রতি মাসে ঋণপত্র কেনার কর্মসূচি ১,০০০ কোটি ডলার কমিয়ে করা হয় ৭,৫০০ কোটি ডলার (৪,৬৫,০০০ কোটি টাকা)। অবশেষে ২০১৪-র অক্টোবরে প্রতি মাসে বন্ড কেনার ত্রাণ প্রকল্প বন্ধের কথা জানায় ফেডারেল রিজার্ভ। মূলত মার্কিন অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর উপর ভরসা রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেয় তারা। তবে ইয়েলেনের স্পষ্ট ঘোষণা আসে আরও পরে, ২০১৫-র মার্চে। তিনি জানালেন, ‘‘আগামী দিনে সুদ বৃদ্ধি অবশ্যম্ভাবী। তবে তা কখন এবং কী গতিতে হবে, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে মার্কিন অর্থনীতির দিকে নজর রাখবেন তাঁরা।’’ পরবর্তী দফায় ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষণ স্পষ্ট হয়েছে মার্কিন অর্থনীতিতে।