Advertisement
০৯ ডিসেম্বর ২০২২
Foxconn

গুজরাতে ফক্সকনের প্রকল্প ঘিরে তরজা

প্রকল্পটিতে বেদান্ত ও ফক্সকনের অংশীদারি যথাক্রমে ৬০% এবং ৪০%। ১০০০ একর জমিতে প্রকল্পটি গড়ে উঠবে। গুজরাত সরকারের দাবি, স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে এটিই বৃহত্তম কর্পোরেট লগ্নি।

বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছে মহারাষ্ট্রের শাসক জোট।

বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছে মহারাষ্ট্রের শাসক জোট। ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
মুম্বই শেষ আপডেট: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৮:০৫
Share: Save:

সেমিকনডাক্টর চিপ এবং বৈদ্যুতিন ডিসপ্লে কারখানা তৈরির জন্য গুজরাতে ১.৫৪ লক্ষ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে ভারতের বেদান্ত এবং তাইওয়ানের ফক্সকন। এর জন্য মঙ্গলবার গুজরাত সরকারের সঙ্গে দুই সংস্থার চুক্তি হতেই শুরু হয়ে গেল রাজনৈতিক তরজা। মহারাষ্ট্রের বিরোধী দল এনসিপি এবং কংগ্রেসের বক্তব্য, তারা ক্ষমতায় থাকাকালীন কারখানাটি সেই রাজ্যে তৈরির জন্য বেদান্ত-ফক্সকনের সঙ্গে কথাবার্তা প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছিল। শিবসেনার একনাথ শিন্দে গোষ্ঠী ক্ষমতায় এসে সেই প্রকল্প গুজরাতের হাতে তুলে দিয়েছে। মহারাষ্ট্রের শাসক জোটের সাফাই, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, মহারাষ্ট্রকে এই রকম কিংবা এর থেকেও ভাল প্রকল্প দেওয়া হবে। বেদান্ত জানিয়েছে, মহারাষ্ট্রে আই ফোন কারখানা তৈরি করবে তারা।

Advertisement

প্রকল্পটিতে বেদান্ত ও ফক্সকনের অংশীদারি যথাক্রমে ৬০% এবং ৪০%। ১০০০ একর জমিতে প্রকল্পটি গড়ে উঠবে। গুজরাত সরকারের দাবি, স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে এটিই বৃহত্তম কর্পোরেট লগ্নি।

প্রকল্পটির চুক্তি সইয়ের পর থেকেই বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছে মহারাষ্ট্রের শাসক জোট। এনসিপির মুখপাত্র মহেশ তাপাসে প্রশ্ন তুলেছেন, শিবসৈনিক তথা মুখ্যমন্ত্রী শিন্দে কার স্বার্থে কাজ করছেন, মহারাষ্ট্র নাকি গুজরাত? মহারাষ্ট্রের কংগ্রেস সভাপতি নানা পাটোলের অভিযোগ, ‘‘মহারাষ্ট্রের বিজেপি নেতারা দিল্লিতে তাঁদের বসেদের তুষ্ট করার চেষ্টা করেন। সে কারণেই গুজরাতের কাছে প্রকল্পটি আমাদের হারাতে হল।’’ তবে শিন্দের পাল্টা দাবি, আগের সরকার ওই দুই সংস্থার সঙ্গে সহযোগিতা করেনি।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.