খানিকটা অপ্রত্যাশিত ভাবেই রেপো রেট ২৫ বেসিস পয়েন্ট কমিয়ে ৬.২৫ শতাংশ করার সিদ্ধান্ত নিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। এর ফলে গৃহঋণে সুদের হার কমতে পারে বলে মনে করছেন আর্থিক বিশেষজ্ঞরা। পাশাপাশি রিভার্স রেপো রেটের সুদের হারও কমিয়ে ৬ শতাংশ করেছে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক।

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক বিভিন্ন ব্যাঙ্ককে যে সুদে স্বল্প মেয়াদী ঋণ দেয় তাই হল রেপো রেট। অন্য দিকে যে সুদে বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কের কাছ থেকে টাকা ধার নেয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক তাই হল রিভার্স রেপো রেট। রেপো রেট কমালে তার সুবিধা পায় বিভিন্ন ব্যাঙ্ক। সাধারণত এই সুবিধা গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে দেয় বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক। তাই রেপো রেট কমালে কার লোন, হোম লোন-সহ আরও বিভিন্ন ক্ষেত্রে সুদের হার কমার সম্ভাবনা বাড়ে।

রেপো রেট কমানোর পাশাপাশি ২০১৮-১৯ এবং ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে গড় জাতীয় উৎপাদন (জিডিপি) বৃদ্ধির হার কী হতে পারে, সেই পূ্র্বাভাসও দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। জিডিপি ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে ৭.৪ শতাংশ এবং ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে ৭.৫ শতাংশ হারে বাড়বে বলে বিবৃতি দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।

আরও পড়ুন: পিঠ চাপড়ে প্রাপ্তি রেটিং হুঁশিয়ারিও, ঘাটতিতে অখুশি মুডি’জ

খুচরো ব্যবস্থায় মুদ্রাস্ফীতির হার এখন ২.২ শতাংশ, যা গত ১৮ মাসের মধ্যে সব থেকে কম। সেই কারণেই রেপো রেট কমানো হল বলে জানানো হয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের তরফে। গভর্নর পদে শক্তিকান্ত দাস দায়িত্ব নেওয়ার পর এটিই ছিল রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রথম গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা।

আরও পড়ুন: আর্থিক তছরুপের অভিযোগে আজ ফের রবার্ট বঢরাকে জেরা করবে এনফোর্সমেন্ট

(মূ‘ল্যবৃদ্ধি, মুদ্রাস্ফীতি, পেট্রোপণ্যের দাম বৃদ্ধি - অর্থনীতির সব খবর বাংলায় পেয়ে যান আমাদের ব্যবসা বিভাগে।)