• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কথা বলে বিরোধ মেটান, নির্দেশ টাটা-ওয়াদিয়াকে

Ratan Tata and Nusli Wadia
রতন টাটা ও নুসলি ওয়াদিয়া।

কিছু দিন আগে টাটা সন্স থেকে বিতাড়িত সাইরাস মিস্ত্রিকে সংস্থার চেয়ারম্যান পদে ফেরানোর রায় দিয়েছে এনসিএলটি-র আপিল আদালত (এনসিএলএটি)। সোমবার এল আর এক নির্দেশ। এ বার সুপ্রিম কোর্টের। বম্বে ডাইং চেয়ারম্যান নুসলি ওয়াদিয়া ও টাটা সন্সের চেয়ারম্যান এমেরিটাস রতন টাটাকে একসঙ্গে বসে নিজেদের মধ্যে কথা বলে দ্বন্দ্ব মিটিয়ে নিতে বলল শীর্ষ আদালত। টাটাদের কিছু সংস্থার পর্ষদে ঠাঁই না-পেয়ে ২০১৬ সালে রতন টাটা ও টাটা সন্সের অন্য কিছু ডিরেক্টরদের বিরুদ্ধে মানহানির ফৌজদারি মামলা দায়ের করেছিলেন ওয়াদিয়া।

আজ ভারপ্রাপ্ত বেঞ্চ বলে, ‘‘আপনারা দু’জনেই পরিণত মানুষ। দু’জনেই শিল্প মহলের কাণ্ডারি। তা হলে এই বিষয়টি দু’জনে আপোসে মেটাচ্ছেন না কেন? কেন মতপার্থক্য দূর করতে একসঙ্গে বসে কথা বলছেন না? কি এই ধরনের আইনের পথে হাঁটার প্রয়োজন আদৌ আছে?’’

এ দিন ওয়াদিয়ার আইনজীবী এ সুন্দরম বলেন, টাটা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নন তাঁর মক্কেল। সেখানকার পর্ষদ থেকে তাঁকে সরতে হওয়ায় মানহানি হয়েছে বলেও দাবি করছেন না। ওয়াদিয়ার বয়ানে তাঁর আইনজীবীর দাবি, ‘‘আমি সেই সব মানুষের বিরুদ্ধে, যাঁরা অভিযোগ এনে আমাকে পর্ষদ থেকে সরানোর প্রস্তাব গ্রহণ করেছে এবং পরে বিষয়টি ফাঁস করে দিয়েছে সংবাদ মাধ্যমে।’’

এ দিকে, টাটা সন্সকে পাবলিক থেকে প্রাইভেট সংস্থায় রূপান্তরিত করার পদক্ষেপকে বেআইনি বলে তারা যে নির্দেশ দিয়েছিল, তাতে রেজ়িস্ট্রার অব কোম্পানিজ়ের (আরওসি) উপর কোনও অপবাদ চাপানো হয়নি বলে জানিয়েছে আপিল আদালত। তাই খারিজ করেছে আরওসির ওই নির্দেশ স‌ংশোধনের আর্জি।

টাটা সন্সে মিস্ত্রিকে ফেরানোর যে রায় এনসিএলএটি দিয়েছে, তার বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছে টাটারা। ১০ জানুয়ারি তার শুনানি হতে পারে বলে ইঙ্গিত।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন