ঠিক দশ বছর আগে প্রথম আত্মপ্রকাশ করেছিল আই ফোন। কিংবদন্তি প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ জোবসের হাতে। সেই প্রথম বোতাম টিপে নয়, আঙুল ছুঁইয়ে ফোনের ব্যবহার দেখেছিল বিশ্ব। মাঝের এক দশকে ছবি আমূল পাল্টেছে। টাচস্ক্রিন স্মার্ট ফোন এখন প্রায় সব ঘরে, সব পকেটে, সর্বক্ষণ। কিন্তু এক রয়ে গিয়েছে অ্যাপলের দর্শন। চোখ ধাঁধানো অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে বাজার দখলকেই বরাবর ব্যবসার মূল মন্ত্র করে এসেছে তারা। তাই সেই ফোনের দশ বছর পূর্তিতে প্রত্যাশার পারদ ছিল চড়া। আর তা মাথায় রেখেই কুপার্টিনোয় মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থাটির নতুন ক্যাম্পাসের স্টিভ জোবস থিয়েটারে আই ফোন ১০-এর উপর থেকে পর্দা তুললেন অ্যাপল কর্ণধার টিম কুক।

আই ফোন-১০

• স্ক্রিন: ৫.৮ ইঞ্চি

• অপারেটিং সিস্টেম: আইওএস-১১

• ক্যামেরা: পিছনে দু’টি ১২ মেগাপিক্সেলের। সামনে ৭ মেগাপিক্সেলের একটি

• ভারতে আসবে: নভেম্বরে

• দাম: ৮৯,০০০ টাকা (৬৪ জিবি),             ১,০২,০০০ টাকা (২৫৬ জিবি)

 

তথ্যসূত্র: অ্যাপল

উপরের প্রায় সবটা জুড়ে স্ক্রিন।  ছোট্ট জায়গায় ক্যামেরা। যার দিকে  ব্যবহারকারী তাকালেই চালু হয় ফোন। তা সে তিনি যে ভাবে বা যে পোশাকেই তাকান। সঙ্গে রয়েছে তার ছাড়া চার্জ দেওয়ার ব্যবস্থা, কৃত্রিম মেধার উন্নততর ব্যবহার ইত্যাদি। এর পাশাপাশি আই ফোন-৮ এবং আই ফোন ৮ প্লাস এনেছে সংস্থা। ঘোষণা করা হয়েছে ফোনের উপর নির্ভরতা কমা অ্যাপল ওয়াচের কথাও।

কিন্তু এই সব কিছুর পরেও অনেক বিশেষজ্ঞ বলছেন, উন্নত প্রযুক্তি সেঁধিয়ে থাকলেও, যে দামে (কমপক্ষে ৯৯৯ ডলার) অ্যাপল আই ফোন-১০ এনেছে, তা গ্রাহকদের পছন্দ হবে তো? অ্যাপল পারবে স্যামসাঙের মতো প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বীদের থেকে বাজারের কব্জা বেশি করে ছিনিেয় নিতে? বিশেষত যেখানে তুলনায় কম দামে প্রায় একই রকম প্রযুক্তির ফোন আনার কথা দাবি করছে স্যামসাং। বলছে, তার বিপুল চাহিদার কথা। প্রযুক্তির চকমকিতে প্রতিদ্বন্দ্বীদের চোখ অ্যাপল ধাঁধিয়ে দিতে পারবে কিনা, এখন সে দিকেই নজর সকলের।