অনলাইনে অর্ডার দিয়েছিলেন মোবাইল ফোন। সেই মতো নির্দিষ্ট সময়ে ডেলিভারিও হয় প্যাকেট। কিন্তু, সেই প্যাকেট খুলে চোখ ছানাবড়া প্রীতি কুমারের।

মঙ্গলবার বাগুইআটির বাড়ির ঠিকানায় আসা লাল রঙের চকচকে বাক্স খুলতেই প্রীতি দেখেন, মোবাইলের বদলে তার ভিতরে রয়েছে১০ টাকা দামের দুটো কাপড় কাচার বার সাবান!

নীরজ কুমার এবং তাঁর স্ত্রী প্রীতি বাগুইআটির বাসিন্দা। নীরজ একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মী। তাঁর স্ত্রী একটি স্কুলের শিক্ষিকা। বুধবার নীরজ বলেন, ‘’২০-২৩ জানুয়ারি একটি আন্তর্জাতিক অনলাইন বিপণি সমস্ত কেনাবেচায় বিশেষ ছাড় ঘোষণা করেছিল। সেই ছাড় দেখেই ২০ তারিখ একটি মোবাইল ফোনের অর্ডার দিয়েছিলাম। সেখানে পুরনো মোবাইল বিনিময়ের সুযোগও ছিল।’’ তিনি আরও জানান, স্ত্রীর একটি পুরনো মোবাইল বিনিময় করার শর্তে অনলাইনে ৫ হাজার ৮৯৯ টাকা পেমেন্টও করেন।

আরও পডু়ন: পশুপ্রেমীদের অবস্থানে পুলিশের লাঠি! অভিনেত্রী দেবলীনা-সহ অনেকে আহত

নীরজ বলেন, ‘‘পরের দিনই অর্থাৎ ২১ জানুয়ারি আমার কাছে একটি এসএমএস আসে। সেখানে অনলাইন ওই বিপণির তরফে জানানো হয়, ২২ জানুয়ারি মোবাইল ডেলিভারি করা হবে।’’

সেই অনুযায়ী মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ ওই সংস্থার তরফে মোবাইল ডেলিভারি দিতে আসেন দুই যুবক। নীরজ বলেন, “সেই সময় আমার স্ত্রী বাড়িতে ছিলেন। ওঁরা স্ত্রীর মোবাইলে আসা ওটিপি মিলিয়ে দেখে ডেলিভারি দিয়ে যান। নিয়ে যানপ্রীতির পুরনো ফোনটিও।” এর পর ঘরে ঢুকে ডেলিভারি প্যাকেট খোলেন প্রীতি। প্রথমেই চোখে পড়ে যে মোবাইল তিনি অর্ডার দিয়েছিলেন, ডেলিভারিতে আসা মোবাইলের বাক্সটি সেই একই কোম্পানির হলেও মডেল আলাদা।

আরও পড়ুন: আদায় করতে না পেরে সওয়া ১ লক্ষ কোটি টাকার ঋণ বাতিল করল ১৬টি ব্যাঙ্ক

এর পর বাক্স খুলে আক্কেল গুড়ুম! বাক্সে মোবাইলের বদলে কাপড় কাচা সাবানের বার! সঙ্গে সঙ্গে তিনি আবাসনের নিরাপত্তা রক্ষীদের ডেলিভারি দিতে আসা ওই যুবকদের খোঁজ করতে বলেন।কিন্তু ততক্ষণে তাঁরা চলে গিয়েছেন। প্রীতির অভিযোগ, ‘‘এর পর ভাল করে খেয়াল করে দেখি মোবাইলের বাক্সের সিল ঠিক করে আটকানো নেই। পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছিল, সিল ভাঙা হয়েছে।’’

এর পরই অনলাইন ওই সংস্থাকে ফোন করে অভিযোগ জানান নীরজ। সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়,তারা অভ্যন্তরীণ তদন্ত করে দেখে চার-পাঁচ দিন পরে নীরজের সঙ্গে যোগাযোগ করবে।

ওই সংস্থার হয়ে যাঁরা এই ডেলিভারি করেন, তাঁদের দাবি, তাঁরা যেভাবে প্যাকেট পেয়েছেন সেভাবেই ডেলিভারি করেছেন। মাঝ পথে কোথাও চুরি হতে পারে মোবাইল। প্রায় ছ’হাজার টাকা এবং পুরনো মোবাইল খুইয়ে বৃহস্পতিবারই ক্রেতা সুরক্ষা দফতরে ওই সংস্থার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ওই দম্পতি।

(কলকাতা শহরের রোজকার ঘটনার বাছাই করা বাংলা খবর পড়তে চোখ রাখুন আমাদের কলকাতা বিভাগে।)