দেশের প্রথম মেট্রো চালুর গর্ব রয়েছে কলকাতার। তার সঙ্গে এ বার মহানগরের মুকুটে যোগ হতে চলেছে আরও একটি পালক। সৌজন্যে ভারতীয় রেল। দেশের মধ্যে প্রথম জলের নীচে দিয়ে ট্রেন চালুর ইতিহাসের সূচনাও হচ্ছে কলকাতাতেই। শীঘ্রই চালু হচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর প্রথম ধাপ। হাওড়া থেকে হুগলি নদীর নীচে দিয়ে চলবে মেট্রো।

বৃহস্পতিবার রেলমন্ত্রী পীযূষ গয়াল টুইটারে এই নিয়ে একটি প্রোমোশনাল ভিডিয়ো শেয়ার করেছেন। তাতে বলা হয়েছে, হুগলি নদীর নীচে দিয়ে খুব শীঘ্রই দেশের প্রথম ট্রেন চলতে শুরু করবে। এই ঘটনা প্রযুক্তি ও কারিগরি নৈপুণ্যের নিদর্শন। দেশের তথা ভারতীয় রেলের উন্নয়নের প্রতীক এই রেলপথ।

রেলের বক্তব্য, এর জন্য কলকাতাবাসী যেমন গর্ব করতে পারবে, তেমনই যোগাযোগের ক্ষেত্রে খুলে যাবে এক নয়া দিগন্ত। যাত্রাপথ মসৃণ হবে, কমবে সময়। রেলের দাবি, জলের তলায় অর্থাৎ নদীর নীচে দিয়ে চলাচলের জন্য চার স্তরীয় নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করা হয়েছে।

 

হাওড়া থেকে সল্টলেক স্কেটর ফাইভ পর্যন্ত ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো করিডোরের প্রথম ধাপ খুব শীঘ্রই চালু হবে বলে রেল সূত্রে খবর। প্রথম ধাপে সেক্টর ফাইভ থেকে ফুলবাগান পর্যন্ত পুজোর আগেই চালুর কথা। তার পর ফুলবাগান থেকে শিয়ালদহ এবং সব শেষে শিয়ালদহ থেকে এসপ্ল্যানেড হয়ে হুগলি নদী পেরিয়ে মেট্রো পরিষেবা চালু হবে হাওড়া পর্যন্ত।

আরও পডু়ন: ওয়াঘা সীমান্তে আটকে থাকার পর ভারতে ফিরল সমঝোতা এক্সপ্রেস

আরও পড়ুন: তৃণমূলের ‘ঘর ওয়াপসি’ বনগাঁতেও, ৫ পুরসভায় মুখ পুড়িয়ে বেজায় অস্বস্তিতে বিজেপি

নোয়াপাড়া থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত বর্তমানে যে মেট্রো চলছে, তাতে মাঝেমধ্যেই লাইনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার মতো ঘটনায় ব্যাহত হয় পরিষেবা। সেই সব কথা মাথায় রেখেই ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর স্টেশনগুলির প্ল্যাটফর্মে বসানো হয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির গেট। অন্য সময়ে এই গেটগুলি বন্ধ থাকবে। ট্রেন স্টেশনে এলে তবেই খুলে যাবে ওই গেট। তার পর ট্রেনে উঠতে পারবেন যাত্রীরা।

এই মেট্রো নিয়েই ভিডিয়োটি পোস্ট করেছেন পীযূষ গয়াল। যদিও এখনও নির্দিষ্ট করে সূচনার দিনক্ষণ ঘোষণা করা হয়নি।