বাস এবং অন্যান্য ভারী যানবাহন বন্ধ থাকলেও টালা সেতুতে ছোট গাড়ি চলছে। কত দিন সেই সব গাড়ি চলবে, শেষ পর্যন্ত কী হবে টালা সেতুর ভবিষ্যৎ, সেই ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে পুজোর পরে। তার আগে ওই সেতুর উপরে ছোট গাড়ির চাপ কমাতে চিৎপুর লকগেট উড়ালপুলে গাড়ি চলাচলের ছক বদলানো হচ্ছে। যানবাহনের জট কাটাতে ওই উড়ালপুল দিয়ে এ বার বাগবাজার থেকে বিটি রোডের দিকে গাড়ি চলবে সব সময়েই। রবিবার ভোরে এই উত্তরমুখী চলাচল শুরু হয়ে গিয়েছে।

লালবাজার জানিয়েছে, আপাতত কাল, মঙ্গলবার পর্যন্ত এই ব্যবস্থা বজায় থাকবে। এত দিন সকালের দিকে বিটি রোড থেকে ওই উড়ালপুল দিয়ে গাড়ি যেত বাগবাজারের দিকে। আবার বেলা ১টার পরে বাগবাজার থেকে বিটি রোডের দিকে যেত গাড়ি। 

এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে টালা সেতুর উপর দিয়ে বাস-সহ ভারী যান চলাচল বন্ধ আছে। চলছে শুধু ছোট গাড়ি। টালা সেতুতে গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখার জন্য বিশেষজ্ঞ সংস্থা বারবার সুপারিশ করেছে প্রশাসনের কাছে। এই বিষয়ে পুজোর পরে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে নবান্ন। তবে তার আগেই টালা সেতুর উপর দিয়ে ছোট গাড়ি চলাচলে রাশ টানতে চাইছে লালবাজার। এক পুলিশকর্তা জানান, এই নিয়ন্ত্রণের সঙ্গেই গ্যালিফ স্ট্রিট থেকে বাগবাজার পর্যন্ত রাস্তার দু’ধারের পার্কিং তুলে দেওয়া যায় কি না, তা নিয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু হয়েছে। 

পুলিশের দাবি, ওই উড়ালপুল দিয়ে উত্তরমুখী গাড়ি চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ায় রবিবার শ্যামবাজার মোড়ে গাড়ির গতি তেমন ভাবে বাধা পায়নি। অন্য দিকে আরজি কর রোডের অবস্থাও ছিল স্বাভাবিক।