• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পুলিশি বিক্ষোভ এড়াতে সৈনিক সম্মেলনের নির্দেশ   

LalBazar
প্রতীকী ছবি

দশ দিনের মধ্যে একের পর এক তিন জায়গায় বিক্ষোভ। প্রতিটি ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, পুলিশের নিচুতলার কর্মীরা ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। এ বার তাই বাহিনীর নিচুতলার বিক্ষোভ ঠেকাতে সৈনিক সম্মেলন চালু করার সিদ্ধান্ত নিল লালবাজার।

পুলিশের একটি সূত্রের খবর, সশস্ত্র বাহিনীর ঊর্ধ্বতন আধিকারিকদের কাছে সৈনিক সম্মেলন করার নির্দেশ পাঠানো হয়েছে লালবাজার থেকে। নির্দেশে সশস্ত্র বাহিনীর ডিসি-দের বলা হয়েছে, এ বার থেকে নিজ নিজ বাহিনীতে প্রতি মাসে দু’বার করে এই সৈনিক সম্মেলনের ব্যবস্থা করতে হবে। সেই সম্মেলন থেকে উঠে আসা পুলিশের নিচুতলার কর্মীদের বক্তব্যের পুঙ্খানুপুঙ্খ রিপোর্ট পেশ করতে হবে পুলিশ কমিশনারের কাছে।

পুলিশের একটি সূত্র জানাচ্ছে, সৈনিক সম্মেলনে নির্দিষ্ট বাহিনীর সকলে উপস্থিত থেকে তাঁদের কোথায় কোথায় অসুবিধা হচ্ছে তা জানাতে পারবেন। এতে পুলিশের নিচুতলার কর্মীদের দাবি-দাওয়ার রিপোর্ট পৌঁছে যাবে পুলিশ কমিশনার বা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে। ফলে এ ধরনের বিক্ষোভ মাথাচাড়া দিতে পারবে না বলেই মনে করছে পুলিশের একাংশ।

গত দশ দিনে কলকাতা পুলিশের তিনটি জায়গায় নজিরবিহীন ভাবে বিক্ষোভ দেখান নিচুতলার কর্মীরা। প্রথমে কলকাতা পুলিশ ট্রেনিং স্কুলের কমব্যাট ফোর্স, পরে গরফা থানা এবং সর্বশেষে শুক্রবার রাতে সল্টলেকে কলকাতা পুলিশের চতুর্থ সশস্ত্র ব্যাটেলিয়নে পুলিশকর্মীদের বিক্ষোভ। শুক্রবারের বিক্ষোভের জেরে ভাঙচুরও হয়। পিটিএসে কমব্যাট ফোর্সের কর্মীদের ক্ষোভের সামনে ডিসি-সহ তিন জন আধিকারিককে নিগৃহীত হতে হয়। অভিযোগ, চতুর্থ সশস্ত্র ব্যাটেলিয়নে ঊর্ধ্বতন আধিকারিকদের ইটও ছোড়েন পুলিশকর্মীরা। অন্য দুই ক্ষেত্রে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কোনও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নিলেও চতুর্থ সশস্ত্র ব্যাটেলিয়নের ঘটনায় বিধাননগর থানায় নিচুতলার কর্মীদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে কলকাতা পুলিশ। ফলস্বরূপ সাসপেন্ড করা হয়েছে পাঁচ জনকে। বদলি হয়েছেন এসি, ডিসি।

পরপর এ ধরনের ঘটনায় প্রশ্ন উঠেছে বাহিনীর শৃঙ্খলা নিয়ে। তবে পুলিশের একটি অংশ জানাচ্ছে, শৃঙ্খলার প্রশ্ন থাকলেও তিনটি ঘটনাতেই দেখা গিয়েছে, নিচুতলার কর্মীদের কিছু অভিযোগ সত্যি। সেই সব অভিযোগ, দাবিদাওয়া যাতে বাহিনীর বাইরে আসতে না পারে, তাই বিক্ষোভ ঠেকাতে সৈনিক সম্মেলনের সিদ্ধান্ত নিল লালবাজার। এতে বাহিনীর অভাব-অভিযোগ অন্দরেই মিটিয়ে ফেলা যাবে বলে মনে করছেন পুলিশের শীর্ষ কর্তারা।

আরও পড়ুন: দৌড়ে বেড়াচ্ছেন কোভিড আক্রান্ত মানসিক রোগী, নাকাল মেডিক্যাল

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন