দীর্ঘ টালবাহানার পরে হাইকোর্টের নির্দেশে আজ, বুধবার পোলেরহাট ২ পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন নিয়ে ভোটাভুটি হবে। যা নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা আছে। কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পঞ্চায়েতের ১৬টি আসনের মধ্যে ৮টি আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছিল তৃণমূল। বাকি ৮টি আসনের মধ্যে ৩টি পায় তারা। বাকিগুলিতে জয়ী হন জমি কমিটি সমর্থিত নির্দল প্রার্থীরা। 

ভোটের পর থেকে প্রশাসক নিয়োগ করেই পঞ্চায়েতের কাজকর্ম চলছিল। পর পর দু’বার বোর্ড গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হলেও তা ভেস্তে যায়। বিষয়টি গড়ায় হাইকোর্টে। আদালতের নির্দেশেই ভোটাভুটির দিন ঠিক করেছে প্রশাসন।

কে হবেন পঞ্চায়েতের উপপ্রধান, তা নিয়ে জল্পনা চলছে তৃণমূলের অন্দরে। ভাঙড় পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি আরাবুল ইসলামের পুত্র হাকিমুল ইসলামের নাম ঘুরছে বাতাসে। তিনি ওই পঞ্চায়েতের প্রাক্তন প্রধান। এ বার পঞ্চায়েতের প্রধানের পদটি তফসিলি মহিলা সংরক্ষিত হওয়ায় হাকিমুল প্রধান হতে পারছেন না। তবে উপপ্রধান হওয়ার দৌড়ে তিনিই এগিয়ে বলে তৃণমূলের একটি সূত্রে জানা যাচ্ছে। 

এই নিয়ে দলের অন্দরে-বাইরে ক্ষোভ আছে। পঞ্চায়েতের বাসিন্দাদের একাংশও তাঁকে ওই পদে মানতে নারাজ। মানুষের অভিযোগ, ওই পঞ্চায়েতের জেলা পরিষদের আসন থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন আরাবুল ইসলামের পুত্রবধূ তথা হাকিমুলের স্ত্রী শেফালি। স্থানীয় পঞ্চায়েত সমিতির আসন থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে ভাঙড় ২ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি হয়েছেন আরাবুল নিজে। তিনি গতবার পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ছিলেন। এ বার পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির আসনটি সংরক্ষিত থাকায় আরাবুল সভাপতি হতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত তিনি পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতির পদটি দখল করেন। এ বার হাকিমুল ওই পঞ্চায়েতের উপপ্রধানের পদটি দখলের জন্য মরিয়া হয়ে আছেন বলে দলীয় সূত্রের খবর। একই পরিবারের তিন জন সদস্য প্রশাসনিক সব পদ দখল করতে চলায় ক্ষোভ তৈরি হয়েছে নানা মহলে। 

এ বিষয়ে জমি কমিটির সদস্য মির্জা হাসান বলেন, ‘‘তৃণমূল এখানে পরিবারতন্ত্র কায়েম করেছে। পরিবারের বাইরে কেউ কোনও পদ পাবে না। আসলে লুটেপুটে খাওয়ার সব রকমের প্রচেষ্টা। তবে আমরা এর বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করব। পঞ্চায়েতে কোনও দুর্নীতিগ্রস্ত, দুষ্কৃতীদের আমরা ঢুকতে দেব না। এ জন্য আমাদের লড়াই জারি থাকবে।’’

আরাবুল বলেন, ‘‘এ ক্ষেত্রে পরিবারতন্ত্রের কোনও বিষয় নেই। হাকিমুল নিজের যোগ্যতায় উপপ্রধানের পদে লড়বেন। দলীয় কর্মীরা হাকিমুলকেই উপপ্রধান হিসেবে চাইছেন।’’