• সমীরণ দাস
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্রশাসনিক বৈঠকে ব্রাত্য জয়নগর পুরসভা, ক্ষোভ

Purasava
জয়নগর-মজিলপুর পুরসভা

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক বৈঠকে ডাক পাননি বলে অভিযোগ তুললেন কংগ্রেস পরিচালিত জয়নগর-মজিলপুর পুরসভার চেয়ারম্যান সুজিত সরখেল। 

বৃহস্পতিবার নামখানায় প্রশাসনিক বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসনের প্রায় সমস্ত স্তরের আধিকারিকেরা। জেলার অন্যান্য পুরসভার চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদ সদস্য, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিরাও এসেছিলেন। ছিলেন জেলা পুলিশের পদস্থ কর্তা এবং বিভিন্ন থানার আধিকারিকেরা। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এই সভায় ডাক পায়নি জয়নগর-মজিলপুর পুরসভা। 

রাজ্যের একমাত্র কংগ্রেস পরিচালিত পুরসভা জয়নগর-মজিলপুর। পুরসভার দীর্ঘ দিনের অভিযোগ, বিরোধী দল পরিচালিত বলে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকারি বঞ্চনার শিকার হতে হয় তাদের। এ ক্ষেত্রেও তেমনই হল বলে মনে করছেন পুরপ্রধান। তিনি বলেন, ‘‘জেলার প্রশাসনিক বৈঠক। আশা করেছিলাম ডাক পাব। সে ভাবে বেশ কিছু দিন ধরে এলাকার বিভিন্ন সমস্যা মুখ্যমন্ত্রীর সামনে তুলে ধরার জন্য তৈরি হচ্ছিলাম। কিন্তু দুঃখের বিষয়, আমাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। জয়নগরের পুরবাসীকে বঞ্চিত করা হল।’’

জেলার অধিকাংশ বিধায়ক বৈঠকে উপস্থিত থাকলেও আমন্ত্রণ পাননি বলে জানালেন কুলতলির সিপিএম বিধায়ক রামশঙ্কর হালদারও। এ ক্ষেত্রেও বিরোধীদের প্রতি বঞ্চনার অভিযোগ তুলছেন তিনি। বিধায়ক বলেন, ‘‘প্রশাসনিক বৈঠক না বলে ওটাকে দলীয় সভা বলাই ভাল। মুখ্যমন্ত্রী বিরোধীদের পছন্দ করেন না। এই ঘটনা আগেও হয়েছে। সরকারি বৈঠকে বিরোধীদের আমন্ত্রণ জানিয়েও ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে, এমন উদাহরণও রয়েছে।’’

জেলাশাসক ওয়াই রত্নাকর রায়ের সঙ্গে এ দিন যোগাযোগ করা যায়নি। তৃণমূলের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা সভাপতি শুভাশিস চক্রবর্তী বলেন, ‘‘এটা প্রশাসনিক বৈঠক। দলীয় সভা নয়। আমি যত দূর জানি প্রশাসনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকেই আমন্ত্রণ পাঠানো হয়েছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন