‘বহিরাগত’ প্রার্থীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নামলেন ভূমিপুত্র
মায়ের আর্শীবাদ নিয়ে দিলু প্রচারে বেরোন। তাঁর কথায়, ‘‘আমি রাহুল গাঁধীর প্রার্থী। উন্নয়ন থেকে শুরু করে শান্তি বজায় রাখতেই কংগ্রেস থেকে আমাকে বসিরহাটের প্রার্থী করা হয়েছে।’’
dilu

প্রচার: দেওয়াল লিখছেন দিলু

প্রচারে নামলেন বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী কাজি আব্দুর রহিম দিলু। সোমবার রাতেই তাঁর নাম কংগ্রেস থেকে ঘোষণা করা হয়। মঙ্গলবার সকালে দলীয় কর্মীরা বাদুড়িয়ার রাজবাড়িয়া গ্রামে দিলুর বাড়িতে ভিড় করেন। প্রচারের প্রস্তুতির সঙ্গে সঙ্গে দেওয়াল লিখনের তোড়জোড়ও চলে। 

এ দিন সকালে মায়ের আর্শীবাদ নিয়ে দিলু প্রচারে বেরোন। তাঁর কথায়, ‘‘আমি রাহুল গাঁধীর প্রার্থী। উন্নয়ন থেকে শুরু করে শান্তি বজায় রাখতেই কংগ্রেস থেকে আমাকে বসিরহাটের প্রার্থী করা হয়েছে।’’ কংগ্রেস কর্মীরা এ দিন তাঁকে নিয়ে মিছিল করেন। প্রথমে তাঁরা বাদুড়িয়ার প্রাক্তন বিধায়ক তথা দিলুর বাবা প্রয়াত কাজি আব্দুল গফ্ফরের কবরের সামনে যান। সেখান থেকে বেরিয়ে দিলু নিজের নামে রঙ-তুলি নিয়ে দেওয়াল লেখেন। এরপর গ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাঁকে ভোট দেওয়ার আবেদন জানান। 

দিলুকে দেখে গ্রামবাসীরা ভিড় করেন। স্কুলের পথে পড়ুয়ারাও দিলুর দিকে এগিয়ে আসে। মানুষ হিসাবে দিলুর বাবা গফ্ফরের পরিচিতি ছিল এলাকায়। এলাকার মানুষ তাঁকে সম্মান করতেন। বিপদে তিনি মানুষের পাশে থাকতেন বলে দাবি গ্রামবাসীর। তাঁর ছেলে দিলু লোকসভার প্রার্থী হওয়ায় খুশি অনেকেই। 

গ্রামের বৃদ্ধ-বৃদ্ধারা দিলুকে দেখতে এগিয়ে আসেন। বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেসের ভূমিপুত্রকে তাঁরা আশীর্বাদ করেন। অনেকের কথায়, ‘‘প্রার্থীদের মধ্যে একমাত্র দিলুর বাড়িই বসিরহাটে। বাকি আর সকলে বহিরাগত।’’ বিষয়য়টা দিলুকে বাড়তি মাইলেজ দেবে বলে দলের নেতৃত্বেরও বিশ্বাস। দিলু বলেন, ‘‘বসিরহাটে অন্তত ১৫ লক্ষ মানুষ ভোট দেবেন। অথচ অন্য দলগুলি কেউই এখানকার বাসিন্দাকে ভোটে প্রার্থী করতে পারল না। এটা এই কেন্দ্রের মানুষের অপমান। বিষয়টি প্রচারে তুলে ধরব।’’  — নিজস্ব চিত্র

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

  • সকলকে বলব ইভিএম পাহারা দিন। যাতে একটিও ইভিএম বদল না হয়।

  • author
    মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলনেত্রী

আপনার মত