• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভাইপোকে গ্রেফতার করতে অর্জুনের বাড়িতে পুলিশ

main
অর্জুন সিংহ।

ব্যারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিংহের ভাটপাড়ার বাড়িতে পুলিশ যাওয়াকে কেন্দ্র করে ফের রাজনৈতিক বিতর্ক শুরু হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে ভাটপাড়া থানার পুলিশ অর্জুন সিংহের বাড়ি মজদুর ভবনে যায়। কিন্তু অর্জুন-পু্ত্র, ভাটপাড়ার বিধায়ক পবন সিংহ তাঁদের বাড়িতে ঢুকতে দেননি বলে অভিযোগ। পবনের বক্তব্য, পুলিশ বিনা ওয়ারেন্টে তাঁদের বাড়িতে এসেছিল বলে তিনি পুলিশকে বাড়িতে ঢুকতে দেননি। পুলিশ জানিয়েছে, অর্জুনের ভাইপো সঞ্জিত (পাপ্পু) সিংহকে গ্রেফতার করতে ওই বাড়িতে তাঁরা গিয়েছিল। তাদের কাছে খবর ছিল, পাপ্পু ওই বাড়িতে রয়েছে। এই ঘটনায় পুলিশ পবনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছে।

পুলিশ সূত্রের খবর, ভাটপাড়া-নৈহাটি সমবায় ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান ছিলেন অর্জুন। তৃণমূলে থাকাকালীন ভাটপাড়ার বিধায়কের পাশাপাশি অর্জুন ভাটাপাড়ার পুরপ্রধানও ছিলেন। সেই সময় পুরসভার কাজের টেন্ডারকে কেন্দ্র করে ওই সমবায় ব্যাঙ্কের বহু কোটি টাকা ঋণের মাধ্যমে তছরুপ হয়।  তা নিয়ে ব্যারাকপুর কমিশনারেটের গোয়েন্দা বিভাগে অভিযোগ হয়। সেই মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত একটি সংস্থা। যে সংস্থার অন্যতম অংশীদার পাপ্পু। পুলিশ এই মামলায় পাপ্পুকে ৪১-এ ধারায় হাজিরার জন্য বার কয়েক নোটিস পাঠিয়েছিল। কিন্তু তিনি পুলিশের সামনে হাজির হননি। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই পাপ্পুকে এ দিন গ্রেফতার করতে গিয়েছিল পুলিশ।

 এ দিন দুপুরে পুলিশ গেলে পবন তাঁদের বাধা দেন। পবন বলেন, “পুলিশ বলে, তাদের সন্দেহ এই বাড়িতে পাপ্পু সিংহ রয়েছে। আমি তাঁদের বলি এটা সাংসদের বাড়ি। এখানে পাপ্পু বলে কেউ থাকে না। কিন্তু তাঁরা বাড়ির ভিতরে ঢুকতে চাইলে আমি তাঁদের কাছে সার্চ ওয়ারেন্ট দেখতে চাই। তাঁরা দেখাননি বলে আমি তাঁদের বাড়িতে ঢুকতে দিইনি।” ব্যারাকপুর কমিশনারেটের ডিসি (সাউথ) অজয় ঠাকুর বলেন, “আমরা কোনও নোটিস দিতে, বাড়ি তল্লাশিতে যাইনি। নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পাপ্পু সিংহকে গ্রেফতার করতে গিয়েছিলাম। মাননীয় বিধায়ক পুলিশকে বাধা দিয়েছেন। আমরা তাঁর বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছি।”

এই ঘটনার পরেই শুরু হয়ে যায় রাজনৈতিক তরজা। অর্জুন টুইট করে বলেন, “দিদি, আপনি রাজ্যের সমস্যার সমাধান আগে করুন। আমি তো এখানেই থাকি, এখানেই থাকব।” বিজেপির রাজ্য-পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় টুইট করে অভিযোগ করেন, অর্জুনকে পুলিশ এনকাউন্টার কতে চাইছে। তৃণমূলের উত্তর ২৪ পরগনা জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, “পুলিশ পুলিশের কাজ করবে। যারা যে অপরাধ করেছে, তারা শাস্তি পাবে। অর্জুন তথা বিজেপি অন্যদিকে নজর ঘুরিয়ে পার পেতে চাইছে।”

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন