আনাজে বিষাক্ত রাসায়নিক মিশিয়ে তাজা করার অভিযোগে তিন জনকে গ্রেফতার করল পুলিশ।

শুক্রবার বিকেলে বাদুড়িয়ার রামচন্দ্রপুর বাজারে আনাজে রাসায়নিক মেশানোর সময়ে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হয়। হাতেনাতে ধরা হয় সফিকুল সর্দার, রাজা সর্দার ও কুতুবুদ্দিন মোল্লাকে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কয়েক বছর ধরেই বসিরহাটের বিভিন্ন হাট-বাজারে আনাজ টাটকা রাখতে বিষাক্ত রং, রাসায়নিক মেশানো হচ্ছে বলে পুলিশের কাছে খবর আসছিল। বাদুড়িয়ার রামচন্দ্রপুর বাজারে বেগুন, কাঁকরোল-সহ নানা আনাজে রং মেশানো হচ্ছে বলে এলাকার মানুষ পুলিশ-প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করছিলেন। স্বরূপনগরের হঠাৎগঞ্জ, বিথারি, শাঁড়াপুল, চারঘাট এবং বাদুড়িয়ার কেওটশা, রামচন্দ্রপুর, চাতরা-সহ বেশ কয়েকটি হাটে এই ঘটনা চলছিল বলে অভিযোগ। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, মূলত হাটবারে হয় এই বেআইনি কাজ।

চিকিৎসকদের দাবি, এ ধরনের আনাজ দীর্ঘ দিন ধরে খেলে লিভারের সমস্যা হতে পারে। ব্যবসায়ীদের পক্ষে কমল পাত্র, ফকির আলি, সঞ্জিত জানা, ওয়াহাব গাজিদের দাবি, দূরের শহরে পাঠানো আনাজ যাতে বাসি না দেখায়, সে জন্য রং-তুঁতে মেশানো জলে আনাজ রাখা হয়। 

তাঁদের অভিযোগ, চাষিদের কাছ থেকে কেনা আনাজ যাতে টাটকা দেখায়, সে জন্য এক শ্রেণির ফড়েরা এই কাজ করে। 

রামচন্দ্রপুর বাজারে কিছু ব্যবসায়ী মাটির বড় পাত্রে কপার সালফেট মেশানো জলে কাঁকরোল রেখেছিলেন বলে অভিযোগ। সে সময়েই পুলিশ কয়েক জনকে গ্রেফতার করে।