• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বাজারে ঢল, শিকেয় বিধি

Suri
লকডাউনেও সিউড়ির রাস্তায় যানজট। ছবি: তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর তিন দিন পরে ইদ। তাই আমপান দুর্যোগ কাটতেই শুক্রবার সকাল থেকে রামপুরহাট সহ জেলার সর্বত্র বাজারে ভিড় হল। বাজারে বেরিয়েছিলেন, এমন অনেকেই অভিযোগ করেছেন, সেই ভিড়ে কোথাও কোনও স্বাস্থ্যবিধি বা পারস্পরিক দূরত্ব বিধি মানা হয়নি। রামপুরহাট সহ জেলার বেশ কিছু জায়গায় শপিং মল খোলা থাকতে দেখা যায়। তবে সাঁইথিয়া, সিউড়িতে শপিং মল বন্ধ ছিল। সাঁইথিয়া শহরে শপিং মল সহ দুটি বড় বাজার বন্ধ রাখা হয়েছে বলে পুরবোর্ডের প্রশাসক কমিটির চেয়ারপার্সন বিপ্লব দত্ত জানান।

রামপুরহাট, সিউড়ি, বোলপুর, সাঁইথিয়া, দুবরাজপুর, নলহাটি— এই ছটি পুরসভা এলাকা ছাড়া লাভপুর, আমোদপুর, মহম্মদবাজার, মুরারই এই সমস্ত গঞ্জ এলাকাগুলিতেও কাপড়ের দোকান, জুতোর দোকানে ভিড় ছিল। সিউড়ি, রামপুরহাট পুরসভা এলাকায় বাজার খোলার জন্য পুরসভা থেকে চার দিন আগে মাইকে প্রচার করা হয়। ওই দুই পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দোকান খোলা রাখার জন্য বলা হয়। সাঁইথিয়া পুরসভার পক্ষ থেকে অবশ্য মাইকে প্রচার না করেই দোকানদার কাছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খুলে রাখার জন্য আবেদন জানানো হয়।

রামপুরহাট এবং সিউড়ি পুরসভায় দেখা যায়, মঙ্গলবার থেকেই কাপড়ের দোকান থেকে জুতোর দোকান, ইলেক্ট্রিকের সামগ্রী, হার্ডওয়ারের দোকান থেকে সব দোকান খোলা। রামপুরহাটে দেখা যায় শহরের শপিং মলগুলি খোলা। বুধ এবং বৃহস্পতিবার আমপানের জেরে বাজারে ভিড় না থাকলেও দোকান খোলা ছিল। শুক্রবার অবশ্য বাজারে ভিড়ের জন্য সিউড়ি এবং রামপুরহাট দুই শহরে ভিড়ের জন্য যানজট হয়। 

এলাকাবাসীর অভিযোগ, মুরারই থেকে নলহাটি, রামপুরহাট, লাভপুর, নানুর, সাঁইথিয়া, সিউড়ি, দুবরাজপুর, বোলপুর সব জায়গাতেই বাজারে ভিড় থাকলেও কোথাও কোনও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে দেখা যায়নি। রামপুরহাট শহরের পুরবোর্ডের প্রশাসক কমিটির চেয়ারপার্সন অশ্বিনী তিওয়ারি বলেন,                 ‘‘তিন দিন পরে ইদ। ভিড় তো হবেই। তবুও সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য মাইকে প্রচার করা হচ্ছে। আমি নিজেও একাধিক দোকানদারকে সতর্ক করেছি।’’ সিউড়ির পুরপ্রধান উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় জানান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার জন্য বলা হয়েছে। কাল থেকে নজরদারি চালানোর জন্য অভিযান চালানো হবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন