মোদী সব নিয়মের ঊর্ধ্বে তো নন!
এসপিজি নিরাপত্তায় থাকা মোদীর কপ্টারে তল্লাশি চালিয়ে মহসিন আইন ভেঙেছেন বলে কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে। কিন্তু আইন কি আদৌ ভেঙেছেন মহসিন?
NAMO

ছবি: পিটিআই।

প্রধানমন্ত্রী কি যাবতীয় প্রশ্নের ঊর্ধ্বে? তিনি কি সমস্ত আইন বা নিয়মের বাইরে? আইএএস আধিকারিক মহম্মদ মহসিন বরখাস্ত হওয়ার পরে এই প্রশ্নই সবচেয়ে বড়।

ওড়িশায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কপ্টারে তল্লাশি চালিয়েছিলেন মহসিন। সেই কারণেই তাঁকে বরখাস্ত করেছে দেশের নির্বাচন কমিশন। এসপিজি নিরাপত্তায় থাকা মোদীর কপ্টারে তল্লাশি চালিয়ে মহসিন আইন ভেঙেছেন বলে কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে। কিন্তু আইন কি আদৌ ভেঙেছেন মহসিন? সবচেয়ে বড় প্রশ্নচিহ্ন তা নিয়েই।

এসপিজি নিরাপত্তা যাঁরা পান, তাঁদের তল্লাশি করা যাবে না— ২০১৪ সালে এমনই একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল বলে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে। তবে সে নির্দেশিকায় খুব স্পষ্ট ভাবে প্রধানমন্ত্রীকে সব কিছুর ঊর্ধ্বে রাখা হয়নি মোটেই। প্রধানমন্ত্রী বা এসপিজি নিরাপত্তা বলয়ে থাকা অন্য কিছু ব্যক্তির ক্ষেত্রে সব সময় সাধারণ নিয়ম প্রযোজ্য নয়, এ কথা ওই নির্দেশিকায় স্পষ্ট। কিন্তু কোনও পরিস্থিতিতেই তল্লাশি নামক শব্দটা প্রধানমন্ত্রীর বৃত্তকে স্পর্শ করতে পারবে না, এমন কোনও কথাও ওই নির্দেশিকায় লেখা নেই। অতএব আইএএস আধিকারিকের বরখাস্ত হয়ে যাওয়ার খবর বেশ জোরদার ধাক্কাই দিচ্ছে সাধারণ বিচারবুদ্ধিকে।

সম্পাদক অঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা আপনার ইনবক্সে পেতে চান? সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

প্রধানমন্ত্রী নিশ্চয়ই বিশেষ মর্যাদার অধিকারী। কিন্তু এ কথাও মাথায় রাখতে হবে যে, ভারতের এই সাধারণ নির্বাচনে ওই প্রধানমন্ত্রীও একটি নির্দিষ্ট দলের তরফ থেকে ভোট প্রার্থী। ধর্মেন্দ্র প্রধান বা নবীন পট্টনায়ক যদি তল্লাশির মুখে পড়তে পারেন, তা হলে নরেন্দ্র মোদীই বা নন কেন? এই প্রশ্নের জবাব কিন্তু এখনও স্পষ্ট ভাবে দিতে পারেনি বিজেপি।

আরও পড়ুন: কোন নিয়মে বরখাস্ত আইএএস অফিসার? মোদীর কপ্টার তল্লাশি নিয়ে উঠছে প্রশ্ন

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত