×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৮ মে ২০২১ ই-পেপার

WB Election: ‘রাজ্যে করোনা ছড়িয়ে হাসপাতালে ভর্তি যোগী’, তোপ ফিরহাদের, ‘ভুল বকছেন’, পাল্টায় বিজেপি

নিজস্ব সংবাদদাতা
বহরমপুর ১৫ এপ্রিল ২০২১ ২৩:২৩
কান্দিতে ভোট প্রচারে ফিরহাদ হাকিম।

কান্দিতে ভোট প্রচারে ফিরহাদ হাকিম।
নিজস্ব চিত্র।

রাজ্যে ভোট প্রচারে এসে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। মুর্শিদাবাদে প্রচারে গিয়ে এমনই অভিযোগ করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। তাঁর মন্তব্যের প্রতিবাদ করেছে গেরুয়া শিবির।

বৃহস্পতিবার মুর্শিদাবাদের কান্দি বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী অপুর্ব সরকারের সমর্থনে জনসভা করেন ফিরহাদ। তার পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি অভিযোগ করেন, রাজ্যে করোনা সংক্রমণের বাড়বৃদ্ধির পিছনে হাত রয়েছে নির্বাচন কমিশন এবং বিজেপি-র। এ নিয়ে কমিশন এবং গেরুয়া শিবিরের মধ্যে আঁতাঁতের অভিযোগও তোলেন তিনি। তাঁর প্রশ্ন, ‘‘রাজ্যে ৮ দফা নির্বাচন কার স্বার্থে? এটা করে করোনা সংক্রমণ বাড়াল কে? এই নির্বাচন অসমের মতো হতে পারত। কিন্তু তা হল না কেন? বাইরের নেতা নিয়ে এসে বাংলায় করোনা পরিস্থিতি সৃষ্টি করল কে?’’ এর প্রেক্ষিতে ফিরহাদের ব্যাখ্যা, ‘‘নির্বাচন কমিশন আর বিজেপি এ সব করেছে। ছোট ছোট দলকে দোষ দিলে হবে না। রাঘব বোয়ালরা সব খাবে? কেন ৮ দফায় নির্বাচন? ৩ থেকে ৪ দফায় অসমের মতো নির্বাচন হলে তো সমস্যাই থাকত না। কেন দিল্লি, বম্বে থেকে নেতা এবং ক্যাডারদের এনে করোনাকে ছড়ানো হল কেন? যোগীজি তো কত জনের মধ্যে সংক্রমণ ছড়িয়ে নিজে ভর্তি হয়ে গিয়েছেন। কেন এ সব বিজেপি করাচ্ছে?’’

ফিরহাদের অভিযোগ নিয়ে পাল্টা তোপ দেগেছে বিজেপি। বিজেপি-র দক্ষিণ মুর্শিদাবাদ জেলার সভাপতি গৌরীশঙ্কর ঘোষ বলেন, ‘‘তৃণমূল মুর্শিদাবাদ জেলাতে ধরাশায়ী হবে। তাই ফিরহাদ হাকিম ভুল বকছেন। আগামী দিনে সোনার বাংলা তৈরি হবে।’’

প্রসঙ্গত, ভোট প্রচারের উদ্দেশে একাধিক বার রাজ্য সফর করেন আদিত্যনাথ। রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় সভাও করেন তিনি। গত বুধবার দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে সভা ছিল তাঁর। কিন্তু কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসায় তাঁর সফর বাতিল করা হয়। যদিও বালুরঘাটের সেই সভা বাতিল হয়নি। রাজ্যে ৮ দফায় বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে সব দলেরই রাজনৈতিক কর্মসূচি জারি রয়েছে। ঘটনাচক্রে গত কয়েক দিন রাজ্যে নতুন সংক্রমিতের সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে লাফিয়ে লাফিয়ে। বুধবার রাজ্যে করোনাকালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত, ৫ হাজার ৮৯২ জন। তার উপর বৃহস্পতিবারই করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃ্ত্যু হয়েছে সামশেরগঞ্জের কংগ্রেস প্রার্থী রেজাউল হক ওরফে মন্টু বিশ্বাসের। করোনা আক্রান্ত হয়েছেন মুর্শিদাবাদ জেলার জঙ্গিপুর বিধানসভা কেন্দ্রের আরএসপি প্রার্থী প্রদীপ নন্দী। করোনায় আক্রান্ত করিমপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সমরেন্দ্রনাথ ঘোষও। এর মধ্যে অবশ্য ব্যতিক্রমী সিদ্ধান্ত নিয়েছে বামেরা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে বড় জমায়েত করা হবে না বলে জানিয়েছেন সিপিএম নেতা মহম্মদ সেলিম।

Advertisement
Advertisement