×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement
Powered By
Co-Powered by
Co-Sponsors

রাজ, মানালিদের মতো তৃণমূলে আসা নতুন তারকাদের রাজনীতির পাঠ দিলেন ডেরেকরা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৩ মার্চ ২০২১ ১৭:২২
রাজনীতির পাঠ নিলেন টলিউডের তারকা অভিনেতা-অভিনেত্রীরা।

রাজনীতির পাঠ নিলেন টলিউডের তারকা অভিনেতা-অভিনেত্রীরা।

সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া টলিউডের অভিনেতা-অভিনেত্রীদের রাজনীতির পাঠ শেখানোর কাজ শুরু করল তৃণমূল। বুধবার তৃণমূল ভবনে ওই তারকাদের প্রথম পর্যায়ের প্রশিক্ষণ দেন রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়েন। তারকাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী, অভিনেত্রী মানালি দে, সুদেষ্ণা রায়, রণিতা দাস, পিয়া সেনগুপ্ত, সৌরভ দাস, ও সৌপ্তিক চক্রবর্তী।


বিধানসভা নির্বাচনের আগে টলিউডের এক ঝাঁক তারকা রাজনীতির ময়দানে পা রাখেন। বিজেপি-র পাশাপাশি অনেকে তৃণমূলেও যোগ দেন। তাঁদের মধ্যে অনেকেরই রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা তুলনামূলক ভাবে কম। কেউ হয়তো আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী হবেন, আবার কেউ কেউ শুধুমাত্র দলের হয়ে প্রচারের কাজ করবেন। তবে সকলেরই রাজনৈতিক শিক্ষার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করছে তৃণমূল। তাই বুধবার সেই প্রশিক্ষণেরই কাজ শুরু হয়েছে। তৃণমূল সূত্রে খবর, গত ১০ বছরের তৃণমূল সরকার ও দলের কার্য পদ্ধতি সম্পর্কে ওই তারকাদের ওয়াকিবহাল করা হয়। বলা হয়, তৃণমূল সরকারের কাজ নিয়ে সঠিক তথ্য মানুষের কাছে তুলে ধরতে হবে তাঁদের। বিরোধীরা ওই তথ্য নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি করতে পারে। তাতে আমল না দিয়ে দলের দেওয়া শিক্ষাই প্রচারের কাজে লাগাতে হবে।

Advertisement

পাশাপাশি বুধবারের বৈঠকে ওই তারকাদের বলা হয়েছে কোনও রকম বিতর্কে না জড়াতে। তারকা সুলভ আচরণ নয়, মানুষের সঙ্গে মিশে রাজনীতি করতে হবে। কারণ রাজনীতিতে মানুষই শেষ কথা। এ ছাড়া তারকারা প্রচারে গিয়ে জনসভায় কীভাবে বক্তৃতা করবেন, তৃণমূল সরকারের কী কী উন্নয়নের কথা বলবেন সবই ছিল বুধবারের বৈঠকে। এ নিয়ে রাজ বলেন, "আমি পরিচালক হিসেবে নয় রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে কাজ করতে নেমেছি। তাই রাজনীতি করার জন্য কিছু জিনিস শেখা দরকার। তা নিয়েই বৈঠকে আলোচনা হয়।" আবার সুদেষ্ণার কথায়, "আমরা যখনই কোনও নতুন কাজ করতে চাই, তখনই সেই কাজের তথ্য জেনে একটা পরিকল্পনা করা দরকার। তৃণমূলে যোগ দিলেও, এই দল সম্পর্কে আমরা এখনও অনেক কিছু জানি না। বুধবারের আলোচনায় আমরা অনেক কিছু জানলাম। মানুষের কাছে সরকারের কাজকর্ম নিয়ে কী কী বলতে হবে তাও বলা হয়েছে।" অন্য দিকে, রণিতা বলেন, ‘‘আমরা তৃণমূল সরকারের অনেক প্রকল্পের কথা শুনলেও তার সবিস্তার জানি না। রাজ্য সরকারের কন্যাশ্রী প্রকল্পের নাম আমরা সবাই শুনেছি। কিন্তু ওই প্রকল্পের সঙ্গে কেন্দ্রের বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও প্রকল্পের কী পার্থক্য রয়েছে, সেটা জানানো হয়েছে। এ ছাড়া কৃষক আন্দোলন নিয়ে মোদী সরকারের অবস্থান, স্বাস্থ্যসাথীর প্রকল্পগুলো জনসভায় মানুষের সামনে বলতে বলা হয়েছে।

তৃণমূল সূত্রে খবর, বুধবারের বৈঠকে যাঁরা উপস্থিত ছিলেন সবাই প্রার্থী না হলেও রাজ, সুদেষ্ণা এবং রণিতা প্রার্থী হতে পারেন। বুধবার অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলে যোগ দিলেও তিনি এই বৈঠকে ছিলেন না।

Advertisement