×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৫ মে ২০২১ ই-পেপার

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন

Bengal Polls: স্ত্রীর থেকে কম বার্ষিক আয়, হলফনামা অনুযায়ী বাম নেতা অশোকের সম্পত্তির পরিমাণ জানেন?

নিজস্ব প্রতিবেদন
১৪ এপ্রিল ২০২১ ০৯:১০
পুরসভার চেয়ারম্যান থেকে গুরুত্বপূর্ণ দফতরের মন্ত্রী। দল এবং প্রশাসনের প্রয়োজনে তাঁকে দেখা গিয়েছে বিভিন্ন ভূমিকায়। অভিজ্ঞ বাম রাজনীতিক অশোক ভট্টাচার্য এ বার শিলিগুড়ি কেন্দ্রে সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী। নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছেন তাঁর সম্পত্তির বিবরণ।

২০১৯-’২০ আর্থিক বর্ষে তাঁর উপার্জন ছিল ৩ লক্ষ ৬২ হাজার ৪০ টাকা। তাঁর স্ত্রীর উপার্জন ছিল ৩ লক্ষ ৭৫ হাজার ৬১৫ টাকা।
Advertisement
এই মুহূর্তে তাঁর হাতে আছে ৩ হাজার ৮০০ টাকা। তাঁর স্ত্রী রত্নার কাছে রয়েছে নগদ ৭ হাজার ২০০ টাকা।

বিভিন্ন ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টে অশোকের নামে আছে যথাক্রমে ২ লক্ষ ৪২ হাজার ৭৩০ টাকা, ১২ লক্ষ ৩৫ হাজার ৯৪ টাকা এবং স্ত্রীর নামে যৌথ ভাবে আছে ১৮ হাজার ৫৪০ টাকা।
Advertisement
তাঁর স্ত্রীর নামে গচ্ছিত আছে ৬ লক্ষ ১২ হাজার ১৭৫ টাকা, ২ লক্ষ ১৯ হাজার ৫৬৯ টাকা, ৮৪ হাজার ৬৩১ টাকা এবং ১৮ হাজার ৫৪০ টাকা।

স্ত্রীর সঙ্গে যৌথ ভাবে অশোকের একাধিক স্থায়ী আমানত রয়েছে। সেগুলির প্রত্যেকটিতে সঞ্চিত ২ লক্ষ ৪৫ হাজার ৪৪১ টাকা করে। এ ছাড়াও তাঁর স্ত্রীর নামে দু’টি স্থায়ী আমানত আছে ৪ লক্ষ ৫৮ হাজার ১৮৭ টাকার।

অশোক বা তাঁর স্ত্রীর নামে এই মুহূর্তে কোনও ব্যাঙ্কঋণ নেই। ব্যক্তিগত গাড়িও নেই অশোকের নামে। তবে তাঁর স্ত্রীর নামে একটি মারুতি রিট্‌জ আছে। ২০১৩ সালে যা তিনি কিনেছিলেন ৪ লক্ষ ৮৬ হাজার ৭১৭ টাকায়।

 সোনার গয়নাও নেই অশোকের নামে। তাঁর স্ত্রীর কাছে যে ১৫ গ্রাম সোনার গয়না আছে, তার বাজারমূল্য ৬৮ হাজার টাকা।

মানিকতলায় সরকারি আবাসনের পাশাপাশি অশোকের আরও একটি ফ্ল্যাট আছে শিলিগুড়িতে।

নিজের পরিচয় প্রাক্তন মন্ত্রী দিয়েছেন পূর্ণ সময়ের রাজনীতিক হিসেবে। তাঁর স্ত্রী অবসরপ্রাপ্ত রাজ্য সরকারি কর্মী।

উপার্জনের উৎস হিসেবে অশোক বলেছেন বিধায়ক হিসেবে তাঁর প্রাপ্ত বেতনের কথা। অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মী হিসেবে তাঁর স্ত্রীও পেনশন পান।

উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ কলেজ শিলিগুড়ি কলেজ অব কমার্স থেকে তিনি বাণিজ্য শাখায় স্নাতক হন ১৯৬৯ সালে।

উত্তরবঙ্গ তথা রাজ্য রাজনীতির গুরুত্বপূর্ণ বাম রাজনীতিক হিসেবে পরিচিত অশোক ভট্টাচার্য। ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০১, ২০০৬ এবং ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তিনি জয়ী হন শিলিগুড়ি থেকে।

২০১১ সালে অশোক পরাজিত হন তৃণমূল প্রার্থী রুদ্রনাথ ভট্টাচার্যের কাছে। আবার ৫ বছর পরে শিলিগুড়ি আসনে তিনি জয়ী হন। তাঁর কাছে পরাজিত হন তৃণমূল প্রার্থী ভাইচুং ভুটিয়া।

 এ বারের নির্বাচনে অশোকের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূলের ওমপ্রকাশ মিশ্র এবং বিজেপি-র শঙ্কর ঘোষ। শিলিগুড়ি এ বারও তাদের দখলেই থাকবে বলে দাবি বাম রাজনীতিক ও কর্মী সমর্থকদের।

Tags: