• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্রিয়জনকে হারালেন কাঞ্চন, কথা রাখতে একদিন না কাটতেই শুটিং ফ্লোরে অভিনেতা

main
কাঞ্চন মল্লিক।

মা’কে হারিয়েছেন চব্বিশ ঘন্টাও কাটেনি। গলার কাছে কান্না এসে আটকে রয়েছে। কিন্তু কথা দিয়েছিলেন রবিবার সকালেই শুটে যাবেন। আর সেই কথা রাখতেই কান্না চেপে, এক বুক কষ্ট নিয়ে অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক চলে গেলেন ডায়মণ্ডহারবারে, ওয়েব সিরিজের শুটিংয়ে। রোজকারের মতোই মেকআপ, ড্রেসআপ করে সারা দিন শট দিলেন তিনি।

বন্ধু রুদ্রনীল সে কথা জানিয়েই এক ফেসবুক পোস্টে লেখেন, “একজন অভিনেতা,কাঞ্চন মল্লিক। যার মা কাল পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেন। হাউহাউ করে কান্নায় ভেঙে পড়ল আমার কাঁধে মাথা রেখে। কিন্তু, জীবিকার কারণে মানুষকে হাসাতে আজ সকাল থেকে সে শুটিং ফ্লোরে।যন্ত্রণা ভোলার জন্য ২৪ ঘন্টাও কাটেনি। হ্যাঁ, অভিনেতারা ঠিক সহজ মানুষ নয়। হয়ত অন্য কিছু।”

গতকাল, শনিবার সকাল ১১টা নাগাদ নিজের বাড়িতে মৃত্যু হয় কাঞ্চনের মা’য়ের। গতকালই কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় তাঁর। শেষযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন কাঞ্চনের দীর্ঘদিনের বন্ধু, অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়-সহ টলিপাড়ার বেশ কয়েকজন। দীর্ঘ দিন ধরেই বার্ধক্যজনিত অসুখে ভুগছিলেন তিনি। গত দু’দিন ধরে শরীরের অবনতি ঘটে। শনিবার সকালে জলখাবার খেয়ে শুয়েছিলেন তিনি। দীর্ঘক্ষণ সাড়া শব্দ না পাওয়া ডাক্তারকে খবর দেওয়া হয়। ডাক্তার এসে মৃত ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন- ঘরভর্তি ধোঁয়া, সবাই মিলে বসে মদ-সিগারেট খাচ্ছে, বেরিয়ে এলাম...: তুহিনা

দেখুন রুদ্রর পোস্ট 

শুধু রুদ্রনীলই নন, কাজের প্রতি কাঞ্চনের এরকম নিষ্ঠা দেখে চোখে জল নেটাগরিকদেরও। এ অবস্থাতেও তিনি যে শুটিংয়ে গিয়েছেন তা স্মরণ করেই এক ভক্তের বক্তব্য, “একেই বোধহয় আসল ডেডিকেশন বলে। শিল্পের প্রতি শিল্পীর কী ভীষণ ভালবাসা।” রুদ্রনীল বলছিলেন, “আসলে আমাদের অভিনেতাদের তো দু’টো জন্ম। প্রথম জন্মে আমাদের জন্ম দিয়েছেন আমাদের বাবা-মা আর আমাদের অভিনেতা জন্মের বাবা-মা আমাদের দর্শকেরা। তাই কাঞ্চনও সেই বাবা-মা’কে খুশি করতেই কাজে গিয়েছে আজ।”

কথাতেই তো বলে, “দ্য শো মাস্ট গো অন”।

 

 

 

 

 

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন