Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

‘ঐশ্বর্যা আমার মা!’ অন্ধ্রের যুবকের দাবিকে ভুয়ো বললেন নায়িকার ম্যানেজার

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৪ জানুয়ারি ২০১৮ ১৪:২৮
ঐশ্বর্যা রাই বচ্চন। ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

ঐশ্বর্যা রাই বচ্চন। ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

ঐশ্বর্যা রাই বচ্চনকে নিজের জন্মদাত্রী বলে দাবি করেছিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের যুবক সঙ্গীত কুমার। ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই সেই দাবিকে ভুয়ো বলে ব্যাখ্যা করলেন ঐশ্বর্যার ম্যানেজার।

সঙ্গীত এ হেন দাবি করার পর চাঞ্চল্য তৈরি হয়। সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খোলেননি ঐশ্বর্যা স্বয়ং। তবে তাঁর ম্যানেজার সাংবাদিকদের জানান, সঙ্গীতের দাবি হাস্যকর এবং সম্পূর্ণ মিথ্যে। আর এই ঘটনা নিয়ে কোনও আলোচনা করে ওই যুবককে কোনও ভাবেই প্রচার দিতে চান না ঐশ্বর্যা ঘনিষ্ঠ কেউই। ভাইজাগ পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যদি এ বিষয়ে বচ্চন পরিবারের তরফে কেউ লিখিত অভিযোগ করেন, তা হলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাংবাদিকদের ওই যুবক বলেছেন, ১৯৮৮ সালে লন্ডনে কৃত্রিম প্রজনন পদ্ধতিতে তাঁর জন্ম। তিন বছর বয়সে নাকি ছোদাবরমে (বিশাখাপত্তনম) তাঁকে নিয়ে আসা হয় এবং তার আগে তিনি থাকতেন মুম্বইতে ঐশ্বর্যার মা বৃন্দা কৃষ্ণরাজ রাইয়ের পরিবারের সঙ্গে। যে সময় নিজের জন্ম বলে ওই যুবকের দাবি, তখন ঐশ্বর্যার বয়স ছিল ১৪ বছর।

Advertisement

আরও পড়ুন, পকেটমারের পাল্লায় সায়নী?

সাংবাদিকদের কাছে ওই যুবক বলেছেন, ‘‘আমার দাদুর নাম কৃষ্ণরাজ রাই। ২০১৭-র মার্চ মাসে তিনি প্রয়াত হন। আমার মামার নাম আদিত্য রাই’’। ঐশ্বর্যা এখন আর অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে থাকেন না বলেও দাবি করেছেন সঙ্গীত। তাঁর কথায়, ‘‘আমার মা ২০০৭-এ অভিষেক বচ্চনকে বিয়ে করেন। তবে তাঁরা এখন সেপারেটেড। মা একাই থাকেন। আমি চাই মা মেঙ্গালুরুতে এসে আমার সঙ্গে থাকুন। প্রায় ২৭ বছর ধরে আমি আমার পরিবারের থেকে আলাদা রয়েছি। আমি আর বিশাখাপত্তনমে ফিরে যেতে চাই না।...’’

আরও পড়ুন, প্রিয়ঙ্কার জন্মদিন, কী ভাবে উইশ করলেন রাহুল?

সঙ্গীত দাবি করেন, এতদিন তাঁর কাছে প্রামাণ্য নথি না থাকায় তিনি এ নিয়ে মুখ খোলেননি। এখন প্রমাণ রয়েছে। সে কারণেই তিনি বিষয়টি প্রকাশ্যে এনেছেন। যদিও সংবাদমাধ্যমের সামনে কোনও নথি তিনি পেশ করতে পারেননি।

বলিউড-টলিউড-টেলিউডের হিট খবর জানতে চান? সাপ্তাহিক বিনোদন সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন



Tags:

আরও পড়ুন

Advertisement